Inqilab Logo

ঢাকা শুক্রবার, ২২ জানুয়ারি ২০২১, ০৮ মাঘ ১৪২৭, ০৮ জামাদিউস সানী ১৪৪২ হিজরী

রোনালদো ফিরেছেন রোনালদোর মতই

স্পোর্টস ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৪ নভেম্বর, ২০২০, ১২:০২ এএম

দেশের হয়ে খেলতে গিয়ে আক্রান্ত হয়েছিলেন করোনাভাইরাসে। আইসোলেশনে থাকতে হয়েছে দুই সপ্তাহের বেশি সময়। তবে তাতে এতটুকু ধার কমেনি ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর। চেনা ছন্দেই ফিরেছেন এ পর্তুগিজ তারকা। স্পেৎসিয়ার বিপক্ষে ম্যাচে শুরুতে ছিলেন বেঞ্চে। দ্বিতীয়ার্ধে বদলি নেমেই জোড়া গোল উপহার দিয়েছেন পাঁচ বারের ব্যলন ডি’অর জয়ী এ তারকা। তাতে প্রতিপক্ষের মাঠ থেকে ৪-১ গোলের জয় নিয়ে ফিরেছে জুভেন্টাস। শিরোপাধারীদের অন্য গোলটি করেন আলভারো মোরাতা। ছয় ম্যাচে ১২ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে উঠে এসেছে টানা দুই ড্র’র পর ফেরা টানা নয়বারের চ্যাম্পিয়নরা। সমান পয়েন্ট নিয়ে গোল পার্থক্যে তৃতীয় স্থানে রয়েছে আতালান্তা। দিনের অন্য ম্যাচে উদিনেজেকে ২-১ গোলে হারানো এসি মিলান ছয় ম্যাচে ১৬ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে রয়েছে।

গত ১৩ অক্টোবর উয়েফা নেশন্স লিগের ম্যাচে সুইডেনের বিপক্ষে মাঠে নামার আগে রোনালদোর করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার সংবাদটা মিলে। এই সময়ে পর্তুগালের হয়ে একটি এবং চ্যাম্পিয়ন্স লিগে নিজেদের মাঠে বার্সেলোনার বিপক্ষে হেরে আসাসহ জুভেন্টাসের চারটি ম্যাচে খেলতে পারেননি তিনি। গত শুক্রবার করোনাভাইরাস থেকে মুক্তি পান তিনি। এর মাঝে অবশ্য মোট ১৮ বার পরীক্ষা করিয়েছেন। তাতে সবসময়ই পজিটিভ আশায় বিরক্ত হয়ে গিয়েছিলেন তিনি। ১৯ দিন আইসোলশনে থাকার পর সে বিরক্তির ঝালটা যেন মাঠেই ঝাড়লেন এ পর্তুগিজ। তবে সপ্তাহ দুই মাঠের বাইরে থাকায় রোনালদোকে প্রথম একাদশে রাখার ঝুঁকি নেননি কোচ আন্দ্রেয়া পিরলো। দ্বিতীয়ার্ধের ৫৬তম মিনিটে পাওলো দিবালার বদলি নামলেন তিনি। নামার তিন মিনিটের মাথায় পেলেন গোল। এর সাত মিনিট পর আরও একটি গোল। ফেরাটা তাই রাজকীয় করে রাখলেন সময়ের সেরা অন্যতম এ তারকা।

এদিন ম্যাচের ১৪তম মিনিটেই দলকে এগিয়ে দেন দারুণ ছন্দে থাকা আলভারো মোরাতা। সতীর্থের বাড়ানো বলে একেবারে ফাঁকায় বল পেয়েও তাকে পাস দেন ওয়েস্টন ম্যাককেন। ফাঁকা বারপোস্টে আলতো টোকায় বল জড়াতে কোনো ভুল করেননি এ স্প্যানিশ ফরোয়ার্ড। ৩২তম মিনিটে সমতায় ফেরে স্পেৎসিয়া। ডান প্রান্ত থেকে পাওলো বার্তোলোমেইর পাস থেকে দারুণ শটে লক্ষ্যভেদ করে তোমাসো পোবেগা। ৫৯তম মিনিটে মোরাতার থ্রু পাস ধরে দুই ডিফেন্ডার ও গোলরক্ষককেও কাটিয়ে বল জালে পাঠান রোনালদো। ৬৭তম মিনিটে ব্যবধান আরও বাড়ায় দলটি। বাঁ প্রান্ত দিয়ে ডি-বক্সে ঢুকে এক ডিফেন্ডারকে কাটিয়ে গোলরক্ষককে পরাস্ত করেন আদ্রিয়ান রাবিওত। ৭৬তম মিনিটে স্পটকিক থেকে নিজের দ্বিতীয় গোল পান রোনালদো। ডি-বক্সের মধ্যে ফেদেরিকো চিয়েসাকে বার্তোলোমেই ফাউল করলে পেনাল্টির বাঁশি বাজান রেফারি।

ফিরেই জয়ের নায়ক। তাপরও ম্যাচশেষে রোনালদোকে সামলাতে হলো অপ্রিয় প্রসঙ্গও। নিজের মতো করে সেই বিতর্ককে পাশ কাটিয়ে জানালেন, করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াই করে ভালোবাসার ফুটবলে তার ফেরাটাই সবচেয়ে গুরুত্বপ‚র্ণ। ম্যাচ শেষে স্কাই স্পোর্টকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে মাঠে ফেরা নিয়ে স্বস্তির কথা জানান পাঁচবারের এই বর্ষসেরা ফুটবলার, ‘আমি স্থির ছিলাম। কোনো উপসর্গ ছিল না এবং ভালো বোধ করছিলাম। আমি যা করতে ভালোবাসি সেই ফুটবল খেলায় ফিরেছি। ‘সিরি ‘আ’ একটি প্রতিদ্ব›দ্বীতাপ‚র্ণ লিগ। মিলান দারুণ করছে, লাৎসিও ও নাপোলিও ভালো খেলছে। আমাদের কঠোর পরিশ্রম করতে হবে, তবে আমরা ধীরে ধীরে বেড়ে উঠছি।’ কিছুদিন আগে কোভিড-১৯ পরীক্ষা নিয়ে ইনস্টাগ্রামে ক্ষুব্ধ মন্তব্য করেছিলেন রোনালদো। যদিও পরে মুছে ফেলেন সেই পোস্ট। কৌশলে এ বিষয় এড়িয়ে গেলেন ৩৫ বছর বয়সী ফরোয়ার্ড, ‘ক্রিস্টিয়ানো ফিরেছে এটাই সবচেয়ে গুরুত্বপ‚র্ণ বিষয়।’ আগামীকাল চ্যাম্পিয়ন্স লিগে রোনালদোদের প্রতিপক্ষ হাঙ্গেরির দল ফেরেন্সভারোস।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: রোনালদো-ফিরেছেন
আরও পড়ুন