Inqilab Logo

ঢাকা, বৃহস্পতিবার ১৮ জুলাই ২০১৯, ০৩ শ্রাবণ ১৪২৬, ১৪ যিলক্বদ ১৪৪০ হিজরী।

স্বাধীনতা দিবসে দলিতদের বিক্ষোভ সরকারের প্রতিশ্রুতি প্রত্যাখ্যান

মোদির নিজ এলাকা গুজরাটে ২৫ বছরে ৫৩৬ জন দলিতকে হত্যা এবং ৭৫০ দলিত নারী ধর্ষণের শিকার হয়েছে

প্রকাশের সময় : ১৭ আগস্ট, ২০১৬, ১২:০০ এএম

ইনকিলাব ডেস্ক : ভারতে স্বাধীনতা দিবসেও বিক্ষোভ করে দলিতরা। বিক্ষোভে হাজার হাজার দলিত অংশ নিয়ে তাদের উপর নির্যাতনের প্রতিবাদ জানায়। ভারতে মরা গরু টানা ও চামড়া ছাড়ানোর দুরুহ কাজটি করেন দলিতরা। তারা আর একাজ করবে না বলে হুঁশিয়ার করেছে। এজন্য তাদের খুব সামান্য পারিশ্রমিক দেয়া হয় বলে অভিযোগ। এছাড়াও তাদের উপর উগ্র হিন্দুদের হামলা প্রায় নিত্য দিনের ঘটনায় পরিণত হয়েছে। দেশটির ২০ কোটি দলিত জনগোষ্ঠীর মধ্যে গুজরাটে বাস করে ২.৩ শতাংশ। কেবল গত বছরই দলিত নির্যাতনের এক হাজারেরও বেশি মামলা হয়েছে। ভারতের স্বাধীনতা দিবসে উনায় একটি সরকারি স্কুলে জাতীয় পতাকা ধরে আছেন দলিত নারী রাধিকা ভেমুল্ডা। জানুয়ারিতে তার ছেলে হায়দ্রাবাদ বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র রোহিত ভেমুল্ডা আত্মহত্যা করেন। গত মাসে চারজন দলিত তরুণকে গরু হত্যার মিথ্যা অভিযোগে ব্যাপক মারধর করে উগ্র হিন্দুরা। দেশজুড়ে বিক্ষোভের জন্ম দিয়েছিল সেই ঘটনা। এদিকে, রাজধানী নয়াদিল্লিতে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি স্বাধীনতা দিবসের ভাষণে সামাজিক ঐক্য সংহতির কথা বলেন। নিচু শ্রেণীর জনগোষ্ঠীর জীবনমান উন্নয়নে সরকারের প্রতিশ্রুতি পুনর্ব্যক্ত করেন তিনি। একইদিনে উনায় হিন্দু সমাজের নিচু জাত বলে পরিচিত দলিতরা বিক্ষোভ থেকে সরকারের প্রতিশ্রুতি প্রত্যাখ্যান করেন। মোদির রাজ্য গুজরাটের সমাবেশে দলিতরা স্লোগান দিয়ে বলেন, সরকারের এমন গালভরা কথা শুনে শুনে আমরা ক্লান্ত। এ সময় তারা হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেন, আমরা আর কখনো মরা গরু টানব না। গরুর চামড়াও ছাড়াব না। সমাবেশে জওহরলাল নেহরু বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রনেতা কানহাইয়া কুমারও উপস্থিত ছিলেন। ফেব্রুয়ারিতে রাষ্ট্রদ্রোহিতার অভিযোগে আটক হন কানহাইয়া। ১৯৯০-২০১৫ সাল সময়ে গুজরাটে ৫৩৬ দলিত হত্যা এবং ৭৫০ দলিত নারী ধর্ষণের শিকার হয়েছেন। কিছুদিন আগে গুজরাটের রাজধানী আহমেদাবাদ থেকে ৩০০ কিলোমিটার দূরে উনা জেলায় গোহত্যার অভিযোগে চার দলিত যুবককে হেনস্থা করার অভিযোগ ওঠে স্থানীয় গোরক্ষা কমিটির সদস্যদের বিরুদ্ধে। ওই চার দলিতকে মারধরের পাশাপাশি তাদের নগ্ন করে গাড়ির পেছনে বেঁধে কয়েক কিলোমিটার নিয়ে যাওয়া হয়। এরপর ওই ভিডিওটি সামাজিক যোগাযোগের ওয়েবসাইটে পোস্ট করা হলে ক্ষোভে ফেটে পড়ে দলিত সম্প্রদায়ের মানুষরা। বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের তরফে ওই ঘটনার তীব্র প্রতিবাদ জানানো হয়। এমনকি ভারতে পার্লামেন্টও এই বিষয় নিয়ে উত্তাল হয়। এনডিটিভি।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ