Inqilab Logo

ঢাকা রোববার, ২৯ নভেম্বর ২০২০, ১৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ১৩ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরী

ভারতে বকেয়া বেতন চাওয়ায় কর্মীকে নির্মমভাবে পুড়িয়ে হত্যা!

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৭ অক্টোবর, ২০২০, ৮:১২ পিএম

কর্মী হিসেবে মালিকের কাছে চেয়েছিলেন ৫ মাসের বকেয়া বেতন। আর এটাই হলো তাঁর 'গুরু অপরাধ'। সেই অপরাধের সাজা দিতে ওই কর্মীকে জ্যান্ত পুড়িয়ে হত্যা করল ভারতের রাজস্থানের আলওয়ারের এক মদের দোকানের মালিক। পুলিশ ওই দোকানের ডিপফ্রিজার থেকে কমল কিশোর (২৩) নামে এক যুবকের দগ্ধ দেহ উদ্ধার করেছে।
মঙ্গলবার ভারতীয় গণমাধ্যমে এ বিষয়ে প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়। কমল কিশোরের বাড়ি রাজস্থানের আলওয়ারের কুমপুর গ্রামে। মদের দোকানে বিক্রয়কর্মী হিসেবে কাজ করতেন কমল। হঠাৎ করেই নিখোঁজ হয়ে যান তিনি। শেষ পর্যন্ত পুলিশ তল্লাশি চালিয়ে মদের দোকানের ফ্রিজ থেকে তার দেহ উদ্ধার করে।
মৃতের পরিবারের অভিযোগ, সুভাষ চন্দ্র ও রাকেশ যাদব দোকানটির মালিক। তারা বেতন আটকে রেখেছিলেন। বকেয়া সেই টাকা দাবি করায় তাঁরা পরিকল্পিতভাবে কমলকে খুন করে ফ্রিজারে দেহ লুকিয়ে রেখেছিলেন।
পুলিশের কাছে লিখিত অভিযোগে কমলের পরিবারের সদস্যরা জানান, গত শনিবার বিকেল ৪টার সময় তাদের বাড়িতে এসেছিলেন সুভাষ ও রাকেশ। কমলকে সঙ্গে নিয়ে তারা বেরিয়ে যান। ওই রাতে কমল আর বাড়িতে ফেরেনি।
পরদিন স্থানীয় কয়েকজন ওই দোকানের পেছনের দিকে আগুন জ্বলতে দেখেন। দোকানের একটি কন্টেইনারে আগুন লেগে যায়। আগুন দেখে স্থানীয়রা পুলিশকে খবর দেন। আগুন নেভানোর পর কন্টেইনারের ভেতরে রাখা ডিপ ফ্রিজ থেকে নিখোঁজ কমল কিশোরের দেহ উদ্ধার করে পুলিশ।
ভিওয়াদির পুলিশ সুপার রামমূর্তি যোগি জানান, মৃতের পরিবারের অভিযোগের ভিত্তিতে একটি এফআইআর দায়ের করা হয়েছে। দুর্ঘটনায় অগ্নিদগ্ধ হয়ে ওই ব্যক্তি মারা গেছেন নাকি জ্যান্ত পুড়িয়ে মেরে দেহ ডিপ ফ্রিজে ঢুকিয়ে দেওয়া হয়েছিল, পুলিশ তা তদন্ত করে দেখছে। মেডিকেল বোর্ড কমল কিশোরের দেহ ময়নাতদন্ত করেছে। সূত্র: হিন্দুস্তান টাইমস



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন