Inqilab Logo

ঢাকা শনিবার, ২৮ নভেম্বর ২০২০, ১৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ১২ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরী
শিরোনাম

পবিত্র মক্কা শরীফকে নিয়ে কটূক্তি করলো ইবি শিক্ষার্থী, শাস্তি দাবি

ইবি সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ৩১ অক্টোবর, ২০২০, ৪:৪৫ এএম

হযরত মুহম্মদ (সঃ) এর ব্যঙ্গচিত্র ফ্রান্সের ম্যাগাজিনে ছাপানোর পক্ষে যৌক্তিকতা, পবিত্র মক্কা শরীফ ও পবিত্র জমজম কূপকে তথাকথিত মক্কা ও তথাকথিত জমজম কূপ বলে তাচ্ছিল্য করে ফেসবুকে পোস্ট দেন ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে (ইবি) আরবি ভাষা ও সাহিত্য বিভাগের সাইফুল্লাহ আল হাদী (২০১৭-১৮) নামের এক শিক্ষার্থী। শুক্রবার দুপুর ২টার দিকে সে তার নিজেস্ব ফেসবুক টাইমলাইনে এসকল মন্তব্য করে পোস্ট করেন।

পরে বিষয়টি বিভিন্ন স্যোসাল মিডিয়াতে তার পোস্টটি স্কিনশর্ট দিয়ে পোস্ট করা হলে শিক্ষার্থীদের পক্ষ থেকে তার বিরুদ্ধে আইনুযায়ী ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি করেন শিক্ষার্থীরা। পরে সন্ধ্যা ৬ টার দিকে হাদী তার টাইমলাইন থেকে পোস্টটি ডিলিট করে সকলের কাছে ক্ষমা প্রার্থনা করেন।

এদিকে তার বিরুদ্ধে ছাত্রত্ব বাতিলসহ তাকে আইনের আওতায় এনে বিচারের ব্যবস্থা করার জোর দাবি জানিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা।

এ ব্যাপারে নুর মুহম্মদ নামে তার এক সহপাঠী কমেন্টে জানান, “ সে সত্যিই এমন মন্তব্য করে থাকে তাহলে আইনের আওতায় আনার জন্য প্রশাসনের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি। এর আগেও তার বিরুদ্ধে এরকম ঘটনার অভিযোগ রয়েছে। সে আসার বন্ধু কিন্তু যখন আমাদের ধর্মীয় বিষয় নিয়ে বাজে মন্তব্য করবে তখন তার আর কোন পরিচয় থাকে না।”

এ বিষয়ে হাদীর মন্তব্য জানতে চাইলে তিনি বলেন, “মূলত আমি ফ্রান্সকে নিয়ে আমি পূর্ণাঙ্গ ধারণা দিতে চেয়েছিলাম। ইসলামকে আঘাত করার কোন উদ্দেশ্য আমার ছিল না।”

এবিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. পরেশ চন্দ্র বর্ম্মণ বলেন, “আমরা বিষয়টি তার বিভাগে জানিয়েছি। বিভাগ একাডেমিক কমিটির সাথে কথা বলে ব্যবস্থা নিবেন।”



 

Show all comments
  • ইউসুফ ৩১ অক্টোবর, ২০২০, ৬:১০ এএম says : 0
    এই রকম ম‍্যাখো বাংলার ঘরে ঘরে পয়দা।য়ে আছে হাজার হাজার। কারণ আমি আমার সন্তানকে শিক্ষা দিব অনিসলামিক আর আশা করব অন‍্য কিছু এটাতো হতে পারে না। আমি তাল গাছ লাগালে তালের আশাই করতে হবে নারকেল না।
    Total Reply(1) Reply
    • abul kashem ৩১ অক্টোবর, ২০২০, ৬:৩৪ পিএম says : 0
      You are right brother Eusuf.
  • Nannu chowhan ৩১ অক্টোবর, ২০২০, ৭:০৩ এএম says : 0
    Prothome prosnno islami bishsho biddaloye hindu proctor keno? Tarpor bolte chai mosolman namdhari kisu monafiq kushontan jader kono dhormio shikkha nai,era amader mosolmander ghore jonmo nia poshchimma vogh bilashitar jibone akrishto hoye islam biruddhi monttobbo o biddeshe sorachse jate kore poshchimma bishshe dhormio vabe henasta hochse bole manobik asroy paowa jai. Eder biruddhe shottikar kono shastir bebosta na thakai era dine dine lagamhin hoye amader shongkha gorishto mosolmander dhormio onuvutite bar bar aghat kore jachse,etar shuraha srighroy shorkrke korte hobe,iha amader shongkha gorishto moslmander dabi...
    Total Reply(0) Reply
  • amir ৩১ অক্টোবর, ২০২০, ১১:৪১ এএম says : 0
    kulanger ar fasi chi
    Total Reply(0) Reply
  • মুহাম্মদ ৩১ অক্টোবর, ২০২০, ১২:৩০ পিএম says : 0
    কওমী দেওবন্দী হাটহাজারী মাদ্রাসার ওলামায়ে কেরাম একমাত্র হকের উপর আছেন ।
    Total Reply(0) Reply
  • তুষার আহমেদ ৩১ অক্টোবর, ২০২০, ৩:৫৭ পিএম says : 0
    তার দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি হওয়া দরকার
    Total Reply(0) Reply
  • Gazi HM Tanvir ৩১ অক্টোবর, ২০২০, ৪:২৯ পিএম says : 0
    দীর্ঘদিন ওপর সাথে থেকে এমন কুরুচিপূর্ন মন্তব্য অনেক সহ্য করতে হয়েছে। এখনতো দেখি সব সিমা ছারিয়ে গেছে। এমন বন্ধু পরিচয় দেয়ার আগে নিজেকে পরিচয় দিতে ঘৃণা লাগে। ও দুনিয়াতে থাকার অধিকার রাখেনা,,, ওরে ফাঁসি দেয়া হোক। যা দেখে সব কুলাঙ্গার সোজা হয়ে যাবে,,,
    Total Reply(0) Reply
  • Ali Hossain ৩১ অক্টোবর, ২০২০, ৬:১৯ পিএম says : 0
    আমাদের দেশের কিছু মা-বাবা তাদের সন্তান জন্ম দিয়েছেন ঠিকই কিন্তু প্রকৃত শিক্ষা দিতে পারেননি। এসব মা-বাবা দের জবাব দিহি করা দরকার।
    Total Reply(2) Reply
    • Mohammad Mukith ৩১ অক্টোবর, ২০২০, ৭:৫৫ পিএম says : 0
      সমাজের চারিধারে যদি কুলাঙ্গারদের মার্কেট বসে সেখানে মা-বাবা কি-ই বা করতে পারেন! মা-বাবার দায়িত্ব থাকে প্রাইমারী স্কুলের বয়স পর্যন্ত। ভার্সিটিতে গিয়ে যারা কুলাঙ্গার হয়, তারা সমাজের দোষে ও চাপে পড়েই হয়। শুধু মা-বাবাকে দোষারোপ করে লাভ নেই।
    • Mohammad Mukith ৩১ অক্টোবর, ২০২০, ৭:৫৭ পিএম says : 0
      সমাজের চারিধারে যদি কুলাঙ্গারদের মার্কেট বসে সেখানে মা-বাবা কি-ই বা করতে পারেন! মা-বাবার দায়িত্ব থাকে প্রাইমারী স্কুলের বয়স পর্যন্ত। ভার্সিটিতে গিয়ে যারা কুলাঙ্গার হয়, তারা সমাজের দোষে ও চাপে পড়েই হয়। শুধু মা-বাবাকে দোষারোপ করে লাভ নেই।
  • মোঃ জামির হোসেন ৩১ অক্টোবর, ২০২০, ১১:৪৯ পিএম says : 0
    দোষ যতটা না ঐ কুলাঙ্গারের তার চেয়ে বেশী দেশের শিক্ষা ব্যাবস্থার ও তার অভিভাবকদের। তারা শুধুই তাকে নাস্তিকতার শিক্ষায় দিয়েছে, মানবতার কোন শিক্ষা যা ইসলামী শিক্ষার মধ্যে নিহিত তা দেয় নাই।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: কটূক্তি


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ