Inqilab Logo

ঢাকা সোমবার, ২৫ জানুয়ারি ২০২১, ১১ মাঘ ১৪২৭, ১১ জামাদিউস সানী ১৪৪২ হিজরী

মাদারীপুরে কলেজের শিক্ষকে কুপিয়ে জখম: প্রতিবাদে শিক্ষক, শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সভা

মাদারীপুর জেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ১ নভেম্বর, ২০২০, ৪:০৯ পিএম

মাদারীপুরের কালকিনি সৈয়দ আবুল হোসেন কলেজের ইতিহাস বিভাগের প্রভাষক আরিফুর রহমানকে (২৯) কুপিয়ে গুরুতর জখম করা হয়েছে। শনিবার রাত ৭টার দিকে কলেজ ক্যাম্পাসে এ ঘটনা ঘটে। শিক্ষকের উপর হামলার ঘটনায় রোববার সকাল ১১ টায় কলেজ ক্যাম্পাসে শিক্ষক, শিক্ষার্থীরা মানববন্ধন ও প্রতিবাদসভা করে।
পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, শনিবার রাত ৭টার দিকে কলেজ ক্যাম্পাসে এক বন্ধুকে নিয়ে সন্ধ্যার পরে শারিরিক চর্চার জন্য হাঁটতে বের হয় সৈয়দ আবুল হোসেন বিশ^বিদ্যালয়ের ইতিহাস বিভাগের প্রভাষক আরিফুর রহমান। পরে বন্ধুবন্ধু সৈনিক লীগ নামে কালকিনি উপজেলার সভাপতি পরিচয়দানকারী দিদার মোল্লা ধারালো অস্ত্র দিয়ে অতর্কিতভাবে কুপিয়ে জখম করে। এ সময় আরিফের চিৎকারে আশপাশের লোকজন এগিয়ে আসলে পালিয়ে যায় দিদার মোল্লা। আহত অবস্থায় ওই প্রভাষককে কালকিনি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। শিক্ষকের উপর হামলার ঘটনায় রোববার সকাল ১১ টায় কলেজ ক্যাম্পাসে শিক্ষক, শিক্ষার্থীরা মানববন্ধন ও প্রতিবাদসভা করে। পরে শিক্ষকরা কালকিনি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আলমগীর হোসেন এর কাছে হামলার প্রতিবাদে স্মারক লিপি প্রদান করেন। মানববন্ধনে শিক্ষকরা ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে দোষী দিদার মোল্লার গ্রেফতার দাবি করেন বলেন, কলেজের অধ্যক্ষ মো. হাসানুল সিরাজীর ইন্ধনে বহিরাগত দিদার মোল্লা এ ন্যাক্করজনক হামলা চালিয়েছেন। কলেজের অধ্যক্ষের অনিয়ম, দুর্নীতি ও অব্যবস্থাপনার বিরুদ্ধে শিক্ষকরা দীর্ঘদিন যাবৎ আন্দোলন করে আসায় সেই আন্দোলনকে নস্যাৎ করার জন্য তিনি দিদার মোল্লাকে দিয়ে এ হামলা চালিয়েছেন। মানববন্ধনে শিক্ষকরা দিদার মোল্লার গ্রেফতার ও অধ্যক্ষ হাসানুল সিরাজীর পদত্যাগ দাবি করেন।
কালকিনি সৈয়দ আবুল হোসেন কলেজের শিক্ষক পরিষদের সাধারণ সম্পাদক ইয়াকুব খান শিশির বলেন, আমাদের কলেজের শিক্ষকের উপর সন্ত্রাসী হামলার ঘটনায় রাতেই কালকিনি থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। পুলিশ এখন পর্যন্ত হামলাকারীকে গ্রেফতার করেনি। আমরা হামলাকারীকে দ্রুত গ্রেফতার এবং দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তির দাবি জানাই।
কালকিনি থানার অফিসার ইনচার্জ মো. নাসির উদ্দিন মৃধা বলেন, শিক্ষকের উপর হামলার কথা আমি শুনেছি। এখন পর্যন্ত এ ঘটনায় আমার কাছে কেউ লিখিত অভিযোগ দেয়নি। লিখিত অভিযোগ দিলে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করবো।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: মানববন্ধন

১১ জানুয়ারি, ২০২১

আরও
আরও পড়ুন