Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার, ২০ অক্টোবর ২০১৯, ০৪ কার্তিক ১৪২৬, ২০ সফর ১৪৪১ হিজরী

রুশ বিমান হামলার জের : তুরস্ক সীমান্তের দিকে ছুটছে আরো ১ লাখ সিরীয় শরণার্থী

সিরিয়ায় তুর্কি হস্তক্ষেপের সম্ভাবনা নিয়ে অপপ্রচার চালাচ্ছে রাশিয়া : দাভুতগলু

প্রকাশের সময় : ৬ ফেব্রুয়ারি, ২০১৬, ১২:০০ এএম

ইনকিলাব ডেস্ক : আলেপ্পোতে রক্তক্ষয়ী যুদ্ধ থেকে প্রাণ বাঁচাতে প্রায় ১ লাখ সিরীয় শরণার্থী তুরস্ক সীমান্তের দিকে রওনা দিয়েছেন বলে স্বেচ্ছাসেবীদের বরাত দিয়ে সংবাদ মাধ্যমগুলো জানিয়েছে। তুর্কি প্রধানমন্ত্রী আহমেত দাভুতগলু বলেছেন, প্রায় ৭০ হাজার সিরীয় তুরস্কের দিকে আসছে, অন্যদিকে পর্যবেক্ষণকারীরা বলছেন এ সংখ্যা প্রায় ৪০ হাজার হতে পারে। রাশিয়ান বিমান হামলা আসাদ সরকারের সেনাবাহিনীকে সিরিয়ার সবচেয়ে বড় শহর আলেপ্পো পুনর্দখল করতে সহযোগিতা করছে। এ কারণে প্রাণ বাঁচাতে সিরিয়রা তুরস্কের দিকে যাত্রা শুরু করেছে। তুরস্ক সিরিয়ায় অভিযান চালাবে কি না এমন প্রশ্নের জবাবে প্রধানমন্ত্রীর দপ্তরের একটি সূত্র জানিয়েছে, তুর্কি বাহিনী এই মুহূর্তে সিরিয়ায় অভিযান চালানোর জন্য প্রস্তুত নয়। সিরিয়ায় রাশিয়ার চালানো ধ্বংসযজ্ঞ থেকে বিশ্বের দৃষ্টি অন্যদিকে সরানোর জন্য রাশিয়া এসব অপপ্রচার করছে। সূত্র আরো বলেন, ইতিমধ্যেই আক্রান্ত দেশ সিরিয়ায় রুশ বাহিনীর অপরাধ থেকে দৃষ্টি সরানোর জন্য রাশিয়া অপকৌশলের আশ্রয় নিচ্ছে। নিজের ভূখ- রক্ষার জন্য যে কোনো পদক্ষেপ নেয়ার অধিকার আছে তুরস্কের। এদিকে রাশিয়া অভিযোগ করেছে, তুরস্ক সিরিয়াতে সামরিক অভিযান চালাতে যাচ্ছে। একজন সউদি সামরিক মুখপাত্র, তার দেশ সিরিয়াতে আইএসের বিরুদ্ধে অভিযান চালাতে স্থল বাহিনী পাঠাতে প্রস্তুত বলে গত বৃহস্পতিবার বলেছেন। মার্কিন নেতত্বাধীন জোট বাহিনীর নেওয়া যেকোন সিদ্ধান্তে সমর্থন থাকবে বলে জানিয়েছেন ব্রিগেডিয়ার জেনারেল আহমেদ বিন হাসান আল আসিরি।
অপর এক খবরে বলা হয়, রাশিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র ইগর কোনাশিনকোভ বলেছেন, তুরস্ক সিরিয়ায় সামরিক অভিযান চালানোর প্রস্তুতি নিচ্ছে। গত বৃহস্পতিবার তিনি বলেন, ক্রমবর্ধমান নানা লক্ষণ থেকে বোঝা যাচ্ছে তুর্কি সেনারা সিরিয়ায় হামলা চালানোর জন্য গোপনে প্রস্তুতি নিচ্ছে। এদিকে, রুশ পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র মারিয়া জাখারোভাও বলেছেন, সিরিয়া-সীমান্তে তুর্কি সেনা তৎপরতা জোরদারের জন্যই আঙ্কারা এই ভিত্তিহীন অভিযোগ তুলেছে যে রুশ জঙ্গি বিমানগুলো তুরস্কের আকাশ-সীমা লঙ্ঘন করেছে। রাশিয়ার কোনো একটি বিমানও তুর্কি আকাশাসীমা অতিক্রম করেনি বলে তিনি জোর দিয়ে উল্লেখ করেন। মস্কো এ ধরনের ভিত্তিহীন অভিযোগের জবাবে বার বার প্রমাণ চাইলেও তুর্কি সরকার কোনো প্রমাণ দেখাতে ব্যর্থ হয়েছে বলে রুশ পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র মন্তব্য করেন। উল্লেখ্য, গত ৩০ জানুয়ারি তুর্কি পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এ অভিযোগ করে যে, রাডারের মাধ্যমে বার বার হুঁশিয়ারি দেয়া সত্ত্বেও রাশিয়ার একটি সুখো-৩৪ মডেলের জঙ্গি বিমান তুর্কি আকাশ-সীমা লঙ্ঘন করেছে। এ ঘটনার পর আঙ্কারা রুশ রাষ্ট্রদূতকে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে ডেকে কঠোর প্রতিবাদ ও নিন্দা জানায়। তুর্কি আকাশসীমা লঙ্ঘনের ঘটনা কোথায় ঘটেছিল সে সম্পর্কে বিস্তারিত কিছু জানা যায়নি। বিবিসি, সিএনএন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন