Inqilab Logo

বুধবার, ২০ অক্টোবর ২০২১, ০৪ কার্তিক ১৪২৮, ১২ রবিউল আউয়াল সফর ১৪৪৩ হিজরী

পারের অপেক্ষায় শত শত যানবাহন

দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া

গোয়ালন্দ (রাজবাড়ী) উপজেলা সংবাদদাতা : | প্রকাশের সময় : ২২ অক্টোবর, ২০২০, ১২:০০ এএম

স্রোত ও নাব্য সঙ্কটের কারণে দেশের ব্যস্ততম দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌরুটে ফেরি চলাচল ব্যাহত হচ্ছে। ফলে নদী পারের অপেক্ষায় দৌলতদিয়া প্রান্তে মহাসড়কে সিরিয়ালে আটকা পড়েছে প্রায় ৪ শতাধিক পণ্যবাহি ট্রাক। এছাড়া যান্ত্রিক ত্রæটির কারণে ৩টি ফেরি বিকল থাকায় বর্তমানে এ রুটে চলছে ছোট-বড় ১৫টি ফেরি।
জানা যায়, দৌলতদিয়া ফেরিঘাটের জিরো পয়েন্ট থেকে দৌলতদিয়া-খুলনা মহাসড়কের প্রায় ৭ শতাধিক ও ঘাট থেকে ১৩ কি. মি. দূরে গোয়ালন্দ মোড়ের রাজবাড়ী-কুষ্টিয়া আঞ্চলিক মহাসড়কে প্রায় ৪ শতাধিক পণ্যবাহি ট্রাক আটকা রয়েছে। তবে সিরিয়ালে থাকতে হচ্ছে না যাত্রীবাহি পরিবহন ও ছোট গাড়ি গুলোকে। দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌরুটের পদ্মা নদীতে পানি কমতে থাকায় নদীর মাঝে বড় বড় ডুবোচর দেখা দিয়েছে। এছাড়া পাটুরিয়াঘাট এলাকায় নাব্যতার কারণে চলছে ড্রেজিং কার্যক্রম। এ কারণে নদী পারাপারে ফেরিগুলোর সময় লাগছে আগের তুলনায় অনেক বেশি এবং কমে গেছে ফেরির ট্রিপের সংখ্যা। ট্রাকচালক জয়নাল জানান, সাতক্ষীরা থেকে গত মঙ্গলবার রাত ৮টায় গোয়ালন্দ মোড়ে রাজবাড়ী কুষ্টিয়া মহাসড়কে দীর্ঘ সিরিয়ালে আটকে থাকার পর গতকাল সকাল ১০টার সময় দৌলতদিয়াঘাটে এসেছি। আবারও দীর্ঘ সিরিয়ালে আটকে আছি। কখন ফেরি পার হবো তা বলতে পারছি না।
রাজবাড়ী ট্রাফিক পুলিশের ইন্সেপেক্টর তারক চন্দ্র পাল বলেন, গোয়ালন্দ মোড়ের হাইওয়ে মহাসড়কে আটকে আছে ২ শত পণ্যবাহি ট্রাক। এই পণ্যবাহি ট্রাকগুলো আজ সকালে গোয়ালান্দ মোড় থেকে ছেড়ে দেয়া হবে।
বিআইডব্লিউটিসির দৌলতদিয়া ফেরিঘাটের ব্যবস্থাপক আবদুল্লাহ আল রনি জানান, সব কয়টি ফেরিঘাট সচল রয়েছে। এছাড়া শিমুলিয়া-কাঠালবাড়ীর রুটের যানবাহনের চাপ রয়েছে। যে কারণে দৌলতদিয়ায় কিছু পণ্যবাহি ট্রাকের সিরিয়াল তৈরি হয়েছে। এ রুটে বর্তমানে ১৮টি ফেরি চলাচল করছে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া

২৩ জানুয়ারি, ২০২১
৮ সেপ্টেম্বর, ২০২০

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ