Inqilab Logo

ঢাকা শনিবার, ০৫ ডিসেম্বর ২০২০, ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ১৯ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরী

ধন্যি প্রেম!

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৩০ অক্টোবর, ২০২০, ১২:০১ এএম

কথায় বলে ইচ্ছা থাকলে উপায় হয়। সেক্ষেত্রে কোনও প্রতিক‚লতাই বাধা হয়ে দাঁড়াতে পারে না। সেকথাই যেন খেটে গেল ফিলিপিন্সের এক দম্পতির ক্ষেত্রে। কোনো বাধাই যে জীবনকে থমকে দিতে পারে না তা নিজেদের জীবনের বিশেষ মুহ‚র্ত উদযাপনের মাধ্যমে প্রমাণ করলেন তারা।
ঘূর্ণিঝড় কুইন্টার প্রভাবে ফিলিপাইনে দিনকয়েক ধরে ভারী বৃষ্টি চলছে। ঝোড়ো হাওয়াও রয়েছে। তার প্রভাবে নদীগুলোও বিপদসীমার ওপর দিয়ে বইছে। কিন্তু এমন প্রাকৃতিক বিপর্যয় যে আসবে তা আগে থেকে কারো জানা ছিল না। তাই তো চলতি মাসের ২৩ তারিখ বিয়ের অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছিলেন রনিল গুইলিপা এবং জেজিয়েল মাসৌলা। কিন্তু বিয়ে করতে চার্চে যাবেন কীভাবে? কারণ, চার্চের পথের নদী যেন প্রাকৃতিক বিপর্যয়ে যৌবন লাভ করেছে। হু হু করে বইছে। বিয়ে কি তবে পিছিয়ে দেয়া হবে? এ ভাবনাও ভেবেছিলেন পরিজনেরা। তবে তাতে তরুণ-তরুণীর মন সায় দিচ্ছিল না।
তাই বিয়ের দিন সকাল সকাল নির্ধারিত পোশাক পরে তৈরি হয়ে যান তারা। চার্চের উদ্দেশে বাড়ি থেকে বেরিয়ে পড়েন তারা। হবু স্ত্রীর সাদা পোশাক নষ্ট কিছুতেই হতে দেবেন না তরুণ। তাই নদী পার করার সময় উঁচু করে তুলে ধরেন মনের মানুষের পোশাক। প্রেমিকের শক্ত হাত পেলে কে না পথের বাধা পেরিয়ে এগোতে পারে? তাই তো প্রেমিকাও চার্চের পথে এগিয়ে চলেন তরতরিয়ে।
চার্চে দাঁড়িয়ে দু’জনে সারাজীবন একসঙ্গে পথ চলার অঙ্গীকারবদ্ধ হন। জীবনের বিশেষ মুহ‚র্তে অন্যরকম অভিজ্ঞতা হওয়ায় খুশি দু’জনেই। বিয়ের পর বৃষ্টির জন্য বেশ কিছুক্ষণ চার্চে অপেক্ষা করতে হয় তাদের। ঝড়বৃষ্টি পেরিয়ে বিয়ের ছবি এখন সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল। ধন্যি প্রেম, তাঁদের দেখে বলছেন অনেকেই। সূত্র : নিউজ১৮।

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: বিয়ে

২০ নভেম্বর, ২০২০
১২ নভেম্বর, ২০২০
৩০ অক্টোবর, ২০২০

আরও
আরও পড়ুন