Inqilab Logo

ঢাকা বৃহস্পতিবার, ০৩ ডিসেম্বর ২০২০, ১৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ১৭ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরী
শিরোনাম

কুষ্টিয়ায় নবনির্মিত সড়কে হঠাৎ ব্যারিকেড দিলো রেলওয়ে

কুষ্টিয়া থেকে স্টাফ রির্পোটার | প্রকাশের সময় : ২৬ অক্টোবর, ২০২০, ১২:৩০ পিএম

কুষ্টিয়ায় ব্যারিকেড দিয়ে নবনির্মিত সোয়া কিলোমিটার সড়ক বন্ধ করে দিয়েছে রেলওয়ে বিভাগ। নাগরিক সেবা ও শহরের যানজট নিরসনে উন্নয়নমূলক কাজের অংশ হিসেবে প্রায় কোটি টাকার বেশি ব্যয়ে রেলপথসংলগ্ন নতুন সড়কটি সম্প্রতি কুষ্টিয়া পৌরসভা নির্মাণ করে।

কিন্তু পথচারী-যান চলাচলের জন্য উন্মুক্তকরণের পর সড়কটির দুই পাশের প্রবেশমুখে ব্যারিকেড দিয়ে বন্ধ করে দেয় রেলওয়ে বিভাগ। এতে জনদুর্ভোগসহ শহরবাসীর মধ্যে ক্ষোভ সৃষ্টি হয়েছে। সড়কটি খুলে দেয়ার দাবিতে গণস্বাক্ষর সংগ্রহ ও মানববন্ধনও করেছে শহরবাসী।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, কোটি টাকার অধিক ব্যয়ে শহরের বাবুর আলী রেলগেট থেকে রেলওয়ে কোর্ট স্টেশন পর্যন্ত ১৫ ফিট চওড়া আরসিসি পাথর ঢালাই সোয়া কিলোমিটার সড়ক ও পানি নিষ্কাশনে ড্রেন নির্মাণ করা হয়। সম্প্রতি যানবাহনসহ শহরবাসীর চলাচলের জন্য সড়কটি উন্মুক্ত করা হয়।

কুষ্টিয়া শহরের (এনএস রোড) নবাব সিরাজউদ্দৌলা নামক প্রধান সড়কের যানজট এড়াতে এ সড়ক ব্যবহার করে আড়ুয়াপাড়া ও কোর্টপাড়াসহ শহরের কয়েকটি এলাকার হাজার হাজার মানুষ পৌরবাজার এবং রেলওয়ে কোর্ট স্টেশনে যাতায়াত করেন। পাশাপাশি এ সড়কসংলগ্ন একটি জামে মসজিদসহ অন্যান্য ধর্মীয় উপাসনালয়ও গড়ে উঠেছে।

সড়কটি নির্মাণকালে রেলওয়ে বিভাগের জোরালো আপত্তি না থাকলেও নির্মাণের পর গত ৬ অক্টোবর রেলওয়ে পাকশী ডিভিশনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও এস্টেট অফিসার মো. নুরুজ্জামান সরেজমিন উপস্থিত হয়ে সড়কটির দুই পাশের প্রবেশমুখেই ব্যারিকেড দিয়ে চলাচল বন্ধ করে দেন। পরবর্তীতে এ সড়কটি খুলে দেয়ার দাবিতে শহরবাসীর একাংশ আন্দোলনে নামেন।

আন্দোলনরতরা কুষ্টিয়া কালেক্টরেট চত্বরে মানববন্ধন ও সমাবেশ করেন। মানববন্ধন শেষে কুষ্টিয়া জেলা প্রশাসকের কাছে স্মারকলিপি দেন। এছাড়া জনস্বার্থে সড়কটি অবিলম্বে খুলে দিতে কুষ্টিয়া পৌরসভার মেয়র আনোয়ার আলী, রেলমন্ত্রী, সচিব ও পাকশী রেলওয়ে বিভাগকে চিঠি দেওয়া হয়।

পাকশী রেলওয়ে বিভাগ সূত্র জানায়, রেলপথের উচ্চতার চেয়ে বেশি উচ্চতায় সড়কটি নির্মাণ করা হয়েছে। এছাড়া রেললাইন থেকে বৃষ্টির পানি নিষ্কাশনের ব্যবস্থপনা না থাকায় সড়কটি বন্ধ করে দেওয়া হয়।

কুষ্টিয়া পৌরসভার নির্বাহী প্রকৌশলী মো. রবিউল ইসলাম জানান, রেলওয়ে বিভাগের এ সিদ্ধান্তের ফলে দুর্ভোগ পোহাচ্ছে শহরবাসী। রেলমন্ত্রীসহ ওই বিভাগের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের হস্তক্ষেপে বিষয়টি নিরসনে উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে।

এ ব্যাপারে রেলওয়ে পাকশী বিভাগীয় প্রকৌশলী বীরবল মন্ডল জানান, অনুমতি ছাড়াই রেলপথ সংলগ্ন সড়কটি কুষ্টিয়া পৌরসভা নির্মাণ করেছে। রেললাইন ঘেঁষে সড়ক নির্মাণের কোনো সুযোগ নেই বলে তিনি জানান।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: রেলওয়ে


আরও
আরও পড়ুন