Inqilab Logo

ঢাকা রোববার, ২৯ নভেম্বর ২০২০, ১৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ১৩ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরী

ফ্রি ভ্যাকসিনের ঘোষণা দিয়ে বিতর্কিত বিজেপি

বিহার নির্বাচন

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৫ অক্টোবর, ২০২০, ১২:০০ এএম

এখনও করোনা ভ্যাকসিন নিয়ে পরীক্ষানিরীক্ষা চলছে। ভারতে কবে তা আসবে, তারও কোনও নিশ্চয়তা নেই। কিন্তু বিহারের ভোটে জেতার লক্ষ্যে সেই ‘অদৃশ্য’ ভ্যাকসিনকেই অস্ত্র বানাল বিজেপি! শুক্রবার কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামন বিজেপির ইস্তাহার প্রকাশ করে ঘোষণা দিয়েছেন, বিহারে ক্ষমতায় ফিরলে রাজ্যবাসীকে বিনামূল্যে করোনার ভ্যাকসিন দেয়া হবে! এই ঘোষণায় ক্ষমতাসীন দলটির বিরুদ্ধে ভারতজুড়ে সমালোচনা শুরু হয়েছে।

নির্বাচনের মাত্র তিনদিন আগে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন মহরাষ্ট্রের সাবেক মুখ্যমন্ত্রী তথা বিজেপি নেতা দেবেন্দ্র ফড়নবীশ। আসন্ন বিহার নির্বাচনে দলের দায়িত্ব তারই কাঁধে। আগামী ২৮ অক্টোবর থেকে বিহারে বিধানসভা নির্বাচন শুরু হতে চলেছে। ভোটের মুখে ফড়নবীশের করোনা আক্রান্ত হওয়ার খবরে স্বভাবতই উদ্বিগ্ন গেরুয়া-শিবির। এর মধ্যে বিনামূল্যে ভ্যাকসিন দেয়ার ঘোষণা নিয়েও শুরু হয়েছে তোলপাড়। বিরোধীদের অভিযোগ, বিজেপি এ বার করোনার প্রতিষেধক নিয়েও রাজনীতি শুরু করে দিল। ভ্যাকসিন এলে তা সবার কাছে পৌঁছে দেয়ার দায়িত্ব কেন্দ্রীয় সরকারের। সেখানে মোদি সরকার তথা বিজেপি কী ভাবে শুধু মাত্র একটি রাজ্যে বিনামূল্যে ভ্যাকসিন দেয়ার প্রতিশ্রুতি দিতে পারে? অন্যান্য রাজ্যে ভোট নেই বলে কি সেখানে বিনামূল্যে ভ্যাকসিন মিলবে না? নাকি আগামী বছর পশ্চিমবঙ্গ, কেরালা, আসাম, তামিলনাড়ুতে ভোটের আগে সেখানেও এমন প্রতিশ্রুতি দেবে বিজেপি?

কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধী সরাসরি মোদি সরকারকে কটাক্ষ করে বলেছেন, ‘ভারত সরকার কোভিড প্রতিষেধক বিলির ঘোষণা দিয়েছে। কবে প্রতিষেধক আর মিথ্যা প্রতিশ্রুতি মিলবে, তার জন্য অনুগ্রহ করে নিজের রাজ্যে কবে ভোট হবে তা দেখুন!’ বিহারে বিজেপি জোটের মূল প্রতিদ্ব›দ্বী আরজেডি-র তেজস্বী যাদবের বক্তব্য, ‘করোনার ভ্যাকসিন সমগ্র দেশের। শুধু বিজেপির সম্পত্তি নয়।’ বিজেপির এই ঘোষণার পরেই সমাজকর্মী সাকেত গোখলে নির্বাচন কমিশনে অভিযোগ জানান। তার যুক্তি, এক জন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী এই ঘোষণা করছেন। সংবিধানে সকলের সমান অধিকারের কথা বলা হয়েছে। এই ঘোষণা তার বিরুদ্ধে। কংগ্রেস নেতা শশী তারুরও প্রশ্ন তুলেছেন, ‘তুমি আমাকে ভোট দাও, আমি তোমাকে প্রতিষেধক দেব’ বলার পরেও অর্থমন্ত্রী ও তার নির্লজ্জ সরকারকে ভর্ৎসনা করবে না নির্বাচন কমিশন? দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরীওয়ালও প্রশ্ন তোলেন, ‘অ-বিজেপি শাসিত রাজ্যগুলির কী হবে? যে সব ভারতীয় বিজেপিকে ভোট দেবেন না, তারা বিনামূল্যে প্রতিষেধক পাবেন না?’ ন্যাশনাল কনফারেন্সের নেতা ওমর আবদুল্লার প্রশ্ন, বিজেপি কি নিজের পকেটের টাকায় বিনামূল্যে ভ্যাকসিন দেবে? শিব সেনার কটাক্ষ, দেশের বাকি রাজ্যগুলো কি পাকিস্তান যে শুধু বিহারে বিনামূল্যে ভ্যাকসিন বিলির কথা ঘোষণা করা হয়েছে?

বিজেপির বিনামূল্যে ভ্যাকসিনের প্রতিশ্রুতিতে আরও একটি প্রশ্নও উঠেছে। তা হল, আরজেডি নেতা তেজস্বী যাদবের জনসভায় যে রকম ভিড় উপচে পড়ছে, তা দেখেই কি বিজেপির এই মরিয়া পদক্ষেপ? তেজস্বী ক্ষমতায় এলে ১০ লাখ চাকরির প্রতিশ্রুতি দেয়ায় নীতীশ তা নিয়ে কটাক্ষ করেছিলেন। শুক্রবার বিজেপি নিজেই ১৯ লাখ চাকরির প্রতিশ্রুতি দিয়েছে! বিজেপি নেতারা বলছেন, আরজেডি-র ভোটব্যাঙ্ক মুসলিম ও যাদব। তারা এমনিতেই জনসভায় ভিড় করেন। মুখে এ কথা বললেও নীতীশ কুমারের সরকারের বিরুদ্ধে প্রতিষ্ঠান বিরোধিতার আশঙ্কাও উড়িয়ে দিতে পারছেন না বিজেপি নেতারা। বিজেপি-জেডি(ইউ) জোট বিহারে ক্ষমতায় ফিরলে নীতীশই মুখ্যমন্ত্রী বলে বিজেপি নেতারা জানিয়ে দিয়েছেন। কিন্তু বিজেপি ইস্তাহার প্রকাশের দিন যে বিজ্ঞাপন প্রকাশ করেছে, তাতে শুধুই মোদির ছবি। বিরোধীরা বলছেন, নীতীশের বিরুদ্ধে ক্ষোভ ঢেকে মোদির ভরসাতেই বিহারের ভোটে নামছে বিজেপি!

প্রসঙ্গত, আগামী ২৮ অক্টোবর থেকে বিহারে ভোট শুরু। প্রথম দফার ভোটগ্রহণ হবে ২৮ তারিখ। প্রথম দফায় বিহারের ৭১টি আসনে নির্বাচন হবে। এরপর ৩ নভেম্বর দ্বিতীয় দফায় ৯৪টি আসনে নির্বাচন হবে। তৃতীয় ও শেষ দফায় ৭৮টি আসনে ভোটগ্রহণ হবে। আগামী ১০ নভেম্বর বিহারে বিধানসভা ভোটের ফল ঘোষণা করা হবে। বিহারের মোট ২৪৩টি আসনে ভোটগ্রহণ হবে। আগামী ২৯ নভেম্বর শেষ হচ্ছে বিহারের বর্তমান সরকারের মেয়াদ। সূত্র : হিন্দুস্থান টাইমস, টিওআই।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: করোনাভাইরাস

২৮ নভেম্বর, ২০২০
২৮ নভেম্বর, ২০২০

আরও
আরও পড়ুন