Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৩ আশ্বিন ১৪২৫, ৭ মুহাররাম ১৪৪০ হিজরী‌

আইএস সন্দেহে মালয়েশিয়ায় গ্রেপ্তার ৯

প্রকাশের সময় : ১৫ আগস্ট, ২০১৬, ১২:০০ এএম

ইনকিলাব ডেস্ক : মালয়েশীয় পুলিশ জানিয়েছে, ইসলামিক স্টেট (আইএস) সদস্য সন্দেহে নয়জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এদের মধ্যে জুনে কুয়ালালামপুরের একটি বারে চালানো গ্রেনেড হামলার সঙ্গে জড়িত দুই সন্দেহভাজনও রয়েছেন বলে গত শনিবার জানিয়েছেন দেশটির পুলিশ প্রধান। প্রসঙ্গত, ২৮ জুন কুয়ালালামপুরের পুচং এলাকার বারে চালানো ওই হামলার দায় স্বীকার করেছিল আইএস। সিরিয়ায় থাকা মালয়েশীয় আইএস সদস্য মুহাম্মদ ওয়ান্ডি মুহাম্মদ জেডি নিজের ফেইসবুক পাতায় এ কথা জানিয়েছিলেন। ওই গ্রেনেড হামলায় আটজন আহত হন। ওয়ান্ডির দাবি সত্য হলে গ্রেনেড হামলাটি মালয়েশিয়ার মাটিতে চালানো আইএসের প্রথম হামলা বলে গণ্য হবে। এক বিবৃতিতে পুলিশ মহাপরিদর্শক খালিদ আবু বকর জানান, এছাড়া কুয়ালালামপুর থেকে সামরিক বাহিনীর সাবেক সদস্য তিন বিদেশিকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। এরা জাল পাসপোর্ট-ভিসা ব্যবহার করে মালয়েশিয়াকে ট্রানজিট দেশ হিসেবে ব্যবহার করে মধ্যপ্রাচ্যের একটি দেশে হামলার পরিকল্পনা করেছিলেন বলে জানিয়েছেন খালিদ। জানুয়ারিতে প্রতিবেশী ইন্দোনেশিয়ার রাজধানী জাকার্তায় আইএসের সঙ্গে সম্পর্কিত জঙ্গিরা একটি সশস্ত্র হামলা চালানোর পর থেকে মালয়েশিয়া উচ্চ সতর্কাবস্থায় রয়েছে। গেল সপ্তাহে দেশটির পুলিশ জানিয়েছে, জঙ্গি কার্যক্রমের সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে ২০১৩ সাল থেকে এ পর্যন্ত তারা ২৩০ ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করেছে, যাদের ৩০ জন বিদেশি নাগরিক। খবরে বলা হয়, উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় কেলানটান রাজ্য থেকে গ্রেনেড হামলায় জড়িত ওই দুই সন্দেহভাজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। আরো হামলা চালানোর জন্য প্রস্তুত ওই দুজন ওয়ান্ডির পরবর্তী নির্দেশনার অপেক্ষায় ছিলেন বলে জানিয়েছেন খালিদ। তিনি বলেন, তাদের গ্রেপ্তারের পর ঘটনাস্থল থেকে বেশকিছু গ্রেনেড জব্দ করেছে পুলিশ। এগুলো পরবর্তী হামলায় ব্যবহার করা হতো বলে ধারণা করছি আমরা। সন্দেহভাজনদের লুকিয়ে রাখার জন্য আরো দু’জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন তিনি। এছাড়া পুলিশ আইএসের অপর এক সন্দেহভাজন সদস্যকেও গ্রেপ্তার করেছে। এই ব্যক্তির মোবাইল ফোনে ওয়ান্ডির পাঠানো নির্দেশ পাওয়া গেছে বলে জানিয়েছেন তারা। ওই ব্যক্তি কুয়ালালামপুরের পুলিশ সদরদপ্তর ও মালয়েশিয়ার প্রশাসনিক রাজধানী পুত্রাজায়ার সরকারি ভবনগুলোতে হামলার হুমকি দিয়েছিলেন বলে জানিয়েছেন খালিদ। গ্রেপ্তারকৃতক অন্যদের মধ্যে বোর্নিও দ্বীপের সাবাহ রাজ্য থেকে গ্রেপ্তার করা ১৭ বছর বয়সী এক কিশোরও রয়েছেন। এই কিশোর সিরিয়ায় থাকা আইএসের অন্যান্য মালয়েশীয় সদস্যদের সঙ্গে যোগাযোগ করে অমুসলিমদের ওপর একক হামলা পরিচালনার পরিকল্পনা করছিলেন বলে ধারণা করা হচ্ছে। বিবিসি, রয়টার্স।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ