Inqilab Logo

ঢাকা শনিবার, ০৫ ডিসেম্বর ২০২০, ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ১৯ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরী

সর্বশেষ ফলোআপ: শেরপুরের শ্রীবরদীতে শ্রমিকলীগ নেতা খুনের ঘটনায় ৮জনের নামে হত্যা মামলা, গ্রেফতার-২

শেরপুর জেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ২১ অক্টোবর, ২০২০, ১২:২৯ পিএম | আপডেট : ১:২১ পিএম, ২১ অক্টোবর, ২০২০

শেরপুরের শ্রীবরদীতে শ্রমিকলীগ নেতা আব্দুর রহিম বানু (৬০) হত্যার ঘটনায় বিলভরাট এলাকার ফিরোজ আলীকে প্রধান আসামী করে ৮জনের বিরুদ্ধে শ্রীবরদী থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করা হয়েছে। এছ্ড়াা আরো ৪/৫ জনকে অজ্ঞাতনামা আসামী করা হয়েছে। নিহত শ্রমিক নেতার ছেলে রমজান আলী বাদী হয়ে এ মামলা দায়ের করেন।
গতকাল রাতে এজাহার দাখিল করার পর মামলাটি রেকর্ড করা হয় বলে আজ ২১ অক্টোবর বেলা ১১টার সময় নিশ্চিত করেন শ্রীবরদী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা রহুল আমীন তালুকদার।

পুলিশ শ্রীবরদীর বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে আজ সকালে মামলার অপর দুই আসামী আকতার (৩৫) ও জনি (৪২) কে গ্রেফতার করে জিজ্ঞাসাবাদ করছে।

মামলার বাদী রমজান আলী জানান, অনুমান ৫ বছর আগে অভিযুক্ত প্রধান আসামী সুরুজ আলীর সাথে তার বোনের (আব্দুর রহিম বানুর মেয়ে) বিয়ে হয়েছিল। কিন্তু তাদের মধ্যে বনিবনা না হওয়ায় বিবাহ বিচ্ছেদ হয়। এ নিয়ে মামলা মোকাদ্দমা পর্যন্ত হয়েছিল। এঘটনার পর থেকে সুরুজ আলী ও তার লোকজন তার পিতাকে হুমকি দিয়ে আসছিল। এরই ধারাবাহিকতায় তারা আমার বাবা আব্দুর রহিম বান কে খুন করেছে।

উল্লেখ্য আব্দুর রহিম বানু নামে ওই শ্রমিক নেতা ২০ অক্টোবর মঙ্গলবার ভোরে প্রকৃতির ডাকে ঘরের বাইরে বের হলে দুর্বত্তরা তার ওপর হামলা করে কুপাতে থাকে। এসময় বাড়ির লোকজন যারযার ঘরে ঘুমন্ত অবস্থায় ছিল। পরে তার ডাক চিৎকারে বাড়ির লোকজন বের হলে। দূর্বৃত্তরা তাকে ফেলে পালিয়ে যায়। পরে গুরুতর আহত আব্দুর রহিম বানুকে প্রথমে শ্রীবরদী উপজেলা হাসপাতাল ও পরে শেরপুর জেলা হসপাতাল সবশেষ ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সেখানেই তার মৃত্যু হয়। নিহত আব্দুর রহিম বানু উপজেলার রানীশিমুল ইউনিয়নের বিলভরট গ্রামের মৃত মুনছর আলীর ছেলে ও ৭ নং ওয়ার্ড শ্রমিক লীগের সাবেক সভাপতি।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: গ্রেফতার

২ ডিসেম্বর, ২০২০

আরও
আরও পড়ুন