Inqilab Logo

ঢাকা বুধবার, ২০ জানুয়ারি ২০২১, ০৬ মাঘ ১৪২৭, ০৬ জামাদিউস সানী ১৪৪২ হিজরী

স্যামুয়েলসের বিদায়ে মিশে থাকল বাংলাদেশ

স্পোর্টস ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৫ নভেম্বর, ২০২০, ১২:০০ এএম

২০১৮ সালের ডিসেম্বরে ওয়েস্ট ইন্ডিজের হয়ে বাংলাদেশে খেলে গেছেন মারলন স্যামুয়েলস। এরপর কোনো ধরনের স্বীকৃত ক্রিকেটেই আর দেখা যায়নি তাকে। এবার জানা গেল, পেশাদার ক্রিকেটকেই বিদায় জানিয়েছেন ৩৯ বছর বয়সী এই জ্যামাইকান ক্রিকেটার। ক্রিকেট ওয়েবসাইট ইএসপিএনক্রিকইনফোকে ক্রিকেট ওয়েস্ট ইন্ডিজের প্রধান নির্বাহী জনি গ্রেভ নিশ্চিত করেছেন, গত জুনেই স্যামুয়েলস বোর্ডকে জানিয়ে দিয়েছেন পেশাদার ক্রিকেট থেকে বিদায়ের কথা।
নানা আলোচনা-সমালোচনা, চড়াই-উতরাইয়ে ভরপুর এক বর্ণাঢ্য ক্যারিয়ারের সমাপ্তি হলো এতে। ক্যারিয়ারের বড় অংশ জুড়ে ছিল সহজাত প্রতিভার স্প‚রণ ও বিতর্ক। পেছন ফিরে তাকিয়ে, সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য অধ্যায় অবশ্যই দুটি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের ফাইনালে ম্যাচ অব দ্য ম্যাচ হওয়া। ২০১৫ বিশ্বকাপে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ক্রিস গেইলের সঙ্গে তার ৩৭২ রানের জুটি ওয়ানডে ইতিহাসের সর্বোচ্চ জুটির রেকর্ড।
অমিত সম্ভাবনাময় একজন হিসেবে ২০০০ সালে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে পা রাখেন স্যামুয়েলস। ২০০২ সালে ভারত সফরে কলকাতা টেস্টে দারুণ সেঞ্চুরির পর ওয়ানডে সিরিজে উপহার দেন ৭৩ বলের সেঞ্চুরি। ধারাবাহিকতার ঘাটতি ছিল তার বরাবরই। তবে তার চেয়েও বড় সমস্যা ছিল শৃঙ্খলায়। ২০০৮ সালে আইসিসির দুর্নীতি বিরোধী ধারা ভঙ্গ করে নিষিদ্ধ হন দুই বছরের জন্য। সেখান থেকে ফিরেও বিতর্কের জন্ম দিয়েছেন নানা সময়ে। বিতর্কের কারণেই হয়তো প‚র্ণতা পায়নি তার সম্ভাবনার। ৭১ টেস্টের ক্যারিয়ারে ৩২.৬৪ গড়ে ৩ হাজার ৯১৭ রান করেছেন তিনি। সেঞ্চুরি ৭টি, ৫টিই দেশের বাইরে। সর্বোচ্চ ২৬০ বাংলাদেশের বিপক্ষে খুলনায়। ওয়ানডেতে ২০৭ ম্যাচে ৫ হাজার ৬০৬ রান করেছেন ৩২.৯৭ গড়ে। সেঞ্চুরি ১০টি, ৭টিই দেশের বাইরে। হাফ সেঞ্চুরি ৩০টি। টি-টায়েন্টিতে ৬৭ ম্যাচে ২৯.২৯ গড়ে রান ১ হাজার ৬১১। বল হাতে তিনি ছিলেন দারুণ কার্যকর। অফ স্পিনে টেস্টে উইকেট ৪১টি, ওয়ানডেতে ৮৯টি, টি-টোয়েন্টি ২২টি। বোলিং অ্যাকশন নিয়ে অবশ্য তাকে ভুগতে হয়েছে অনেক।
ফ্র্যাঞ্চাইজি টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটেও একটা সময় স্যামুয়েলস ছিলেন বেশ কাক্সিক্ষত একজন। খেলেছেন আইপিএল, বিপিএল, বিগ ব্যাশ, টি-টোয়েন্টি বøাস্ট, এসএলপিএল, সিপিএল, পিএসএলে। ২০১৮ সালের ডিসেম্বরে ওই বাংলাদেশ সফরের পর ওয়েস্ট ইন্ডিজ দলে জায়গা হারান তিনি। এরপর অনেকটা আড়ালেই ছিলেন। অবসরেও গেলেন নিভৃতেই।

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: স্যামুয়েলস
আরও পড়ুন