Inqilab Logo

ঢাকা বুধবার, ২৫ নভেম্বর ২০২০, ১০ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ০৯ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরী

আকবরের গ্রেফতার ও ফাঁসির দাবিতে রাজপথে মানুষ

পুনরায় ময়নাতদন্তের নির্দেশ আজ জেলা প্রশাসন ও পুলিশ কমিশনার বরাবরে স্মারকলিপি

ফয়সাল আমীন | প্রকাশের সময় : ১৫ অক্টোবর, ২০২০, ১২:০০ এএম

রায়হান হত্যা মামলা তদন্তে মাঠে নেমেছে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)। মাঠে নেমেই গতকাল বুধবার দুপুর ১২টায় পিবিআইয়ের তদন্ত দল পা রাখে বন্দর বাজার পুলিশ ফাঁড়িতে। প্রায় ২ ঘণ্টা সেখানে অবস্থান শেষে তদন্ত দলটি কাষ্টঘর এলাকায় যায়। সেখানে নিহত রায়হানকে গ্রেফতারের সময় প্রত্যক্ষদর্শী সুরাইলালের কাছ থেকে সংগ্রহ তথ্য করেন।

তদন্ত দলের প্রধান পুলিশ সুপার (পিবিআই) মোহাম্মদ খালেদুজ্জামান এ সময় বলেন, ফাঁড়িটি প্রাথমিক পরিদর্শন ও পর্যবেক্ষণে কিছু আলামত মিলেছে। তদন্তকালে এ ঘটনায় যাদের জড়িত পাওয়া যাবে তাদের নাম অন্তর্ভুক্ত করা হবে মামলায়। এছাড়া পুনরায় ময়নাতদন্ত হবে রায়হানের লাশ। এদিকে, হত্যা ঘটনার অভিযোগে সাময়িক বরখাস্তকৃত এসআই আকবর হোসেন ভূঁইয়াকে গ্রেফতারের দাবিতে বিকেলে ঘেরাও করে বন্দর বাজার পুলিশ ফাঁড়ি সচেতন। সেখানে আকবরের ফাঁসির দাবিসহ প্রতিবাদমুখী বিভিন্ন স্লোগানে তাপ ছড়িয়ে দেয় তারা। এছাড়াও রায়হানের নিজ এলাকায় আখালিয়ায় বিকেলে অনুষ্ঠিত হয়েছে এক মানবন্ধন। আকবরকে দ্রুত গ্রেফতার ও তার ফাঁসির দাবিতে স্থানীয় মানুষের ব্যাপক উপস্থিতি ছিল মানববন্ধনে। পাশাপাশি আজ (বৃহস্পতিবার) সকাল ১১ টায় জেলা প্রশাসক ও পুলিশ কমিশনার বরাবরে স্মারকলিপি প্রদানের কর্মসূচীও ঘোষণা করা হয় মানববন্ধনে। এমসি কলেজ ছাত্রাবাসে গণধর্ষণ ও রায়হান হত্যার ঘটনায় সিলেটে রাজপথ উত্তাল এখন। মানববন্ধনসহ বিভিন্ন কর্মসূচীর মাধ্যমে রাজপথে নেমে পড়ছে সাধারণ জনতাও। এদিকে রায়হান হত্যার বিচারের আশ্বাস দিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীও।

মামলা নথি পেয়েই তদন্তে পিবিআই :
গত মঙ্গলবার সকালে পুলিশ সদর দফতরের নির্দেশ রাত সাড়ে ৯টায় মহানগর পুলিশের নিকট থেকে রায়হান হত্যা মামলাটি আনুষ্ঠানিকভাবে হস্তান্তর করা হয় পিবিআইতে। এরপর গতকাল দুপুরেই তদন্ত শুরু করে পিবিআই’র একটি দল। দুপুর ১২টার দিকে পিবিআই সিলেটের পুলিশ সুপার খালেদুজ্জামানের নেতৃত্বে তদন্ত দল পরিদর্শন করে বন্দরবাজার ফাঁড়ি। ঘটনার কোন আলামত পাওয়া যায় কি-না তা খুঁজে দেখে তারা। এসময় তদন্তকারী দল বন্দরবাজার ফাঁড়ি এলাকা ‘ক্রাইম সিন’ ফিতা দিয়ে ঘিরে রাখেন। তদন্ত দলে ছিলেন, পুলিশ সুপার মো. খালেদুজ্জামান, তদন্ত কর্মকর্তা পরিদর্শক মহিদুল ইসলাম ও পরিদর্শক জাহাঙ্গীর হোসেন।

যেভাবে তদন্ত শুরু করলো পিবিআই :
বন্দরবাজার পুলিশ ফাঁড়িতে রায়হান হত্যা মামলার তদন্তের শুরুতেই গতকাল ১২টা ১৫ মিনিটের দিকে বন্দরবাজার পুলিশ ফাঁড়িতে অবস্থান নেয় পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনে (পিবিআই) এর একটি দল। বন্দর বাজার ফাঁড়িতে কোন আলামত পান কি না তা খোঁজার চেষ্টা করছেন বলে পিবিআই এর পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে উপস্থিত সাংবাদিকদের। এর পর প্রায় ২ ঘণ্টা বন্দর ফাঁড়িতে অবস্থানের পর তদন্ত দলটি কাষ্টঘর এলাকায় অভিমুখে রওনা দেয়। সেখানে নিহত রায়হানকে গ্রেফতারের সময় প্রত্যক্ষদর্শী সুরাইলালের কাছ থেকে তথ্য সংগ্রহ করে তদন্ত দলটি। এছাড়া এসপি মোহাম্মদ খালেদুজ্জামান বলেন, ফাঁড়িটি প্রাথমকি পরিদর্শন ও পর্যবেক্ষণে কিছু আলামত মিলেছে। তদন্তকালে এ ঘটনায় যাদের জড়িত পাওয়া যাবে তাদের নাম অন্তর্ভুক্ত করা হবে মামলায়।

পুুনরায় ময়নাতদন্ত হবে রায়হানের লাশ :
‘পুলিশি নির্যাতনে’ নিহত রায়হানের লাশ কবর থেকে তুলে ময়নাতদন্ত করা হবে আবারও। গতকাল বেলা ২টায় এ তথ্য জানিয়েছেন পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনের (পিবিআই) পুলিশ সুপার মোহাম্মদ খালেদুজ্জামান। তিনি জানান, পুনরায় ময়নাতদন্তের জন্য নিহত রায়হান আহমদের লাশ কবর থেকে তোলার অনুমতি দিয়ে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট নিয়োগ দিয়েছে জেলা প্রশাসন। রায়হান হত্যা মামলার পূর্বের তদন্তকারী কর্মকর্তা সিলেট কোতোয়ালি মডেল থানার এসআই বাতেন পুনরায় ময়নাতদন্তের জন্য লাশ কবর থেকে উত্তোলনের অনুমতি চেয়ে আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে এ আদেশ দেন জেলা প্রশাসন। ম্যাজিস্ট্রেটের অনুমতি সাপেক্ষে খুব শিগগিরই লাশ উত্তোলন করা হবে রায়হানের। পুলিশের আবেদনের প্রেক্ষিতে গতকাল বুধবার আদালত এ নির্দেশ দিয়েছেন বলে জানিয়েছেন মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত উপ কমিশনার (গণমাধ্যম) জ্যোর্তিময় সরকার।

রায়হানের খুনিদের বিচার হবে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী :
সিলেট মহানগর পুলিশের (এসএমপি) বন্দরবাজার ফাঁড়িতে পুলিশের নির্যাতনে রায়হানের মৃত্যুর ঘটনায় দায়ী ব্যক্তিদের বিচারের সম্মুখীন হতে হবে বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল। গতকাল সচিবালয়ে নিজ দফতরে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এ কথা জানান। রায়হান উদ্দিনের মৃত্যুর বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করলে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, সিলেটের ঘটনাটি এখন তদন্তে রয়েছে। সেখানে যে ঘটনাটি ঘটেছে তা মিডিয়ায় প্রচার হয়েছে। তিনি বলেন, তার ময়নাতদন্ত হচ্ছে কিংবা হবে- সেই অনুযায়ী এবং তার স্ত্রী যে মামলা করেছেন সবগুলো আমলে নিয়ে সুষ্ঠু তদন্ত হবে। তদন্ত অনুযায়ী অবশ্যই দায়ীদের বিচারের সম্মুখীন হতে হবে।

এসআই আকবরকে গ্রেফতার ও ফাঁসির দাবীতে উত্তাল সিলেট :
স¤প্রতি সিলেটের মাটিতে কলঙ্কের কালি লেপন করেছে ধর্ষণ ও খুন। শান্ত নগরবাসীর মধ্যে দেখা দিয়েছে ক্ষোভ। মিছিলে মিছিলে উত্তপ্ত হয়েছে সিলেট। প্রতিদিনই সিলেট কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে বিক্ষোভ করছে একাধিক সংগঠন। তাদের একটাই দাবি- সিলেটের মাটিতে যারা কলঙ্কের কালি লেপন করেছেন তাদের যেন উপযুক্ত শাস্তি হয়। সে দাবিতে এখন উত্তাল সিলেট। গতকাল বিকেলে সচেতন জনতার ব্যানারে আকবরকে দ্রুত গ্রেফতার ্ও তার ফাঁসির দাবিতে বন্দর বাজার পুলিশ ফাঁড়ি ঘেরাও করে সচেতন মানুষ। মুর্হুতেই হাজার হাজার মানুষ শরিক হয় এ কর্মসূচীতে। এ সময় আকবরকে গ্রেফতার ও ফাঁসি ফাঁসি চাই শ্লোগানে প্রকম্পতি হয়ে উঠে গোটা এলাকা। এছাড়া একই সময়ে রায়হানের নিজ এলাকায় বিশাল মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করে স্থানীয় জনসাধারণ। সেখানে দ্রুত তাকে গ্রেফতার ও ফাঁসি দাবি জানানো হয়। এছাড়া আজ সকাল ১১টায় নগরীর রেজিস্টারী মাঠে সর্বস্তরের প্রতিবাদী লোকজন জড়ো হ্ওয়ার আহবান জানানো হয়। সেখানে সমবেত হয়ে জেলা প্রশাসক ও পুলিশ কমিশনার বরাবরে স্মারকলিপি প্রদানের ঘোষণা দেয়া হয়।



 

Show all comments
  • Foyej sheikh ১৫ অক্টোবর, ২০২০, ৩:৩৪ এএম says : 0
    Susto bicar cai
    Total Reply(0) Reply
  • Jaker ali ১৫ অক্টোবর, ২০২০, ৩:৩৪ এএম says : 0
    আন্দোলন দুই/ তিন দিন,তারপর সব টান্ডা
    Total Reply(0) Reply
  • Ohab Abdullah ১৫ অক্টোবর, ২০২০, ৩:৩৫ এএম says : 0
    আকবর শুরু প্রদিপ শেষ এই আমাদের বাংলাদেশ
    Total Reply(0) Reply
  • Kader sheikh ১৫ অক্টোবর, ২০২০, ৩:৩৭ এএম says : 0
    এক পুলিশ প্রদিপের কলংক না যেতেই, আরেকে আকবরের সূচনা, বলতে গেলে সহযোগী স্যার এর কাছ থেকে সাহসী সুযোগ নেয়া,আর এসব নিষ্ঠুরতার জন্ম হাজার বার হবে,যতদিন সুবিচার না হবে,আজ জনগণের নিরাপত্তার জায়গায়,জনগণের মৃত্যু দূত হয়ে কাজ করছে কিছু আইনশৃঙ্খলা বাহিনির সদস্য, এদের শুদ্ধি অভিযান করে চাকরী থেকে বরখাস্ত করা উচিৎ।
    Total Reply(0) Reply
  • Yusuf samin ১৫ অক্টোবর, ২০২০, ৩:৩৮ এএম says : 0
    এমন হত্যাকাণ্ড কাম্য নয় নতুন কোন প্রদীপের উত্থান হোক এটাও কোন কাম্য নয় পুলিশ মহোদয়দের কে এখনই ভাবতে হবে সজাগ দৃষ্টি রাখতে হবে সঠিক বিচার ব্যবস্থা ও বলবৎ রাখতে হবে এইটুকু কাম্য আমাদের সাধারন মানুষের
    Total Reply(0) Reply
  • Shohel khan ১৫ অক্টোবর, ২০২০, ৩:৩৯ এএম says : 0
    সময় খেপন করা হচ্ছে দু চার দিন যাক আর একটা নতুন ঘটনা ঘটুক আগের টা মানুষ এমনেই ভূলে যাবে।
    Total Reply(0) Reply
  • Bahar ১৫ অক্টোবর, ২০২০, ৩:৪০ এএম says : 0
    রায়হান আমার ভাগনা রায়হান হত্যার সুষ্ঠু বিচার চাই পুলিশ নামের জানুয়ার ওকে আইনের আওতায় এনে ক্রস ফায়ার দেওয়া হউক রায়হান হত্যার সুষ্ঠু বিচার করতে হবে না হয় এই সিলেটের মানুষ দলবল নির্বিশেষে রায়হান হত্যার সুষ্ঠু বিচার করবে না হয় এই সিলেটের মানুষ দলবল নির্বিশেষে রায়হান হত্যার দায়ে অতি সত্তর আকবর কে গেফতার করতে হবে আমরা সিলেটের মানুষ সবাই এক হয়ে রাস্তা ঘাট বন্ধ করে দিবো মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে জোর দাবি জানাচ্ছি অতি সত্তর ওঁকে গেফতার করে আইনের আওতায় এনে ক্রস ফায়ার দিতে হবে
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: রায়হান


আরও
আরও পড়ুন