Inqilab Logo

ঢাকা বৃহস্পতিবার, ২৬ নভেম্বর ২০২০, ১১ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ১০ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরী
শিরোনাম

চ্যাম্পিয়নের মতোই শুরু বায়ার্নের

পিছিয়ে পড়েও সিটির দুর্দান্ত জয়, ৫৪ বছরের ক্ষতে লিভারপুলের প্রলেপ

স্পোর্টস ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৩ অক্টোবর, ২০২০, ১২:০১ এএম

ইউরোপ সেরার মঞ্চে ৫৪ বছর পর দেখা দুই দলের। হলো না জমজমাট লড়াই। তবে আত্মঘাতী গোলে জিতে ঠিকই চ্যাম্পিয়ন্স লিগে শুভস‚চনা করেছে ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগের চ্যাম্পিয়ন লিভারপুল। এত বছরের পুরনো ক্ষতে দিয়েছে কিছুটা প্রলেপও। আমস্টারডামের ইয়োহান ক্রুইফ অ্যারেনায় লিগের ‘ডি’ গ্রুপের ম্যাচটি ১-০ গোলে জিতেছে ইয়ুর্গেন ক্লপের দল। চ্যাম্পিয়ন্স লিগ ও ইউরোপিয়ান কাপ মিলিয়ে এই প্রথম ডাচ দলটির বিপক্ষে জিতল লিভারপুল। এর আগে চ্যাম্পিয়ন্স লিগে (সেই সময়ের ইউরোপিয়ান কাপ) ১৯৬৬ সালে প্রথম আয়াক্সের মুখোমুখি হয়েছিল লিভারপুল। প্রতিপক্ষের মাঠে ৫-১ গোলে হেরে আসার পর তারা নিজেদের মাঠে করেছিল ২-২ ড্র।
প্রথমার্ধে আগ্রাসী রূপে দেখা যায়নি কোনো দলকে। প্রতিপক্ষ গোলরক্ষকের কেউ নিতে পারছিল না তেমন পরীক্ষা। সাদিও মানে-মোহামেদ সালাহ-রবের্তো ফিরমিনোয় গড়া শক্তিশালী আক্রমণভাগ ছিল নিজেদের ছায়া হয়ে। ফলে আগের দুই লিগ ম্যাচে অ্যাস্টন ভিলার কাছে ৭-২ গোলে হারা এবং এভারটনের বিপক্ষে ২-২ ড্র করা লিভারপুল ছিল বিবর্ণ। সালাহ-ফিরমিনোকে ৬০তম মিনিটে তুলে নিয়ে জেরদান শাচিরি ও দিয়োগো জোতাকে নামান লিভারপুল কোচ। তাতেও বদলায়নি ভাগ্য। অবশেষে ৩৫তম মিনিটে নিকোলাস তাগলিয়াফিকোর আত্মঘাতী গোলে এগিয়ে যায় লিভারপুল। বাঁ দিক থেকে মানের নেওয়া শটে বিপদের লেশ মাত্র ছিল না। কিন্তু পা লাগিয়ে নিজেদের জালেই বল জড়িয়ে দেন আর্জেন্টাইন ডিফেন্ডার। গ্রুপের আরেক ম্যাচে মিডিল্যান্ডের মাঠে ৪-০ গোলে জিতেছে গতবারের কোয়ার্টার-ফাইনালিস্ট আতালান্তা।
এদিকে, দু’ মাস আগে লিসবনের ফাইনালের নায়ক কিংসলে কোমান এবার করলেন জোড়া গোল। গোল পেলেন লিয়ন গোরেৎস্কা ও কোরোতা তোলিসোও। তাতে দাপুটে পারফরম্যান্সে অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদকে উড়িয়ে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের শিরোপা ধরে রাখার অভিযান শুরু করল বায়ার্ন মিউনিখ। আলিয়াঞ্জ অ্যারেনায় ‘এ’ গ্রুপের ম্যাচে ৪-০ গোলে জিতেছে বায়ার্ন। দুই অর্ধে দুটি করে গোল করে শিরোপাধারীরা।
একই রাতে শুরুতে পিছিয়ে পরেও ম্যানচেস্টার সিটির শুরুটা হলো দারুণ। পোর্তোকে উড়িয়ে ইউরোপ সেরার প্রতিযোগিতায় শুভসূচনা করেছে ইংলিশ জায়ান্টরা। ইতিহাদ স্টেডিয়ামে ‘সি’ গ্রুপে নিজেদের প্রথম ম্যাচটি ৩-১ গোলে জিতেছে পেপ গার্দিওলার দল। লুইস দিয়াসের গোলে পিছিয়ে পড়া দলকে সমতায় ফেরান সার্জিও আগুয়েরো। বিরতির পর অন্য দুই গোল করেন ইলকাই গিনদোয়ান ও ফেররান তরেস। ইউরোপিয়ান প্রতিযোগিতায় পোর্তোর বিপক্ষে এই নিয়ে তিনবারের দেখায় তিনবারই জিতল সিটি। ২০১১-১২ মৌসুমে ইউরোপা লিগে প্রতিপক্ষের মাঠে ২-১ গোলে জয়ের পর ফিরতি লেগে জিতেছিল তারা ৪-০ ব্যবধানে।
গ্রুপের আরেক ম্যাচে নিজেদের মাঠে ফরাসি ক্লাব মার্সেইকে ১-০ গোলে হারায় গ্রিসের দল অলিম্পিয়াকোস।

এক নজরে ফল
সলজবুর্গ ২-২ লোকো.মস্কো
বায়ার্ন ৪-০ অ্যাট.মাদ্রিদ
ইন্টার ২-২ মনশেনগ্লাবাখ
অলিম্পিয়াকোস ১-০ মার্শেই
ম্যানসিটি ৩-১ পোর্তে
আয়াক্স ০-১ লিভারপুল
মিডিল্যান্ড ০-৪ আতালান্তা



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন