Inqilab Logo

বৃহস্পতিবার, ০৫ আগস্ট ২০২১, ২১ শ্রাবণ ১৪২৮, ২৫ যিলহজ ১৪৪২ হিজরী

লক্ষ্মীপুরে ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষ, আহত ৫

লক্ষ্মীপুর জেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ২২ অক্টোবর, ২০২০, ১০:৫৬ এএম

লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার চন্দ্রগঞ্জ থানার দেওপাড়া ১নং পোলের গোড়ায় বুধবার (২১ অক্টোবর) রাত ৮টার দিকে সাবেক ছাত্রলীগ নেতা বাবলুর অনুসারীদের দুই গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষে কামরুল (২০), রাকিব (১৬) রায়হান পারভেজ অন্তর (১৯)সহ ৫ জন আহত হয়েছে। আহতদের মধ্যে গুরুতর ৩ জন সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। আহতরা সবাই চন্দ্রগঞ্জ থানা ছাত্রলীগের সাবেক আহ্বায়ক একাধিক মামলার আসামী কাজী মামুনুর রশিদ বাবলুর অনুসারী ও স্থানীয় ছাত্রলীগের নেতাকর্মী।

প্রত্যক্ষদর্শী জানায়, রাতে চন্দ্রগঞ্জ ১নং পোলের গোড়ায় ‘বাবলু বাহিনী’র এম মাসুদ গ্রুপের এম সজিব ও হৃদয় পাটওয়ারীসহ কয়েক সদস্যকে অবস্থান করতে দেখা যায়। কিছুক্ষণ পর বাবলুর আরেক অনুসারী ওমর ফারুক গ্রুপের সদস্যরা ঘটনাস্থলে পৌঁছালে সংঘর্ষের ঘটনাটি ঘটে।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, চাঁদার ভাগাভাগি নিয়ে কাজী বাবলুর অনুসারী এম মাসুদ ও ওমর ফারুক আরজু গ্রুপের মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে দ্বন্দ্ব চলে আসছে। এম মাসুদ কফিল উদ্দিন বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ ছাত্রলীগের বর্তমান সভাপতি এবং ওমর ফারুক আরজু সাবেক সভাপতি। এদের বিরুদ্ধে বাজার ও আশপাশ এলাকায় চাঁদাবাজির অভিযোগ রয়েছে।

বুধবার (২১ অক্টোবর) সন্ধ্যায় চন্দ্রগঞ্জ নিউ মার্কেট এলাকায় দুই গ্রুপের সদস্যদের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। পরে কাজী বাবলু নিজেই তাদের মধ্যে সমঝোতা করে দেন। কিন্তু এরপরেও এম সজিব গ্রুপের সদস্যরা অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে চন্দ্রগঞ্জ ১নং পোলের গোড়ায় অবস্থান নেয়। রাত ৮টার দিকে ঘটনাস্থলে আরজু গ্রুপের সদস্যদের সঙ্গে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে।

কাজী মামুনুর রশিদ বাবলু বলেন, ‘তুচ্ছ বিষয়কে কেন্দ্র করে দলীয় নেতাকর্মীদের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। আহতদের হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। ঘটনাটি মিমাংসা করার চেষ্টা করতেছি।’

চন্দ্রগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জসীম উদ্দীন বলেন, কাজী বাবলুর অনুসারীদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনাটি শুনেছি। লিখিত অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: সংঘর্ষ


আরও
আরও পড়ুন