Inqilab Logo

ঢাকা সোমবার, ৩০ নভেম্বর ২০২০, ১৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ১৪ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরী
শিরোনাম

মির্জাগঞ্জে অবিরাম বৃষ্টিতে ভাসছে কৃষকের স্বপ্ন, নেই পূজা উৎসবও

মির্জাগঞ্জ (পটুয়াখালী) উপজেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ২৫ অক্টোবর, ২০২০, ৪:৪৫ পিএম

সনাতধর্মলম্বিদের বড় উৎসব হচ্ছে শারদীয় দূর্গাপূজা। দেশের বিভিন্ন যায়গায় যখন চলছে পূজার অনন্দো।দলে দলে ছুটে চলছে মন্দিরে। ঢোলের বাজনায় আতœহারা।সেখানে অবিরাম বৃষ্টি কেড়ে নিয়েছে পটুয়াখালীর মির্জাগঞ্জ উপজেলার পশ্চিম সোনাপুরা গাজীপুর এলাকার গাজীপুরা বাজারের শ্রী শ্রী দূর্গা মন্দিরসহ উপজেলার নিম্ন এলাকার স্বনাতনধর্মীদের পূজার অনন্দ।ভাসছে পানিতে। মন্দিরের চার পাশে থৈ থৈ করছে পানি।দেখ মনে হয় যেন কোন দ্বীপুঞ্জ। হাজার হাজার টাকা খরচ করে দূর থেকে কারিগর এনে নিপূন কারুকার্য দিয়ে তৈরি করেছে প্রতিমাকে। সাজিয়েছে প্যান্ডেল, আলোকসজ্জা সহ সজ্জিত করছে মন্দির। কিন্তু সবকিছুই ভাসিয়ে নিয়ে গেলো বৃষ্টির পানি।
গাজীপুরা বাজারে শ্রী শ্রী দূর্গা মন্দিরে সভাপতি সত্য রঞ্জন সরদার বলেন,টানা বর্ষার ফলে মন্দির এখন পানিতে ভাসছে। সবকিছু নষ্ট হয়ে গেছে। উৎসব তো দূরের কথা দূর্গাকে প্রনাম টুকুও কপালে ঝুটেনি। অন্যদিকে বৃষ্টি পানি জমে তলিয়ে আছে রোপা আমন সহ,মাছের ঘের,পুকুর ও পানের বরজ।ভাসছে কৃষকের স্বপ্ন। আর কিছু দিন এভাবে পানি জমে থাকলে ভেসে যেতে ঘেরের মাছ।পঁচে যাবে পান।পান চাষি ঝন্টু বলেন, ঋন করে পানের বরজ দিয়েছি। বৃষ্টি সব কিছু শেষ করে দিলো।এরকম পানি আটকে থাকলে সব পান পঁচে যাবে।লোকসানে পরমু।
উপজেলা কৃষি অফিসার কৃষিবিদ আরাফাত হোসেন বলেন,এবছর ১১হাজার ১ শত ৫০ হেক্টর জমিতে আমন এবং ১০০ হেক্টর জমিতে পানের বরজ দিয়েছি কৃষকরা। রোপা আমনের তেমন ক্ষতি না হলেও পান চাষিদের ক্ষতির সম্ভাবনা রয়েছে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: আবহাওয়া


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ