Inqilab Logo

ঢাকা সোমবার, ২৬ অক্টোবর ২০২০, ১০ কার্তিক ১৪২৭, ০৮ রবিউল আউয়াল ১৪৪২ হিজরী

আজারবাইজান এবার আর্মেনিয়ান যুদ্ধবিমান ভূপাতিত করলো

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৮ অক্টোবর, ২০২০, ৮:৫৬ এএম

যুদ্ধের তীব্রতা দিন দিন বাড়ছে। আর্মেনিয়ান যুদ্ধ ক্ষেত্রে পরাজিত হয়ে আজারবাইজানের বেসামরিক এলাকায় চোরাগুপ্তা বিমান হামলা চালাচ্ছে। এতে অনেক বেসামরিক মানুষ নিহত ও আহত হয়েছে। সেই রকম একটি হামলার সময় আজারবাইজানের সেনাবাহিনী গুলি করে আর্মেনিয়ান সুখোই-২৫ যুদ্ধবিমান ভূপাতিত করেছে বলে জানিয়েছে দেশটির প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়।

শনিবার এক বিবৃতিতে বাকু জানায়, স্থানীয় সময় সকাল ১১টা ১১ মিনিটে জাবরাইল শহরের কাছে যুদ্ধবিমানটি আজারবাইজানের সেনাদের আক্রমণের চেষ্টা করেছিল। এসময় আজারবাইজানের বাহিনী গুলি করে ভূপাতিত করে।

এর আগের রাতে আর্মেনিয়া আজারবাইজানের দ্বিতীয় বৃহত্তম শহর গ্যাঞ্জায় ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালায়। এতে ১৩ জন বেসামরিক নাগরিক নিহত ও ৪০ জনেরও বেশি আহত হয়।

এছাড়া আজারবাইজান সেনাবাহিনী আর্মেনিয়ার দখল থেকে খোজাভান্দ জেলার আরো তিনটি এলাকা মুক্ত করেছে বলে শুক্রবার জানিয়েছেন রাষ্ট্রপতি ইলহাম আলিয়েভ।

ইলহাম আলিয়েভ টুইটারে বলেছেন, “আজারবাইজানের গৌরবময় সেনাবাহিনী খোজাভান্দ জেলার খিরমানজিগ, আগবুলাগ এবং আখুল্লু গ্রামকে মুক্ত করেছে।

আজারবাইজানের সেনাবাহিনী দীর্ঘজীবী হোক! কারাবাখ আজারবাইজানের!”

এর আগে বৃহস্পতিবার আজারবাইজানের সেনাবাহিনী ফুজুলি জেলার আরিশ গ্রাম, জব্রাইল জেলার দোশুলু গ্রাম এছাড়াও খোজাভান্দ জেলার এদিশে, দুদুকটি, এদিলে, চিরাগুচ গ্রামগুলো আর্মেনিয়ান দখল থেকে মুক্ত করে।

আর্মেনিয়ার ক্ষেপণাস্ত্রের আঘাতে আজারবাইজানের অন্তত ১২ জন বেসামরিক নাগরিক নিহত হয়েছেন। শনিবার আজারবাইজানের প্রসিকিউটর জেনারেলের কার্যালয় এই তথ্য জানিয়েছে। গ্যাঞ্জা শহরে আহত হয়েছেন আরো অন্তত ৪০ জন।

আজারবাইজান জানিয়েছে, শনিবার দেশটির দ্বিতীয় বৃহত্তম শহর গ্যাঞ্জাতে আর্মেনিয়ার সেনাবাহিনীর ছোড়া ক্ষেপণাস্ত্র একটি অ্যাপার্টমেন্ট ভবনে আঘাত হেনেছে।

আজারবাইজানের প্রেসিডেন্ট ইলহাম আলিয়েভের এক সহকারী হিকমত হাজিয়েভ টুইটারে জানিয়েছে, প্রাথমিক তথ্য অনুসারে ২০টির বেশ বাড়ি ধ্বংস হয়েছে।

সূত্র : ডেইলি সাবাহ



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: আর্মেনিয়া-আজারবাইজান


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ