Inqilab Logo

ঢাকা শনিবার, ০৫ ডিসেম্বর ২০২০, ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ১৯ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরী

উ. কোরিয়ার বিচার ব্যবস্থায় মানুষের সঙ্গে আচরণ ‘পশুর চেয়েও খারাপ’: হিউম্যান রাইটস ওয়াচ

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৯ অক্টোবর, ২০২০, ৯:২১ পিএম

উত্তর কোরিয়ার বিচার ব্যবস্থায় মানুষের সঙ্গে আচরণকে ‘পশুর চেয়েও খারাপ’ বলে অভিহিত করেছে আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংগঠন হিউম্যান রাইটস ওয়াচ।মানবাধিকার সংস্থা হিউম্যান রাইটস ওয়াচ উত্তর কোরিয়া প্রশাসনের সাবেক কর্মকর্তা ও আটককৃত সাবেক বন্দীদের সাক্ষাৎকার নেয়। সাক্ষাৎকার প্রদানকারীরা বলেছেন, তারা মারধর, শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন এবং ধর্ষণ ও যৌন নিপীড়নের শিকার হয়েছেন। সাবেক বন্দিরা বলেন, তাদের দিনে ১৬ থেকে ১৮ ঘণ্টা পর্যন্ত হাঁটু গেড়ে বসে থাকতে বাধ্য করা হতো। -সিএনএন
তারা বলেন, বসে থাকা অবস্থায় তার পিঠে ও পায়ে ক্রমাগত প্রহার করা হত। সাবেক বন্দী পার্ক জি চিওল বলেন, প্রহরীরা আমাদের হাত সেলের রডের সাথে বেঁধে আমাদের শরীরের নিচের অংশে তাদের বুট দিয়ে আঘাত করত। সাবেক এক পুলিশ কর্মকর্তা বলেন, আইনে না মারার কথা থাকলেও তদন্ত ও স্বীকারোক্তি আদায়কালে বন্দিদের মারধর করতে হতো। নারী বন্দীরা জানান, বন্দি অবস্থায় তারা যৌন সহিংসতার শিকার হয়েছেন। ২০১৫ সালে উত্তর কোরিয়া থেকে পালিয়ে আসা ৫০ বছর বয়সী কিম সান ইয়ং বলেন, তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করার জন্য একটি ঘরে বন্দি করে ধর্ষণ করেছিল উত্তর কোরিয়ার পুলিশ প্রশাসনের একজন কর্মকর্তা।

হিউম্যান রাইটস ওয়াচ উত্তর কোরিয়া প্রশাসনকে বন্দীদের এবং কর্মকর্তাদের ওপর নির্যাতন, অপমান ও জোরপূর্বক স্বীকারোক্তি গ্রহণ বন্ধ করে সঠিক বিচারিক ও আইনী প্রক্রিয়া প্রয়োগের আহ্বান জানিয়েছে। জাতিসংঘও উত্তর কোরিয়ার বিরুদ্ধে ব্যাপকভাবে মানবাধিকার লঙ্ঘন ও বিচার বহির্ভূত হত্যাকাণ্ডের অভিযোগ করেছে। দক্ষিণ কোরিয়া ও যুক্তরাষ্ট্রসহ জাতিসংঘের অন্যান্য সদস্য দেশগুলি উত্তর কোরিয়াকে বন্দীদের ওপর অমানবিক নির্যাতন বন্ধের আহ্বান জানিয়েছে। এদিকে পিয়ংইয়ং বলছে, পশ্চিমা বিশ্বের অন্য দেশগুলোর জন্য মানবাধিকারের মানদণ্ড নির্ধারণের কোনো অধিকার নেই।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন