Inqilab Logo

ঢাকা বৃহস্পতিবার, ২৮ জানুয়ারি ২০২১, ১৪ মাঘ ১৪২৭, ১৪ জামাদিউস সানী ১৪৪২ হিজরী

দৌলতদিয়ায় পারের অপেক্ষায় শত শত যানবাহন

দালাল ছাড়া মিলছে না টিকিট

গোয়ালন্দ (রাজবাড়ী) উপজেলা সংবাদদাতা : | প্রকাশের সময় : ২১ অক্টোবর, ২০২০, ১২:০০ এএম

দৌলতদিয়ায় ঘাট সঙ্কট ও শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ি নৌরুটের বাড়তি যানবাহনের চাপে গোয়ালন্দের দৌলতদিয়া প্রান্তে দালাল ছাড়া মিলছে না ফেরি পারের টিকেট। নদী পারের অপেক্ষায় সিরিয়ালে আটকা পড়েছে শত শত যানবাহন।

জানা যায়, গতকাল বিকেলের দিকে দৌলতদিয়া-খুলনা মহাসড়কের দৌলতদিয়ায় শত শত, রাজবাড়ী-কুষ্টিয়া আঞ্চলিক মহাসড়কের গোয়ালন্দ মোড়ে প্রায় চার শতাধিক পণ্যবাহী ট্রাক সিরিয়ালে থাকতে দেখা গেছে। ট্রাকগুলো দিনের পর দিন সড়কে আটকে থাকায় চরম ভোগান্তিতে পড়েছেন চালকরা। এদিকে বর্তমানে দৌলতদিয়া প্রান্তের ৪টি ফেরি ঘাট দিয়ে পারাপার হচ্ছে যানবাহন।

ট্রাকচালক শাহীন জানান, দৌলতদিয়া ঘাটে দালাল ছাড়া মিলছে না টিকেট। দালালের কাছে টাকা না দিলে আমাদেরকে মারধর করে। তাই ভয়ে আমরা দালালের কাছে টাকা দিয়ে টিকেট কাটি। টিকেটের মূল্য ৭৫০ টাকা কিন্তু দালালরা নিচ্ছে ১২ থেকে ১৩শ’ টাকা করে। অনেক সময় আরও বেশিও দিতে হয়। গোয়ালন্দ মোড় ও দৌলতদিয়া ঘাটে দালালের হাতে অনেকেই নির্যাতনের শিকার হন।
ট্রাকচালক জয়নাল আবেদীন বলেন, তিন ধরে গোয়ালন্দ মোড়ে ট্রাক নিয়ে সিরিয়ালে আটকা ছিলাম। গতকাল বেলা ১০টার দিকে দৌলতদিয়া এসে আবার সিরিয়ালে আটকা আছি। কখন ফেরি পার হবো জানি না। ঘাটে আসলে দালালের কাছেই টাকা দিতে হয় টিকেট কাটার জন্য। টিকেটের মূল্য ১৪৬০ টাকা আর দালালেরা আমাদের কাছ থেকে নেয় ১৫ থেকে ১৬শ’। টাকা না দিলে মারধর করে। ভয়ে দালালের কাছে টাকা দিয়ে টিকেট নিয়ে ফেরি পার হয়ে চলে যাই।

মহাসড়কে আটকে থাকা ট্রাকচালকরা জানান, অনেক ট্রাক দুই-তিন দিনেরও বেশি সময় খোলা রাস্তায় আটকে আছে। দিনের পর দিন রাস্তায় আটকে থেকে তাদের ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে। বেড়ে যাচ্ছে খরচ এবং সময় মতো মালামাল ডেলিভারি দিতে পারছেন না। এছাড়া যেখানে আটকে আছেন সেখানে নেই গোসল, খাবার ও টয়লেট সুবিধা। এদিকে তারা টার্মিনাল চার্জ দিলেও রাস্তায় আটকে থাকতে হচ্ছে। রাস্তায় রাতে নিরাপত্তাহীনতায় থাকছেন।

টিএসআই মো. জহুরুল আলম বলেন, শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ি ঘাটে ফেরি চলাচল বন্ধ থাকায় যানবাহনের চাপ একটু বেশি। তার ডিউটি চলাকালে দেখা যায় সিরিয়ালে থাকা পণ্যবাহী ট্রাক সিরিয়াল ভেঙে বাম পাশ দিয়ে ফেরি ঘাটের দিকে চলে যাচ্ছে। এ বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমি জানি না।
বিআইডব্লিউটিসির দৌলতদিয়া ফেরি ঘাটের ব্যবস্থাপক আবদুল্লাহ আল রনি জানান, সব কয়টি ফেরি ঘাট সচল রয়েছে। শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ি রুটের যানবাহনের চাপ রয়েছে। যে কারণে দৌলতদিয়ায় কিছু পণ্যবাহী ট্রাকের সিরিয়াল তৈরি হয়েছে। এ রুটে বর্তমানে ১৮টি ফেরি চলাচল করছে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: শিমুলিয়া

১৭ সেপ্টেম্বর, ২০২০
১৪ সেপ্টেম্বর, ২০২০
২ সেপ্টেম্বর, ২০২০

আরও
আরও পড়ুন