Inqilab Logo

ঢাকা সোমবার, ২৬ অক্টোবর ২০২০, ১০ কার্তিক ১৪২৭, ০৮ রবিউল আউয়াল ১৪৪২ হিজরী

ফলন বিপর্যয়ের শঙ্কা

কালাই (জয়পুরহাট) উপজেলা সংবাদদাতা : | প্রকাশের সময় : ১৮ অক্টোবর, ২০২০, ১২:০০ এএম

জয়পুরহাটের কালাই উপজেলার মাঠে মাঠে চলতি আমন মৌসুমে পাতা পোড়া রোগের প্রাদুর্ভাব দেখা দিয়েছে। ফলে ফলন বিপর্যয়ের আশঙ্কায় উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েছেন কৃষক।
ভুক্তভোগীরা জানান, আক্রান্ত ধানক্ষেতে ৫ থেকে ৬ বার কীটনাশক প্রয়োগ করা হয়েছে, কিন্তু কিছুতেই পাতা পোড়া রোগ নিয়ন্ত্রণ করা যাচ্ছে না। ফলে জমির ধানগুলো চিটা হয়ে যাচ্ছে। এতে উৎপাদন কমে যাওয়ার ভয়ে আছেন তারা।
কৃষি বিভাগের দাবি, ক্ষেতে রোগ-পোকা থাকবেই কিন্তু তা নিয়ন্ত্রণে রাখতে হবে। কৃষকদের সচতেন করতে কৃষি বিভাগ নিয়মিত পরামর্শ প্রদান অব্যাহত রেখেছে। পৌর এলাকার থুপসাড়া মহল্লার কৃষক আব্দুর রউফ সরকার, রফিকুল, তফিকুল ও ইউসুফ জানান, তাদের প্রত্যেকের দেড় থেকে আড়াই বিঘা কাটারি জাতের আমন ধানক্ষেতে পাতা পোড়া রোগ দেখা দিয়েছে। ইতোমধ্যে ৫-৬ বার ওষুধ প্রয়োগ করেও রোগ নিয়ন্ত্রণে না আসাতে তারা হতাশায় ভুগছেন।
উপজেলার দক্ষিণ ভাবকী গ্রামের কৃষক ফজলু জানান, তার ২ বিঘা কাটারি এবং ১০ শতক সুগন্ধি পাতা পোড়া রোগে আক্রান্ত হয়েছে। বারবার ওষুধ ছিটিয়েও আমন ধানের এ পাতা পোড়া রোগ নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব হচ্ছে না।
উপজেলার ভূগোইল গ্রামের কৃষক বেলাল সরকার জানান, তিনি ৬৫ শতক জমিতে কৃষি বিভাগের প্রণোদনা বীজ ব্রি ধান-৭৫ চাষ করেছেন যা, পাতা পোড়া রোগে আক্রান্ত হয়েছে। ওষুধ প্রয়োগে কাজ হচ্ছে না।
উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা আসাদুজ্জামান জানান, এবারে উপজেলার ১৩ হাজার ১০ হেক্টর জমিতে ব্রি-ধান ৪৯, বীনা ধান-৭ এবং ১৭, ধানী গোল্ড, কাটারি, স্থানীয় জাতের সুগন্ধি, মামুন, স্বর্ণা ও ফাতেমা ধান চাষ করেছেন কৃষক। উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ নীলিমা জাহান জানান, পাতা পোড়াসহ অন্যান্য রোগ নিয়ন্ত্রণে রাখার জন্য তারা কৃষকদের নিয়মিত পরামর্শ প্রদান অব্যাহত রেখেছেন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ফলন-বিপর্যয়-শঙ্কা

১৮ অক্টোবর, ২০২০
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ