Inqilab Logo

ঢাকা শনিবার, ০৫ ডিসেম্বর ২০২০, ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ১৯ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরী

সাতক্ষীরায় আওয়ামী লীগের অভ্যন্তরীণ দ্বন্দ্বে বর্ধিত সভা পণ্ড

সাতক্ষীরা জেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ১৮ অক্টোবর, ২০২০, ৫:০৮ পিএম

সাতক্ষীরায় আওয়ামীলীগের অভ্যন্তরীণ দ্বন্দ্বে পণ্ড হয়েছে বর্ধিত সভা। রোববার (১৮ অক্টোবর) সকালে জেলা শিল্পকলা একাডেমি মিলনায়তনে সাতক্ষীরা সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের একাংশ এই বর্ধিত সভা আহবান করে।
এঘটনায় একে অপরকে দায়ী করে পাল্টা-পাল্টি প্রেস ব্রিফিং করেছে।
সদর উপজেলা আওয়ামীলীগের এক পক্ষ জানিয়েছেন, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ কেন্দ্রীয় নির্দেশনা অমান্য করে বিতর্কিত গঠনতন্ত্র বর্হিভূত সাতক্ষীরা সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভা আহবান করায় তারা এর বিরোধীতা করেছে। তারা বলেন, কেন্দ্রীয় কমিটি বিগত সম্মেলনে ১৫ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি ঘোষণা করে। এই কমিটির সাধারণ সম্পাদক ও ২নং সহ-সভাপতি অন্য ১৩ জন সদস্যকে না জানিয়ে জামায়াত সমর্থিতদের নিয়ে সদর উপজেলা আওয়ামী লীগে অর্ন্তভূক্ত করে। এবং মোটা অংকের আর্থিক লেন দেনে জেলা আওয়ামীলীগের শীর্ষ দুই নেতা যোগ্যপ্রাপ্ত বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ শহিদুল ইসলামকে সভাপতি না করে বির্তকিত জামায়াত সমর্থিত ব্যক্তিকে সদর উপজেলা আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি বানিয়েছেন।
তারা আরো বলেন, বর্তমান ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আব্দুর রশিদ দলীয় নৌকা প্রতিকের বিরোধীতাকারী, অযোগ্য ব্যক্তি। তাকে ভারপ্রাপ্ত সভাপতি করায় সদর উপজেলা আওয়ামী লীগে বিরোধ প্রকাশ্য রুপ নেয়। বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির নিকট এবিষয়ে সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের উর্দ্ধতন সহ-সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. শহিদুল ইসলাম লিখিত অভিযোগ দিলে কেন্দ্রীয় কমিটি সাতক্ষীরা জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মুনসুর আহমেদকে ফোনের মাধ্যমে বলেন, যাচাই বাছাই না করা পর্যন্ত বিতর্কিত সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের কমিটির সকল কার্যক্রম বন্ধ রাখতে। এই নির্দেশনা উপেক্ষা করে কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের নির্দেশনা অমান্য করে বর্ধিত সভা ডাকায় সদর উপজেলা আওয়ামী লীগ ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ ও সদস্যরা বর্ধিত সভা বয়কটের ঘোষণা দেন।
এদিকে, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি শেখ আব্দুর রশীদ ও মো শাহজাহান আলী স্বাক্ষরিত এক বিবৃতিতে জানানো হয়েছে, রোববার বেলা সাড়ে ১০ টায় জেলা শিল্পকলা একাডেমীতে সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের পূর্ব নির্ধারিত বর্ধিত সভা হওয়ার কথা ছিল সেখানে আওয়ামী লীগ নেতা হাবিবুর রহমান হবি, শওকাত আলী গোলাম মোর্শেদ গণেশ চন্দ্র মন্ডল, ইউসুফ আলী, তাজুল ইসলাম, মাস্টার মফিজুল ইসলামের নেতৃত্বে কিছু লোকজন হঠাৎ সেখানে গিয়ে সভার ব্যনার ছিড়ে ফেলে এতে নেতা কর্মীরা স্তম্ভিত হয়ে পড়ে। সেখানে তারা সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো শাহজাহান আলীকে শারীরিকভাবে লাঞ্চিত করে। এঘটনার সুষ্ঠু বিচার দাবী করেন তারা। একইসাথে থাদের বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেয়ার দাবী জানান।
সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের উর্দ্ধতন সহ-সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. শহিদুল ইসলাম জানান, জামায়াত সমর্থিতদের নিয়ে পূর্নাঙ্গ কমিটি ঘোষনা করা হয়েছে। যা দলীয় ত্যাগী নেতা কর্র্মীরা কখনো মেনে নেবে না। এ কারণে বর্ধিত সভা না করতে তাদেরকে অনুরোধ করা হয়েছিলো। সেখানে নেতাকর্মীদের মধ্যে সামান্য কথাকাটাকাটি হয়েছে। কাউকে শারীরিকভাবে লাঞ্চিত বা ব্যানার ছিঁড়ে ফেলার ঘটনা ঘটেনি।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন