Inqilab Logo

ঢাকা শনিবার, ০৫ ডিসেম্বর ২০২০, ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ১৯ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরী

ম্যাখোঁর বিদ্বেষের শিকার হয়ে ৬ মাসের জন্য বন্ধ মসজিদটি

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২২ অক্টোবর, ২০২০, ১২:০১ এএম

মহানবীকে অবমাননায় এক ব্যক্তিকে হত্যার ঘটনায় রাজধানী প্যারিসের একটি মসজিদ বন্ধের নির্দেশ দিয়েছে ফরাসি কর্তৃপক্ষ। বুধবার থেকে এটি বন্ধ করা হবে বলে মঙ্গলবার জানানো হয়েছে। শ্রেণিকক্ষে মহানবীর ব্যক্তিচিত্র দেখানোয় স্যামুয়েল প্যাটি নামে এক শিক্ষককে গত শুক্রবার গলা কেটে হত্যা করা হয়। হামলাকারী চেচেন বংশোদ্ভ‚ত আব্দুল্লাখ আনজরভ পরে পুলিশের গুলিতে নিহত হয়। হামলার আগে প্যারিসের প্যানটিন এলাকার ওই মসজিদের ফেসবুক পেজে স্যামুয়েল প্যাটির নিন্দা জানানোর একটি ভিডিও পোস্ট করা হয়েছিল। ফরাসি স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, মসজিদটিতে প্রায় দেড় হাজার মুসলিম নামাজ আদায় করতেন। বুধবার রাত থেকে ছয় মাসের জন্য এটি বন্ধ করে দেওয়া হয়। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী জেরাল্ড ডারমানিন জানিয়েছেন, ‘প্রজাতন্ত্রের শত্রæদের এক মুহ‚র্ত সময়ও দেওয়া হবে না।’ খবরে বলা হয়, মহানবী হজরত মুহাম্মদ (সা.) এর কার্টুন দেখিয়ে মতপ্রকাশের স্বাধীনতা ব্যাখ্যা করার দায়ে ফ্রান্সের প্যারিসে স্কুল শিক্ষক স্যামুয়েল প্যাটিকে হত্যা করা হয়েছে। সেই হত্যার পর ফ্রান্স জুড়ে চরমপন্থীদের বিরুদ্ধে পুলিশের অভিযান চলছে। তারই অংশ হিসাবে বন্ধ করে দেয়া হচ্ছে উত্তর প‚র্ব প্যারিসের প্যানটিন মসজিদ। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় মঙ্গলবারই মসজিদটি ছয় মাস বন্ধের নির্দেশ দিয়েছে। শিক্ষক প্যাটি কার্টুন দেখানোর পরই ওই মসজিদ থেকে তার নিন্দা করে শেয়ার করা হয় একটি ভিডিও। তাই ছয় মাসের জন্য সাময়িকভাবে মসজিদটি বন্ধ করে দেয়া হচ্ছে। মন্ত্রণালয় বিবৃতি দিয়ে জানিয়েছে, বুধবার রাত থেকে মসজিদটি বন্ধ হয়ে যাবে। এখানে দেড় হাজারের মতো মুসলিম নামাজ পড়তেন। বলা হয়েছে, মসজিদ সাময়িকভাবে বন্ধের সিদ্ধান্ত নেয়ার একমাত্র উদ্দেশ্য হলো সন্ত্রাস ঠেকানো। যে ভিডিওটি মসজিদ থেকে শেয়ার করা হয়েছিল, তা প্যাটিরই এক ছাত্রের বাবার করা। সেই ভিডিওতে শিক্ষককে দুর্বৃত্ত আখ্যা দিয়ে বলা হয়েছিল, তিনি মুসলিম ছাত্রদের বেছে নিয়ে অপমান করছেন। মসজিদের ইমাম সংবাদসংস্থা এএফপিকে জানিয়েছেন, ওই ভিডিও শেয়ার করার জন্য তিনি ক্ষমাপ্রার্থী। তবে তিনি তা করেছিলেন মুসলিম ছাত্রদের কথা ভেবে। মসজিদের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, ইসলামে হিংসার কোনও স্থান নেই। অপরদিকে, একের পর এক বন্ধ করে দেয়া হচ্ছে ফ্রান্সের মসজিদ ও ইসলামিক বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। চলতি বছরের গোড়ার দিক থেকে এ পর্যন্ত কমপক্ষে ৭৩টি মসজিদ বন্ধ হয়ে গেছে জানান স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী জেরাল্ড দারমানিন। ইসলামি উগ্রবাদের বিরুদ্ধে লড়াইয়ের উদ্দেশ্যই এমন পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে বলেও জানান তিনি। এএফপি, বিবিসি।

 

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ফ্রান্স


আরও
আরও পড়ুন