Inqilab Logo

ঢাকা শুক্রবার, ২৭ নভেম্বর ২০২০, ১২ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ১১ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরী
শিরোনাম

ইফায় নিয়োগ বাণিজ্যের জন্য আউটসোর্সিংয়ে নিয়োগের অপচেষ্টা

মানববন্ধনে ইসলামিক ফাউন্ডেশন কর্মচারী কল্যাণ সমিতি

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২০ অক্টোবর, ২০২০, ৬:৫৫ পিএম

প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা উপেক্ষা করে নিয়োগ বাণিজ্য করার জন্য আউটসোর্সিং প্রক্রিয়ায় নিয়োগ দেয়ার অপচেষ্টা চালানো হচ্ছে। অথচ গুরুত্বপূর্ণ দপ্তরে আউটসোর্সিং প্রক্রিয়ার নিয়োগ বন্ধের জন্য প্রক্রিয়া চলমান। অনতিবিলম্বে প্রধানমন্ত্রীর সানুগ্রাহ নির্দেশনা মোতাবেক দীর্ঘদিনের বঞ্চিত কর্মচারিদের বকেয়া বেতন চালু ও রাজস্ব খাতে নিয়োগ দিতে হবে। ইসলামিক ফাউন্ডেশনের অমানবিক নির্দেশনা বাতিলের দাবিতে আজ মঙ্গলবার জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে ইসলামিক ফাউন্ডেশন দৈনিকভিত্তিক কর্মচারী কল্যাণ সমিতির উদ্যোগে অনুষ্ঠিত মানববন্ধন কর্মসূচিতে নেতৃবৃন্দ এসব কথা বলেন। মানববন্ধনে নেতৃবৃন্দ বলেন, ইসলামিক ফাউন্ডেশনের মহাপরিচালক ও ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয় এ ধরনের অমানবিক নির্দেশনার বিরুদ্ধে অসহায় কর্মচারীগণ রাজপথে নামতে বাধ্য হয়েছে। তারা বলেন,অডিট আপত্তির নামে দীর্ঘ ১১ মাস যাবত ২২৪ জন দৈনিকভিত্তিক কর্মচারী বেতন ভাতা না পেয়ে মানবেতর জীবন যাপন করছে। অথচ একই আপত্তির আওতার অফিসাররা নিয়মিত বেতন ভাতা পাচ্ছেন। অডিট আপত্তির প্রেক্ষাপট দেখিয়ে সংঘটিত এ কাজটি ছিলো তাদের সম্পূর্ণ আত্মঘাতি ও প্রকৃতপক্ষে অমানবিক এবং বিধি বর্হিভূত। এ সংবাদটি যখন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অবগত হন তাৎক্ষণিকভাবে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের মহাপরিচালককে গত ১৬ অক্টোবর টেলিফোন মারফত উল্লিখিত সকলকে তাদের স্ব স্ব এলাকায় ইসলামিক ফাউন্ডেশনের বাস্তবায়নাধীন ৫৬০ টি মডেল মসজিদ ও ইসলামিক সাংস্কৃতিক কেন্দ্র স্থাপন প্রকল্পে’ রাজস্বভিত্তিতে নিয়োগ করে ১৫ কর্মদিবসের মধ্যে বকেয়া বেতন-ভাতা প্রদান করার একটি সুপারিশপত্র প্রধানমন্ত্রীর নিকট দাখিল করতে নির্দেশ দিয়েছেন। অত্যন্ত পরিতাপের বিষয় এখনো নির্দেশ বাস্তবায়ন করা হচ্ছে না বরং প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ অমান্য করে দৈনিক ভিত্তিক কর্মচারীদেরকে আউটসোর্সিং প্রক্রিয়ায় নিয়োগ দেয়ার জন্য পত্র অনুমোদন করার চেষ্টা করছে ও বকেয়া বেতন-ভাতা দেয়া বন্ধ রাখা হচ্ছে। জমিয়তুল ফালাহ মসজিদের পেশ ইমাম মাওলানা সাদেক আরমানের সভাপতিত্বে এতে আরো বক্তব্য রাখেন, মো. মতিউর রহমান, সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক সফিকুল ইসলাম সবুজ, মো. রেজাউল করিম, খাদিজা আক্তার শিলা, মো. নূর আলম, শুভ তারা, শামীমা আক্তার, লিমন শেখ আালাউদ্দিন হোসেন, খাদিজা আক্তার, মোহাম্মদ হাসান, এনায়েত হোসেন, মো. শহিদুল ও আব্দুল আজিজ। নেতৃবৃন্দ বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মজিবুর রহমান ইসলামের প্রচার ও প্রসারের লক্ষ্যে ১৯৭৫ সালে ইসলামিক ফাউন্ডেশন প্রতিষ্ঠা করেন। ২০১৭ সালের ৬ জুন অনুমোদিত ফাউন্ডেশনের অর্গানোগ্রাম অনুযায়ী রাজস¦খাতে বিভিন্ন শ্রেণি গ্রেডে মোট অনুমোদিত পদের সংখ্যা ১৫০৫ টি। বর্তমানে কর্মরত কর্মকর্তা-কর্মচারীর সংখ্যা মোট ১০১৭ টি এবং শূন্যপদ ৪৮৮টি। তারা সিন্ডিকেট চক্রের ষড়যন্ত্র বন্ধ করে অবিলম্বে ২২৪ জন অসহায় কর্মচারীর চাকরি রাজস্বখাতে নিয়োগের বাস্তবমুখী উদ্যোগ গ্রহণ এবং বকেয়া বেতন ভাতা চালুর জন্য জোর দাবি জানান।



 

Show all comments
  • Jack Ali ২০ অক্টোবর, ২০২০, ৭:৫৫ পিএম says : 0
    We must rule our country by the Law of Allah then people will get back their human right. Islam ensure human right in every sphere in our life. Allah has sealed the governments heart as such they don't care about us. The are getting salary from our hard earned tax payers money and their life style is like King. Allah is watching every things.
    Total Reply(0) Reply
  • kazi shamim ২০ অক্টোবর, ২০২০, ৮:৩৪ পিএম says : 0
    আউটসোর্সিং মানি না মানবো না। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী নির্দেশনা অনুযায়ী রাজস্ব খাতে নিয়োগ দেওয়া হউক এবং আমাদের বকেয়া বেতন পরিশোধ করা হউক
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন