Inqilab Logo

ঢাকা বুধবার, ২৫ নভেম্বর ২০২০, ১০ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ০৯ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরী

৩০ অক্টোবর যথাযোগ্য মর্যাদায় ঈদ-ই-মিলাদুন্নবী(সা.) উদযাপন করা হবে

আন্তঃমন্ত্রণালয় সভায় ধর্ম সচিব

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৩ অক্টোবর, ২০২০, ৫:০৮ পিএম

আগামী ১২ রবিউল আউয়াল ১৪৪২ হিজরী (চাঁদ দেখা সাপেক্ষে ৩০ অক্টোবর) সারা দেশে পবিত্র ঈদ-ই-মিলাদুন্নবী (সা.) উদযাপিত হবে। পবিত্র ঈদ-ই-মিলাদুন্নবী (সা.) উদযাপন উপলক্ষে ধর্ম সচিব মো. নূরুল ইসলাম এর সভাপতিত্বে আজ মঙ্গলবার ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের আয়োজনে অনুষ্ঠিত অনলাইন (ভার্চুয়াল) আন্ত:মন্ত্রণালয় সভায় এ সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত করা হয়। সভায় জাতীয় পর্যায়ে কর্মসূচি প্রণয়ন এবং সুষ্ঠুভাবে বাস্তবায়নের জন্য বিভিন্ন সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। সভায় ধর্ম সচিব মো. নরুল ইসলাম জানান, কভিড-১৯ করোনা ভাইরাস মহামারি পরিস্থিতি বিবেচনায় এ বছর স্বাস্থ্যবিধি অনুসরন ও সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে যথাযোগ্য মর্যাদায় আসন্ন পবিত্র ঈদ-ই-মিলাদুন্নবী (সা.) উদযাপন করা হবে। এক্ষেত্রে প্রযুক্তিগত সুবিধা ব্যবহার করা হবে। সভায় পবিত্র ঈদ-ই-মিলাদুন্নবী (সা.) উপলক্ষে প্রেসিডেন্ট ও প্রধানমন্ত্রীর বাণী প্রদানের সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। এ উপলক্ষে সরকারি, আধা-সরকারি ভবন, স্বায়ত্তশাসিত প্রতিষ্ঠান, বেসরকারি ভবন ও সশস্ত্র বাহিনীর সকল স্থাপনাসমূহে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা হবে। জাতীয় পতাকা ও ‘কালিমা তায়্যিবা’ লিখিত ব্যানার ঢাকা মহানগরীর গুরুত্বপূর্ণ ট্রাফিক আইল্যান্ড ও লাইট পোষ্টে প্রদর্শনের সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। এছাড়া পবিত্র ঈদ-ই-মিলাদুন্নবী (সা.) রাত্রিতে সরকারি ভবনসমূহ ও সামরিক গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনাসমূহ আলোক সজ্জা করা হবে। সভায় সিদ্ধান্ত হয়, পবিত্র ঈদ-ই-মিলাদুন্নবী (সা.) উপলক্ষে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের মাধ্যমে বিশেষ ক্রোড়পত্র প্রকাশ করা হবে এবং পক্ষকাল ব্যাপী হযরত মোহাম্মদ (সা.) এর জীবনীর উপর আলোচনা সভা ও মাহফিলসহ বিশেষ কর্মসূচি গ্রহণ করা হবে। এ ছাড়াও সভায় সারাদেশে সরকারি ও বেসরকারি সংস্থাসমূহে হযরত মুহাম্মদ (সা.) এর জীবন ও কর্মের উপর আলোচনা সভা ও মিলাদ মাহফিল অনুষ্ঠানের কর্মসূচি গ্রহণ করার সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। এ উপলক্ষে বাংলাদেশ টেলিভিশন, বাংলাদেশ বেতার ও প্রযুক্তির মাধ্যমে দিবসটির যথাযোগ্য গুরুত্ব তুলে ধরে বিশেষ অনুষ্ঠান প্রচার করা হবে। শিশু একাডেমি কর্তৃক শিশুদের জন্য বিশেষ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হবে। সভায় আরও সিদ্ধান্ত হয়, পবিত্র ঈদ-ই-মিলাদুন্নবী (সা.) উদযাপন উপলক্ষে দেশের সকল হাসপাতাল,কারাগার,সরকারি শিশু সদন,বৃদ্ধ নিবাস,মাদকাসক্তি নিরাময় কেন্দ্রে উন্নতমানের খাবার পরিবেশনের ব্যবস্থা করা হবে। বিদেশে অবস্থিত বাংলাদেশ দূতাবাস ও মিশনসমূহে যথাযথভাবে পবিত্র ঈদ-ই-মিলাদুন্নবী (সা.) পালন করবে। এ উপলক্ষে সারাদেশে আইন শৃংখলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রক্ষার্থে বিশেষ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। ভার্চুয়াল এ আন্ত:মন্ত্রণালয় সভায় বিভিন্ন মন্ত্রণালয়, ইসলামিক ফাউন্ডেশনের মহাপরিচালক আনিস মাহমুদ, অন্যান্য বিভাগ, অধিদপ্তর, দপ্তর ও সংস্থার প্রতিনিধিবৃন্দ অংশগ্রহণ করেন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন