Inqilab Logo

ঢাকা সোমবার, ৩০ নভেম্বর ২০২০, ১৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ১৪ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরী

ফারুক আবদুল্লাহকে ফের জিজ্ঞাসাবাদ

কাশ্মীরের মর্যাদা পুনঃপ্রতিষ্ঠার দাবির জের!

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২০ অক্টোবর, ২০২০, ১২:০০ এএম

জম্মু-কাশ্মীরের ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশানে আর্থিক দুর্নীতি মামলায় ন্যাশনাল কনফারেন্স নেতা ফারুক আবদুল্লাহকে ফের জিজ্ঞাসাবাদ করল এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট। গতকাল সকালে তাকে জেরা করে ইডির আধিকারিকরা। কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা ফেরানোর আন্দোলনের ডাক দিয়েছেন ফারুক। আর তাই তাকে ভয় দেখাতে কেন্দ্র সরকার ইডিকে ব্যবহার করছে বলে অভিযোগ করেছে দলের নেতা-কর্মীরা।
২০০২ থেকে ২০১১ সাল পর্যন্ত কাশ্মীর ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশানে দুর্নীতি হয়েছে বলে অভিযোগ ওঠে। সেই সময় ৪৩ কোটি ৬৯ লাখ টাকা তসরুফের অভিযোগ রয়েছে। সেই অভিযোগের তদন্ত করছে সিবিআই। দুর্নীতির অভিযোগে ফারুক আবদুল্লাহ-সহ মোট চারজনের বিরুদ্ধে চার্জশিটও ফাইল করেছে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা। স্বাভাবিকভাবেই আর্থিক দুর্নীতির অভিযোগ হওয়ায় তদন্ত করছে এনফোরসমেন্ট ডিরেক্টরেটও। সেই সূত্রেই এদিন বর্ষীয়ান নেতাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয় বলে ইডির তরফে দাবি করা হয়েছে। ২০১৯-এর ৫ আগস্ট অর্থাৎ গৃহবন্দী হওয়ার আগেও তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করেছিল ইডি।
এদিকে এ জিজ্ঞাসাবাদকে রাজনৈতিক প্রতিহিংসা বলে কটাক্ষ করেছে ন্যাশনাল কনফারেন্স নেতৃত্ব। তাদের কথায়, কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা ফেরাতে আমরা আন্দেলনে নেমেছি। গুপকার ডিক্লারেশন মেনে পিপলস অ্যালায়েন্স করেছি। এরপরই চিঠি পাঠায় ইডি। তাদের আরও অভিযোগ, ‘কেন্দ্রে ক্ষমতাসীন বিজেপি রাজনৈতিকভাবে মোকাবিলা করতে না পেরে কেন্দ্রীয় সংস্থাগুলিকে কাজে লাগাচ্ছে’।
২০১৯-এর ৫ আগস্ট জম্মু-কাশ্মীরের ইতিহাসের এক গুরুত্বপূর্ণ দিন। ওই রাজ্যের বিশেষ মর্যাদা তুলে জম্মু-কাশ্মীর ও লাদাখ - দুটি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে ভাগ করে দেয়ার আইন পাশ হয় সংসদে। রাজ্যবাসীর সুরক্ষার স্বার্থ দেখিয়ে প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী ফারুক আবদুল্লাহ, ওমর আবদুল্লাহ, মেহবুবা মুফতিকে প্রথমে গৃহবন্দি, পরে আটক করে বন্দি শিবিরে রাখা হয়েছিল। বর্ষীয়ান ফারুক আবদুল্লাহ অবশ্য গৃহবন্দিই ছিলেন। সকলে মুক্তি পাওয়ার পর ফারুক আবদুল্লাহর নেতৃত্বে রাজ্যের সবক’টি মূল স্রোতের রাজনৈতিক দলের মধ্যে বৈঠকে একজোট হওয়ার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। এবার থেকে পিডিপি-এনসি-পিসি সবাই লড়বেন ৩৭০ ধারা ফেরানোর দাবিতে। এরপরই ইডি চিঠি পাঠানোয় এর পেছনে রাজনৈতিক ষড়যন্ত্র দেখছে রাজনৈতিক মহল। সূত্র : ভারতীয় মিডিয়া।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: কাশ্মীর

১ নভেম্বর, ২০২০

আরও
আরও পড়ুন