Inqilab Logo

ঢাকা রোববার, ২৯ নভেম্বর ২০২০, ১৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ১৩ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরী

৯ মাস ধরে ধর্ষণ

রাজশাহীতে চার বছরের শিশুসহ শিকার আরো ৫ : আটক ৭

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৩ অক্টোবর, ২০২০, ১২:০১ এএম

নোয়াখালীর বেগমগঞ্জে চাকরির প্রলোভনে ৯ মাস ধরে ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় অভিযুক্ত অবসরপ্রাপ্ত সার্জেন্ট সিরাজুল ইসলামকে (৬৫) গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গাজীপুরে কারখানা থেকে বাসায় ফেরার পথে রাস্তা থেকে তুলে নিয়ে পোশাক শ্রমিককে গণধর্ষণের খবর পাওয়া গেছে। ময়মনসিংহ সদর উপজেলায় পরিবারের সবাইকে অচেতন করে এক কিশোরী (১৭) ধর্ষণের শিকার হয়েছে । এছাড়া রাজশাহীতে চার বছর বয়সী শিশু, ঈশ্বরগঞ্জে কিশোরী ও ল²ীপুরের কমলনগরে ১১ বছরের এক শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগে মামলা দায়ের করা হয়েছে। এদিকে, সাভারে গণধর্ষণ মামলার আসামিসহ সারা দেশে ধর্ষণ মামলায় ৭ জনকে আটক করেছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।

নোয়াখালী : বেগমগঞ্জ উপজেলার একলাশপুরে চাকরির প্রলোভন দেখিয়ে এক যুবতীকে (২৫) ৯ মাস ধরে ধর্ষণের অভিযোগ এনে বাবা ও ছেলের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে। অভিযোগ পেয়ে মামলার প্রধান আসামি অবসরপ্রাপ্ত সার্জেন্ট সিরাজুল ইসলামকে (৬৫) গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গতকাল বিকাল ৩টার দিকে ধর্ষণ ও প্রতারনার শিকার ওই নারী বাদী হয়ে বেগমগঞ্জ থানায় এ মামলা দায়ের করেন। মামলার অপর আসামি হচ্ছেন, সিরাজুল ইসলামের ছেলে মাহবুবুর রহমান (৩৫)।

অভিযোগ ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, বেগমগঞ্জ উপজেলার চৌমুহনী পৌরসভার ৪নং ওয়ার্ডের আমানতপুর মহল্লার বাসিন্দা মৃত মোহাম্মদ উল্যাহর ছেলে অবসরপ্রাপ্ত সার্জেন্ট সিরাজুল ইসলাম উপজেলার একলাশপুর ইউনিয়নের ওই যুবতীকে চাকরি দেয়ার কথা ও বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে দীর্ঘ ৯ মাস যাবত নোয়াখালী এবং ঢাকার বিভিন্ন হোটেলে নিয়ে স্ত্রী পরিচয়ে একাধিক বার ধর্ষণ করে। দীর্ঘদিন পেরিয়ে গেলেও লম্পট সিরাজুল ইসলাম মেয়েটিকে কোন চাকরি বা বিয়ে করেনি। বিয়ের জন্য চাপ দিলে সিরাজুল ইসলাম নানা তালবাহানা শুরু করে। এক পর্যায়ে ধর্ষকের ছেলে মাহবুবুর রহমান ভয়ভীতি দেখিয়ে যুবতীর কাছ থেকে অলিখিত ষ্ট্যাম্পে স্বাক্ষর নেয়। বেগমগঞ্জ মডেল থানার ওসি কামরুজ্জামান সিকদার বলেন, অভিযোগ পেয়ে বিকালে অভিযান চালিয়ে মামলার প্রধান আসামি সিরাজুলকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তার ছেলেকেও গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

রাজশাহী : রাজশাহী নগরীর খড়খড়ি এলাকায় নবম শ্রেণীর পড়–য়া এক কিশোরের বিরুদ্ধে চার বছর বয়সী এক শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় বুধবার রাতে কিশোরকে আসামি করে নগরীর চন্দ্রিমা থানায় মামলা হয়েছে। কিশোর পলাতক রয়েছে। রামেক হাসপাতালের উপ-পরিচালক ডা. সাইফুল ফেরদৌস জানান, শিশুটির বয়স চার বছর। তার শারীরিক অবস্থা এখন স্থিতিশীল। ওসি সিরাজুম মুনীর জানান, অভিযুক্ত কিশোর ঘটনার পর থেকেই পলাতক। বাড়িতে তাকে পাওয়া যায়নি। তাকে ধরতে পুলিশ চেষ্টা চালাচ্ছে।

গাজীপুর : গাজীপুরে কারখানা থেকে বাসায় ফেরার পথে রাস্তা থেকে তুলে নিয়ে এক পোশাক শ্রমিককে গণধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। গত বুধবার রাতে নগরের কাশিমপুরের সারদাগঞ্জ এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। গতকাল সকালে এ ঘটনার বিচার দাবিতে ওই পোশাক শ্রমিকের সহকর্মীরা কাশিমপুর থানার সামনে বিক্ষোভ করেছেন। এদিকে ঘটনার সঙ্গে জড়িত তিনজনকে আটক করেছে পুলিশ। আটকরা হলেন- ময়মনসিংহের হালুয়াঘাট থানার গোবরকুড়া এলাকার আব্দুল জব্বারের ছেলে আমিনুল ইসলাম (২৮), গাজীপুর মহানগরের সারদাগঞ্জ এলাকার আমিনুল ইসলামের ছেলে শাহাদাত হোসেন (৩৫) ও একই এলাকার আব্দুল আলীমের ছেলে বায়েজিদ হোসেন (৩০)।

কারখানার শ্রমিক ও স্থানীয়রা জানান, গাজীপুর মহানগরের সারদাগঞ্জ এলাকার আরব ফ্যাশন লিমিটেড নামে পোশাক কারখানার ওই নারী শ্রমিক বুধবার রাতে ছুটির পর বাসায় ফেরার পথে ৫-৬ জন যুবক তাকে রাস্তা থেকে তুলে নিয়ে যায়। পরে স্থানীয় স্কয়ার গেট এলাকার নির্জন স্থানে নিয়ে পালাক্রমে তাকে ধর্ষণ করে। পরে তার পরিবারের লোকজনকে ফোন করে ৫০ হাজার টাকা মুক্তিপণ দাবি করে। বিষয়টি জানাজানি হলে পুলিশ শাহাদাত হোসেন, বায়েজিদ হোসেন, আমিনুল ইসলামকে আটক করে। কাশিমপুর থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহবুবে খোদা জানান, এ বিষয়ে মামলা প্রক্রিয়াধীন।

ময়মনসিংহ : ময়মনসিংহ সদর উপজেলায় পরিবারের সবাইকে দইয়ের সঙ্গে চেতনানাশক ওষুধ খাইয়ে অচেতন করে এক কিশোরীকে (১৭) ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে জাকারিয়া নামে এক যুবকের বিরুদ্ধে। ওই কিশোরী এ বছর এসএসসি পাস করেছে। তার মা মারা যাওয়ার পর বাবা দ্বিতীয় বিয়ে করে ঢাকায় চলে যাওয়ায় সে নানার বাড়ি থাকে। অভিযুক্ত জাকারিয়া চর হাসাদিয়া এলাকার লিয়াকত আলীর ছেলে। কোতোয়ালি মডেল থানা পুলিশের পরিদর্শক (তদন্ত) মুশফিকুর রহমান বলেন, ওই কিশোরী বর্তমানে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। এ ঘটনায় ওই কিশোরীর পরিবার এখনও থানায় কোনো অভিযোগ করেনি। তবে আমরা অভিযোগ নেয়ার চেষ্টা করছি। এ ঘটনার পর থেকে জাকারিয়া পলাতক।

সাভার : ঢাকার সাভারে গণধর্ষণসহ ১১ মামলার আসামিকে অস্ত্রসহ গ্রেফতার করেছে র‌্যাব। গতকাল বৃহস্পতিবার র‌্যাব-৪ এর সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার অনু মং গ্রেফতারের বিষয়টি জানান। এরআগে গত বুধবার রাতে সাভারের হেমায়েতপুরের জয়নাবাড়ি এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতার শেখ ফরিদ (৪২) সাভারের হেমায়েতপুরের জয়নাবাড়ি এলাকার আবুল হাশেম মিয়া ওরফে বিষুর ছেলে।
ঈশ্বরগঞ্জ (ময়মনসিংহ) : ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জে এক ভিক্ষুকের কিশোরী (১৪) মেয়েকে ধর্ষণের অভিযোগে মামলা হয়েছে। গত বুধবার রাতে ধর্ষিতার মা বাদী হয়ে দুইজনকে আসামি করে ঈশ্বরগঞ্জ থানায় মামলা করেছেন। মামলা সূত্রে জানা যায়, গত ৯ অক্টোবর উপজেলার ঈশ্বরগঞ্জ ইউনিয়নের খৈরাটি গ্রামের এক ভিক্ষুকের কিশোরী মেয়ে পাশের বাড়ির অনিক চন্দ্র দাসের বাড়িতে যায়। অনিক তাকে ঘরে মোটরের সুইচ দিতে বলে। মেয়েটি ঘরে ঢুকলে বাইরে থেকে সে দরজা বন্ধ করে দেয়। ঘরের ভেতরে থাকা অনিকের বন্ধু পার্শ্ববর্তী হারুয়া কুমরাশাসন গ্রামের আব্দুর রহিমের ছেলে আরাফাত হোসেন (২২) কিশোরীকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে। ওই কিশোরী বিষয়টি তার পরিবারকে জানায়। পরিবারের লোকজন প্রতিবেশীদের কাছে বিচার চেয়েও কোনো প্রতিকার পায়নি। পরে কিশোরীর মা বাদী হয়ে মামলা করেন।

কমলনগর : কমলনগরে ১১ বছরের এক শিশু ধর্ষণের শিকার হয়েছে। এ ঘটনায় ধর্ষক মো. দিদার হোসেন (২৫) ও তার সহযোগী মো. আইয়ুবকে (৩৫) গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার দুপুরে প্রধান আসামি দিদারকে পাশ্ববর্তী রামগতি উপজেলার আলেকজান্ডার ইউনিয়নের বালুরচর এলাকা থেকে গ্রেফতার করা হয়েছে। অপর আসামি আইয়ুবকে বুধবার রাতে কমলনগর থানা এলাকা থেকে গ্রেফতার করা হয়। এর আগে ওই দিন দুপুরে উপজেলার মতিরহাট এলাকায় নিজ ঘরে ধর্ষণের শিকার হয় শিশুটি। হাজিরহাট তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ মো. আলমগীর হোসেন জানান, কৌশলে প্রধান আসামিসহ দুইজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এর সাথে আর কেউ জড়িত আছে কিনা বিষয়টি খতিয়ে খতিয়ে দেখা হচ্ছে।



 

Show all comments
  • Shafiqur Rahman ২৩ অক্টোবর, ২০২০, ১:১২ এএম says : 0
    ঐ মহিলাকেও গ্রেফতার করে জিজ্ঞাসাবাদ করা উচিত কেন এতদিনে কাউকে জানায়নি ?
    Total Reply(0) Reply
  • Kawser Ahamed ২৩ অক্টোবর, ২০২০, ১:১৩ এএম says : 0
    ৯ মাস ধরে কি কেউ কাউকে ধর্ষণ করতে পারে!!! একদিন দুইদিন হলে মেনে নেওয়া যায়! নিশ্চয়ই তাদের মাঝে কিছু একটা ছিলো,এখন হয়তো ব্রেকাপ হইছে তাই ধর্ষণ মামলা দিয়ে দিছে
    Total Reply(0) Reply
  • Zahid Bd ২৩ অক্টোবর, ২০২০, ১:১৩ এএম says : 0
    এই মহিলা নিজের স্ব-ইচ্ছায় কাজ করেছে নয় মাস এখন সরকারের আইন এর জন্য সব ইঁদুর গর্ত থেকে বের হচ্ছে
    Total Reply(0) Reply
  • Amin Ruhul ২৩ অক্টোবর, ২০২০, ১:১৩ এএম says : 0
    নয় মাস যেই মহিলাকে জেনা করে সেটা ধর্ষণ হয় কিভাবে?ওটা দুইজনের সম্মতিতে হয়েছে। মহিলা ভালো হলে সবাইকে জানাতো। এতে মহিলার ও দোষ আছে। মহিলাকেও আইনের আওতায় আনা উচিত।
    Total Reply(0) Reply
  • MM Raja ২৩ অক্টোবর, ২০২০, ১:১৪ এএম says : 0
    How it is possible? Nine months? She could not understand enjoying or rapping?
    Total Reply(0) Reply
  • Abdullah ২৩ অক্টোবর, ২০২০, ১:১৫ এএম says : 0
    সকল ধর্ষককে দ্রুত বিচারের আওতায় এনে শাস্তির ব্যবস্থা করা প্রয়োজন
    Total Reply(0) Reply
  • md mofizul islam ২৩ অক্টোবর, ২০২০, ১১:০৮ এএম says : 0
    আইনের শাসন নেই দেশে। ক্ষমতার দাপট আর পেশি শক্তিতে সাধারণ জনগন আজ দিশেহারা।
    Total Reply(0) Reply
  • md mofizul islam ২৩ অক্টোবর, ২০২০, ১১:০৯ এএম says : 0
    আইনের শাসন নেই দেশে। ক্ষমতার দাপট আর পেশি শক্তিতে সাধারণ জনগন আজ দিশেহারা।
    Total Reply(0) Reply
  • Kutub ২৩ অক্টোবর, ২০২০, ৮:৫৮ এএম says : 0
    পাথর মেরে হত্যা কর বাবু।
    Total Reply(0) Reply
  • ABDULLAH ২৩ অক্টোবর, ২০২০, ৩:০৭ পিএম says : 0
    জোর করে কারো সাথে যৌন মিলন করলে তাকে বলা হয় ধর্ষন। এই নিউজে উল্লেখিত এক নারীকে ৯ মাস নোয়াখালী ও ঢাকার বিভিন্ন হোটেলে নিয়ে ধর্ষন করা হয়েছে বলে যে খবর ছাপা হয়েছে, সে আসলে ধর্ষিতা নয়, সে প্রতারনার শিকার। নিউজ পড়ে যা বুঝা গেল- সিরাজুল ইসলাম (৬৫) এবং ২৫ বছরের এক যুবতী নোয়াখালী ও ঢাকার বিভিন্ন গিয়ে বিবাহ বহির্ভুত যৌন মিলন করেছে। একে বলা যায় বেভিচার। এখানে ছেলে ও মেয়ে দুজনেই সমান ভাবে দোষী। তবে ছেলে প্রতারনার দায়েও দায়ী। আতএব দু-জনকেই বিচারের আওতায় এনে শাস্তির ব্যাবস্থা করা দরকার।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ধর্ষণ

২৭ নভেম্বর, ২০২০
২৫ নভেম্বর, ২০২০

আরও
আরও পড়ুন