Inqilab Logo

ঢাকা বুধবার, ২৫ নভেম্বর ২০২০, ১০ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ০৯ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরী

রাজধানীতে পৃথক ঘটনায় নিহত ৩

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৯ অক্টোবর, ২০২০, ১২:০০ এএম

রাজধানীতে পৃথক ঘটনায় নারীসহ তিনজন নিহত হয়েছেন। গতকাল কমলাপুর, হাজারীবাগ ও বনানী এলাকা থেকে তাদের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।
পুলিশ জানায়, গতকাল কমলাপুর হোটেল ইনসাফের ৪র্থ তলার ২২৭ নম্বর কক্ষ থেকে ইয়াসমিন আক্তার সোমা (৩২) নামের এক নারীর লাশ উদ্ধার করা হয়। তার গলায় ওড়না পেঁচানো ছিল। গলায় কালো দাগ ছিল। পরে ময়নাতদন্তের জন্য ঢাকা মেডিক্যালে পাঠানো হয়। রিপোর্ট পাওয়ার পর মৃত্যুর কারণ জানা যাবে।

তবে নিহতের বোন নাসরিন বেগম ও ভাই আলাউদ্দিন ফরাজি জানান, ইয়াসমিন আক্তার সোমার স্বামীর নাম আবুল কালাম। তাদের সাফায়েত (১০) নামে এক সন্তান রয়েছে। তারা নারিন্দা থাকতো। ৬/৭ মাস আগে আবুল কালামের সঙ্গে বাসার গৃহকর্মীর অনৈতিক সম্পর্ক দেখে ফেলে সোমা। এ নিয়ে তাদের মধ্যে তিক্ততা সৃষ্টি হয়। পরে স্বামী তার সন্তানকে নিয়ে অন্যত্র চলে যায়। এ ঘটনার বেশ কয়েকদিন পর সোমা সাভারে বোন নাসরিনের বাসায় গিয়ে উঠেন। মাঝে মধ্যে ঢাকা আসতো। তারা বলেন, গত শুক্রবার সকালে কাপড় আনার কথা বলে সাভার থেকে ঢাকায় আসেন। সন্ধ্যার পর থেকে তার মোবাইল বন্ধ পাওয়া যায়। তাকে আর পাওয়া যায়নি।

মতিঝিল থানার এসআই আব্দুল জলিল বলেন, আবুল কালাম তার ছেলেকে নিয়ে গত ১৩ অক্টোবর ওই হোটেলের ২৩৪ নম্বর কক্ষে উঠেন। হোটেল কর্তৃপক্ষকে জানান, তার স্ত্রী রাগ করে কোথায় যেন চলে গেছে। তাকে খুঁজতে এসেছেন তারা। পরবর্তীতে স্ত্রীর খোঁজ পেয়েছে বলে রুম চেঞ্জ করে ২২৭ নম্বর রুমে উঠেন। পরে স্ত্রী সোমা এলে কোনও এক সময় স্বামী তার সন্তানকে নিয়ে পালিয়ে যায়। গত শনিবার রাতে হোটেল বয় তাদের রুম পরিষ্কারের জন্য গিয়ে দেখে মেয়েটি নিচে পড়ে আছে। বিষয়টি কর্তৃপক্ষকে জানালে তারা পুলিশকে অবহিত করে।
এদিকে, একই দিন হাজারীবাগের বউবাজার এলাকার একটি বাসা থেকে সীমা খাতুন (৩০) নামে এক গৃহবধূর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। পুলিশ ধারণা, ওই নারীকে বালিশ চাপা দিয়ে শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়েছে।

হাজারীবাগ থানার এসআই মো. সাইফুল ইসলাম জানান, গত শনিবার দিনগত রাতে হাজারীবাগের বউবাজার রানা বেকারি গলির ৫৩/৩ এর নম্বর দোতলা থেকে ওই নারীর লাশ উদ্ধার করা হয়। তার নাক দিয়ে হালকা রক্ত ও মুখে ফ্যানা দেখা গেছে। সীমার বুক-পেটে ও পিঠে চামড়ায় ছোপ ছোপ রক্ত জমাট বাধা, দুই হাতের আঙুলে ও নখে কালচে দাগ আছে।

তিনি আরো জানান, স্বামী ও এক ছেলে ও দুই মেয়ে নিয়ে ১৫ দিন আগে ওই বাসায় ভাড়া উঠেন ওই নারী। তার স্বামী একজন রিকশাচালক। ঘটনার পর থেকে স্বামী ও সন্তান কাউকেই ওই বাসায় পাওয়া যায়নি। বাসায় কোনো মালামালও পাওয়া যায়নি। তার স্বামীর নাম বাশিউর রহমান।

তিনি বলেন, প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে ওই নারী স্বামী তাকে বালিশ চাপা দিয়ে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে সন্তানদের নিয়ে পালিয়ে গেছেন। লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়। ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন পেলে তার মৃত্যুর কারণ নিশ্চিত হওয়া যাবে বলে জানান ওই এসআই। এদিকে, গত শনিবার রাতে বনানী সৈনিক ক্লাব সংলগ্ন রেল গেটে ট্রেনে কাঁটা পড়ে অজ্ঞাতনামা (৪০) এক ব্যক্তি নিহত হয়েছে। গতকাল সন্ধ্যা পর্যন্ত নিহতের নাম পরিচয় জানা যায়নি। নিহতের পরনে সাদা চেক ফুল শার্ট ও লুঙি ছিল বলে জানায় পুলিশ।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: নিহত-৩

১৪ সেপ্টেম্বর, ২০২০

আরও
আরও পড়ুন