Inqilab Logo

ঢাকা শনিবার, ০৫ ডিসেম্বর ২০২০, ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ১৯ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরী

সাভার-আশুলিয়া-ধামরাইয়ে মুসল্লিদের বিক্ষোভ

সাভার থেকে স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ৩০ অক্টোবর, ২০২০, ৫:০৪ পিএম | আপডেট : ৬:০৯ পিএম, ৩০ অক্টোবর, ২০২০

মুসলিম জাতির শ্রেষ্ঠ নবী হজরত মুহাম্মদ (সা.) কে অবমাননার প্রতিবাদে সাভার, আশুলিয়া ও ধামরাইয়ে বিক্ষোভ মিছিল করেছে মুসল্লিরা।
শুক্রবার জুম্মার নামাজের পরপরই বিভিন্ন মসজিদ, মাদ্রাসা ও সাধারণ মুসল্লিরা ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের সাভার বাস স্ট্যান্ড এলাকায় একত্রিত হতে থাকে। কয়েক মিনিটের ভেতরেই হাজার হাজার মুসল্লিদের পাদচারণায় সাভার বাজার বাসস্ট্যান্ডের সিটি সেন্টারের সামনে মহাসড়ক ও ধসেপড়া রানাপ্লাজার সামনে মহাসড়ক যানচলাচল বন্ধ হয়ে যায়। আশুলিয়ার নবীগরগামী লেন, বাইপাইল বাসস্ট্যান্ড অবরোধ হয়ে পরে। সৃষ্টি হয় তীব্র যানজটের।

এসময় মুসুল্লীরা ফ্রান্সের সাথে কুটনৈতিক সম্পর্ক বিছিন্ন করতে দাবি জানান। এছাড়া মিছিলে ফ্রান্সের পণ্যের ছবি সংযুক্ত করে লিফলেট বিতরণ করা হয়।
সাভার উপজেলা হেফাজতে ইসলামের আহবায়ক হজরত মওলানা আব্দুল মান্নান বলেন, বিভিন্ন আরব রাষ্ট্র ফ্রান্সের পণ্য বয়কট করেছে। সরকারি ভাবে ঘোষণা চাই ফ্রান্সের পণ্য বাংলাদেশে চলবে না চলতে দেওয়া হবে না। আগামি সংসদ অধিবেশনে ফ্রান্সে মহানবী হজরত মুহাম্মদ (সা.) ব্যঙ্গচিত্র পর্দশনের প্রতিবাদে নিন্দা প্রস্তাব পাশ করারও দাবী তুলেন।

এদিকে একই দাবীতে ধামরাইয়ে বিক্ষোভ করেছে শত শত মুসুল্লিরা। ফ্রান্সে প্রিয় মহানবী হয়রত মুহাম্মদ (সাঃ)কে নিয়ে কটাক্ষ ও ব্যঙ্গচিত্র করার প্রতিবাদে ধামরাইয়ের কালামপুর ভালুম কলেজ মাঠের পাশে জুম্মার নামাযের পর উলামা মাশায়েখ ও সর্বস্তরের তৌহিদী জনতার ব্যানারে প্রতিবাদ সমাবেশ ও বিক্ষোভ মিছিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। সমাবেশে কয়েকটি মসজিদের মুসল্লীরা খন্ড খন্ড মিছিল নিয়ে যোগ দেন। এসময় তারা বিশ্ব নবীর অপমান কোন মুসলাম সহ্য করবে না বলে জানান। মুসল্লীরা বলেন, বিশ্ব নবী বিশ্বের মুসলমানদের হৃদয়ের স্পন্দন। তাই নবীর ব্যঙ্গচিত্র ও কটাক্ষকারী দেশ ফ্রান্সের সকল পন্য বর্জনের ঘোষণা দেন তারা।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: বিক্ষোভ


আরও
আরও পড়ুন