Inqilab Logo

ঢাকা রোববার, ২৯ নভেম্বর ২০২০, ১৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ১৩ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরী

ইলিশ নিয়ে যাচ্ছে ভারতীয়রা

হাত গুটিয়ে আছে দেশীয় জেলেরা

রাজশাহী ব্যুরো : | প্রকাশের সময় : ১ নভেম্বর, ২০২০, ১২:০১ এএম

সরকারি নিষেধাজ্ঞায় ইলিশ ধরা নিষিদ্ধ। বাংলাদেশি জেলেরা তাই হাত গুটিয়ে বসে আছে। অন্যদিকে ভারতীয় জেলেরা বাংলাদেশের নৌ-সীমা থেকে ইলিশ শিকার করে নিয়ে যাচ্ছে। বাংলাদেশে মৎস্য শিকারে নিষেধাজ্ঞা চলাকালে প্রতিবছরই ভারতীয়রা ইলিশ ধরে নিয়ে যায়। এবারো তার ব্যাতিক্রম নয়। এমনি অভিযোগ পদ্মা পাড়ের জেলেদের। আবার সরকারী খাদ্য সহায়তাও জুটছে না সবার ভাগ্যে। জেলেরা বলছেন, নদীর পাড়ে দাঁড়িয়ে তারা ভারতীয়দের মাছ ধরে নিয়ে যাওয়া দেখছেন। কিন্তু তাদের ঘরে খাবার নেই। মাছ ধরার অনুমতিও নেই।

ইলিশ মাছের প্রজনন নির্বিঘœ করতে ২২ দিনের জন্য নদ-নদীতে সব ধরনের মাছ ধরা, বিক্রি, বিপণন, মজুত ও পরিবহন নিষিদ্ধ। মৎস্য অধিদফতর এই নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে। নিষেধাজ্ঞা লঙ্ঘন করা হলে জেল-জরিমানার বিধান রয়েছে অভিযানও চলছে। জাল কেড়ে পুড়িয়ে ফেলার ঘটনাও ঘটছে। বাংলাদেশে নদ-নদীতে মৎস্য শিকার বন্ধ থাকায় সরকার জেলেদের খাদ্য সহায়তা হিসেবে মাথাপিছু ২০ কেজি করে চাল দিচ্ছে। কিন্তু শতভাগ জেলে এই চাল পাচ্ছেন না। ফলে তারা মানবেতর জীবনযাপন করছেন।

রাজশাহীর পবা উপজেলার নবগঙ্গা মৎস্যজীবি সমবায় সমিতির সদস্যরা ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, তাদের সমিতির নিবন্ধনও আছে। সদস্য সংখ্যা ২২। কিন্তু এই সমিতির একজন জেলেও সরকারের খাদ্য সহায়তা পাননি। সমিতির সাধারণ সম্পাদক আইনাল হক বলেন, ভারতীয়রা চোখের সামনে মাছ ধরে নিয়ে যাচ্ছে। কিন্তু আমরা মাছ ধরতে পারছি না। সরকার আমাদের সহায়তাও করছে না। পদ্মায় এবার এমনিতেই ইলিশ কম। তারপরও ভারতীয় জেলেরা ইলিশ শিকার করছেন। পেটে ক্ষুধা নিয়ে নদীর পাড়ে দাঁড়িয়ে তারা সেই দৃশ্য দেখছেন। তাদের ইলিশ তো দূরের কথা, জাল নিয়ে পদ্মায় নামারই অনুমতি নেই।

পদ্মায় মাছ ধরা বন্ধ রাখতে মৎস্য অধিদফতর, নৌ-পুলিশ ও বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ সম্মিলিতভাবে অভিযান চালাচ্ছে। গত মঙ্গলবার রাজশাহীর পদ্মা নদীর বাবলাবন নামক স্থান থেকে দুই লাখ ২৫ হাজার মিটার অবৈধ কারেন্ট জাল জব্দ করে মৎস্য অধিদফতর ও নৌ-পুলিশ। পরে জালগুলো পাড়ে এনে পুড়িয়ে ফেলা হয়। এই অভিযানে ছিলেন নৌ-পুলিশের পরিদর্শক মেহেদী মাসুদ।
তিনি বলেন, বাবলাবন এলাকাটি একেবারেই সীমান্ত এলাকা। সেখানে নির্দিষ্ট করে ভারত-বাংলাদেশ সীমান্ত চিহ্নিত করা কঠিন। আমরা সেইখানে জেলেদের নৌকা নিয়ে জাল ফেলে মাছ ধরতে দেখি। সেদিকে এগিয়ে যাই। আমাদের দেখে জেলেরা জাল ফেলে ভারতের দিকে পালিয়ে যায়। আমরা জালগুলো তুলে নিয়ে আসি। জেলেরা ভারতে ঢুকে পড়ায় আটকের জন্য তাদের পিছু নেয়া যায়নি। পুলিশের এই কর্মকর্তার ধারণা, ওই জেলেরা ভারতীয়।

গত বছর ইলিশ শিকারে নিষেধাজ্ঞা চলাকালে রাজশাহীর চারঘাট উপজেলার বালুঘাট এলাকায় ঢুকে পড়েছিলেন ভারতীয় জেলেরা। বাংলাদেশের অভ্যন্তরে ঢুকে পড়ায় মৎস্য কর্মকর্তার উপস্থিতিতে তিন জেলেকে আটক করার চেষ্টা করে বিজিবি। তখন দুজন পালিয়ে যান এবং একজনকে আটক করে নদীর এপারে নিয়ে আসা হয়। আটক ব্যক্তি ভারতীয় নাগরিক বলে বিজিবি নিশ্চিত হয়।
কিছুক্ষণ পর ভারতীয় সীমান্ত রক্ষী বাহিনী-বিএসএফের চার সদস্যের একটি টহল দল স্পিডবোট নিয়ে বাংলাদেশের অভ্যন্তরে বিজিবির টহল দলের কাছে আসে এবং আটক ভারতীয় নাগরিককে ছেড়ে দিতে বলে। আটক ভারতীয় নাগরিককে পতাকা বৈঠকের মাধ্যমে হস্তান্তর করা হবে বলে জানালে তারা ভারতীয় নাগরিককে ছিনিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করেন।

এতে বিজিবি সদস্যরা বাধা দিলে বিএসএফ সদস্যরা বিজিবির ওপর ছয় থেকে আটটি গুলি করেন। আত্মরক্ষার জন্য বিজিবির সদস্যরা গুলি চালালে বিএসএফ গুলি করতে করতে দ্রুত স্থান ত্যাগ করেন। এই গোলাগুলির ঘটনায় বিএসএফের এক সদস্য ওপারে যাওয়ার পর মারা যান। তারপর কয়েক মাস রাজশাহী কেন্দ্রীয় কারাগারে বন্দী থাকার পর ভারতীয় ওই জেলে গোপনে জামিন নিয়ে পালিয়ে যান।

গত বছর পদ্মায় ইলিশ ধরাকে কেন্দ্র করে এ ধরনের আলোচিত ঘটনা ঘটলেও এবারও ভারতীয় জেলেরা আসছেন। রাজশাহীর পবা উপজেলা মৎস্য দফতরের স¤প্রসারণ কর্মকর্তা মাহমুদুর রহমান বলেন, এবার নদীতে বাংলাদেশী জেলে পাওয়া যাচ্ছে না বললেই চলে। তবে অনেক সময় ভারতীয় জেলেদের নৌকা দেখতে পাচ্ছি। কিন্তু তারা একেবারেই সীমান্ত এলাকায় থাকায় আমরা সেখানে যেতে পারছি না। অন্তত এক কিলোমিটার দূর থেকেই আমাদের অভিযান চালাতে হচ্ছে। তবে ইলিশ রক্ষায় দুই দেশ যদি সম্মিলিতভাবে এই নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে তাহলে ভাল হয়। ভারতে এখন ইলিশ ধরায় নিষেধাজ্ঞা নেই।
বিজিবির রাজশাহীর ১ ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল ফেরদৌস জিয়াউদ্দিন মাহমুদ বলেন, আমরা সব সময় প্রস্তুত আছি। মৎস্য বিভাগ ডাকামাত্রই আমরা নদীতে অভিযানে যাচ্ছি। তথ্য নিয়ে দেখেছি, এবার পদ্মা নদীতে দুই দেশেরই জেলেদের উপস্থিতি কম।

কারণ হিসেবে বিজিবির এই কর্মকর্তা বলেন, গত বছর নিষেধাজ্ঞার সময় একটা ঘটনা ঘটেছিল। বিএসএফ গুলিবর্ষণ করেছিল। আত্মরক্ষায় আমাদেরও গুলি করতে হয়েছিল। তাই সতর্কতার অংশ হিসেবে এবার কম জেলে আসতে পারে। ইলিশ রক্ষার জন্য আমাদের অবস্থান গতবছর যেমন ছিল, এবারও তেমনই আছে। সরকারি নির্দেশনা আমরা বাস্তবায়ন করব।



 

Show all comments
  • Refayet Hasina ১ নভেম্বর, ২০২০, ১:০১ এএম says : 0
    দেশীয় জেলেরা কি করবে বলুন?নিষেধাজ্ঞা তো কেবল আমাদের জন্য।
    Total Reply(0) Reply
  • Jomadder Mizan ১ নভেম্বর, ২০২০, ১:০১ এএম says : 0
    স্পীড বোর্ড নিয়ে এখন তারা করেন না কেন!
    Total Reply(0) Reply
  • Mohammed Ibrahim ১ নভেম্বর, ২০২০, ১:০১ এএম says : 0
    ভারত বলছিলো ইলিশ রক্ষায় যৌথ অভিযান চালাবে! এখন একক অভিযান চালাচ্ছে
    Total Reply(0) Reply
  • Golam Rahman ১ নভেম্বর, ২০২০, ১:০১ এএম says : 0
    তারপরেও তো বাংলাদেশ ওদের চাইতে বেশী ইলিশ ধরে।
    Total Reply(0) Reply
  • সৎ পথে চলো ১ নভেম্বর, ২০২০, ১:০২ এএম says : 0
    বাংলাদেশি জেলেদের জন্য নিষিদ্ধ, আমাদের মনে রাখতে হবে স্বাধীনতা এনে দিয়েছে ওরা
    Total Reply(0) Reply
  • Sohag Khan ১ নভেম্বর, ২০২০, ১:০২ এএম says : 0
    সরকার ভারতকে খুশি রেখে ক্ষমতায় থাকতে চায় দেশের মানুষকে নয়।
    Total Reply(0) Reply
  • Rakibul Islam ১ নভেম্বর, ২০২০, ১:০৩ এএম says : 0
    ভারতীয় জেলেরা যাতে নিরাপদে মাছ ধরতে পারে সেজন্য আমাদের জেলেদের উপর নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়েছে!
    Total Reply(0) Reply
  • রাগিনী মেয়ে ১ নভেম্বর, ২০২০, ১:০৪ এএম says : 0
    জাগো মানুষ হটাও ভারতীয় পাঁ চাটা গোলাম ভোট ডাকাত।
    Total Reply(0) Reply
  • মেহেদী ১ নভেম্বর, ২০২০, ১:০৪ এএম says : 0
    আমাদের বিজিবি এই গুলো দেখে না। ভারতের জেলে পিঠিয়ে চামড়া তূলে লবন লাগিয়ে দেন। সরকারের কারণে ওরা নারয়ন সাহস পায়। আমাদের খুব দুর্রভাগ্য জাতী
    Total Reply(0) Reply
  • Mohammed Kowaj Ali khan ১ নভেম্বর, ২০২০, ৪:১৩ এএম says : 0
    নিষেধাজ্ঞা তো করাই হইয়াছে ভারতীয় জেলেদের মাছ ধরার জন্য। ..................
    Total Reply(0) Reply
  • Ibrahim ১ নভেম্বর, ২০২০, ৭:৫৫ এএম says : 0
    সবাই বুঝতে পেরেছেন কি হচ্ছে কিন্তু ........ তাই সবাইকে রাজ পথে নামতে হবে
    Total Reply(0) Reply
  • Nannu chowhan ১ নভেম্বর, ২০২০, ৭:৫৬ এএম says : 0
    Bah,ki chomotkar amader desher gorib jelera na khaia ma eilish shongrokkhone shorkarke shohojogita korse ar varotio jelera shob nia jaitese,amader ki coast guard o navel force gale hat dia boisha asen kokhon shorkari order ashbe ?
    Total Reply(0) Reply
  • Shariful Bashar ১ নভেম্বর, ২০২০, ৪:০০ পিএম says : 0
    আমরা তো এই নিষেধাজ্ঞার সুফল অতীতে পেয়েছি, তাহলে এত হতাশ হচ্ছি কেন? ওজুহাত তৈরি করে কি ইলিশ ধরার নিষেধাজ্ঞা তুলে দেওয়ার ওজুহাত খুঁজছি? সমুদ্রের আশপাশ থেকে কিছু ইলিশ ধরলে ইলিশ প্রযোজনে তেমন একটা প্রভাব পড়বে বলে মনে হয় না,কারন মা ইলিশ ডিম পাড়তে সাগর থেকে নদী গুলোতে (বিশেষ করে লক্ষীপুর,ভোলা,পটুয়াখালী ও বরগুনা জেলার নদীগুলোতে) উঠে আসে। ডিম পেড়ে নিরাপদে মা ইলিশ যেন সাগরে ফিরে যেতে পারে সেই জন্য এই নিষেধাজ্ঞা। এর সুফল আমার হাতেনাতে পেয়েছিও। গত বেশকিছু বছর আমাদের দেশে ইলিশ মাছ আগের বছরের তুলনায় বেড়েছে। কোন ওজুহাত না,কড়াকড়ি দেশের ভিতরে যেমন সাগরের সিমান্তেও তেমন চালিয়ে যেতে হবে,কোনক্রমেই শিথিলতা দেখানো যাবেনা। ন্যাশনাল ইন্টারেস্ট বলে কথা, এখানে কোন ছাড় নেই।
    Total Reply(0) Reply
  • Parag Malakar ১ নভেম্বর, ২০২০, ১০:১৪ পিএম says : 0
    Rules and Regulations should be same for Bangladesh and India. Otherwise it will not be fruitful Hilsha Mission.
    Total Reply(0) Reply
  • Robin mahmud ১ নভেম্বর, ২০২০, ১০:১৪ পিএম says : 0
    সরকার বাংলাদেশের জেলেদের চোখে দেখে। ভারতীয় জেলেদের বেলায় অন্ধ হয়ে যায়।
    Total Reply(0) Reply
  • Parag Malakar ১ নভেম্বর, ২০২০, ১০:১৪ পিএম says : 0
    Rules and Regulations should be same for Bangladesh and India. Otherwise it will not be fruitful Hilsha Mission.
    Total Reply(0) Reply
  • Omar Faruk ২ নভেম্বর, ২০২০, ২:২৫ পিএম says : 0
    গোলাগুলির ঘটনায় বিএসএফের এক সদস্য ওপারে যাওয়ার পর মারা যান। তারপর কয়েক মাস রাজশাহী কেন্দ্রীয় কারাগারে বন্দী থাকার পর ভারতীয় ওই জেলে গোপনে জামিন নিয়ে পালিয়ে যান। কিন্তু কেউ জানে না ????????????
    Total Reply(0) Reply
  • Ariyar rahman Arif ২ নভেম্বর, ২০২০, ৬:২০ পিএম says : 0
    ভারত তো আমাদের রাতের বন্ধু,,,
    Total Reply(0) Reply
  • Robin ২ নভেম্বর, ২০২০, ৭:০৪ পিএম says : 0
    ভারত কখনো কথা দিয়ে কথা রাখে না। বাংলাদেশের জল সিমানায় যেন ভারতীয় জেলেরা ঢুকতে না পারে সে দিকে খেয়াল করা অতীব জরুরী।
    Total Reply(0) Reply
  • Sarwar Chowdhury ৫ নভেম্বর, ২০২০, ১০:১০ পিএম says : 0
    ওনারা তো প্রভু আর আমরা করুনাপ্রাপ্ত স্বাধিন সার্বভৌম রাস্ট্রের গরু চোরের জাতি।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ইলিশ

৫ নভেম্বর, ২০২০
২৪ অক্টোবর, ২০২০
১৮ অক্টোবর, ২০২০

আরও
আরও পড়ুন