Inqilab Logo

ঢাকা বুধবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২০, ১৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ১৬ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরী

ইন্দুরকানীতে চালের পোকা মারার ঔষধ খেয়ে গৃহবধূর মৃত্যু

ইন্দুরকানী (পিরোজপুর) সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ১৮ অক্টোবর, ২০২০, ৩:০১ পিএম

ইন্দুরকানীতে চালের পোকা মারার ওষুধ খেয়ে শেফালী রানী (৪৫) নামের এক গৃহবধূ মৃত্যু । শেফালী রানী উপজেলার পত্তাশী ইউনিয়নের রামচন্দ্রপুর গ্রামের রাজ মিস্ত্রী শংকর কুমার শীলের স্ত্রী । শেফালীর বড় মেয়ে কলেজ পড়–য়া শান্তি রানী জানান, শনিবার দুপুরে চালের পোকা নিধনের ওষুধ খায় আমার মা। এরপরে অসুস্থ হয়ে পড়লে আমরা বিকালে পিরোজপুর জেলা হাসপাতালে নিয়ে যাই। চিকিৎসা অবস্থায় রবিবার সকাল ৮ টার দিকে আমার মা মারা যান।
স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, একই গ্রামের খোকা হাওলাদারের ছেলে দুলাল হাওলাদারের সাথে দীর্ঘ দিন ধরে শেফালী রানীর পরকিয়ার সম্পর্ক ছিলো। শেফালী বিভিন্ন সময় অনেক এনজিও থেকে দুলালকে ঋণ নিয়ে টাকা তুলে দিতেন। গত কয়েক দিন ধরে শেফালীর সাথে দুলালের ঋণের টাকা নিয়ে মনমালিন্য চলছিলো। দুলাল শেফালীকে টাকা না দিয়ে বাজে ব্যবহার করেন। তাই দুলালের সাথে অভিমান করে শেফালী কিটনাশক খায়। পরে তিনি অসুস্থ হলে দুলালই তাকে হাসপাতালে নিয়ে যায়। এবং সেখানে তিনি মারা যান।
স্থানীয় পল্লী চিকিৎসক বিধু ভূষন মন্ডল জানান,শনিবার বিকালে শেফালী রানী অসুস্থ হলে আমাকে তাদের বাড়িতে ডেকে নেন। এসময় শেফালী চালের পোকা মারা ওষুধ খেয়েছেন বলে আমাকে জানান। কেন খেয়েছে জানতে চাইলে শেফালী বলেছিলেন কেউ একজন তাকে গালি দিয়েছেন।’
শেফালী রানীর ছোট মেয়ে সাথী রানী জানান, আমার বাবা শংকর কুমার দীর্ঘ দিন ধরে মঠবাড়িয়া উপজেলায় আমার নানা বাড়িতে থেকে রাজমিস্ত্রীর কাজ করেন। তিনি নিয়মিত বাড়িতে থাকেন না। দুলালের আমাদের বাড়িতে নিয়মিত যাতায়াত ছিলো।
বিভিন্ন ভাবে অনেকবার চেষ্টা করার পরেও দুলালের সাথে কথা বলতে পারেনি এ প্রতিবেদক।
ইন্দুরকানী থানার ওসি মোঃ হুমায়ুন কবির জানান, পিরোজপুর জেলা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শেফালী রানী মারা গিয়েছেন। তাদের পক্ষ থেকে এখন পর্যন্ত আমাদের কাছে কেউ কোন অভিযোগ করেননি। অভিযোগের ভিত্তিতে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: আত্মহত্যা

২ ডিসেম্বর, ২০২০
২৫ নভেম্বর, ২০২০

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ