Inqilab Logo

ঢাকা শনিবার, ১৬ জানুয়ারি ২০২১, ০২ মাঘ ১৪২৭, ০২ জামাদিউল সানী ১৪৪২ হিজরী

জার্মানিতে এক ভবনে তিন ধর্ম, নির্মাণ শুরু জানুয়ারিতে

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৫ নভেম্বর, ২০২০, ৪:০১ পিএম

ইহুদি, খ্রিস্টান ও ইসলাম ধর্মাবলম্বীদের জন্য বার্লিনে ‘হাউজ অব ওয়ান’ নামে এক উপাসনালয় নির্মাণের পরিকল্পনা করা হয়েছিল আগেই। দীর্ঘ প্রস্তুতির পর অবশেষে ২০২১ সালেই এর নির্মানকাজ শেষ হওয়ার সম্ভাবনা দেখা যাচ্ছে।

এই ভবনে এক ছাদের নীচে ইসলাম, খ্রিষ্টান ও ইহুদিদের প্রার্থনার জন্য আলাদা অংশ বরাদ্দ থাকবে। অন্য আরেকটি অংশ থাকবে, যেখানে তিন ধর্মের অনুসারীরা একসঙ্গে মিলিত হয়ে নিজেদের মধ্যে আলোচনা করতে পারবেন। প্রায় এক দশক ধরে তিন একেশ্বরবাদী ধর্মের প্রতিনিধিরা এই একক উপাসনালয় নির্মাণ নিয়ে আলোচনা করছেন। এখন অবশেষে তা দেখতে যাচ্ছে আলোর মুখ। দুই মাসের মধ্যে ২০২১ সালের জানুয়ারিতেই বার্লিনের পুরনো শহরের ঠিক মাঝখানে এই ভবনটি নির্মাণের জন্য মাটি খোঁড়ার কাজ শুরু হবে, এমনটিই জানিয়েছেন হাউজ অব ওয়ান ফাউন্ডেশনের প্রশাসনিক পরিচালক রোলান্ড স্টোলটে। এই প্রকল্প গত কয়েক বছরে বেশ কয়েকটি কারণে পিছিয়ে যায়। সবশেষ করোনা মহামারির কারণে আবারও পেছানো হয় নির্মাণ কাজ। ভবনটি নির্মাণে ২০ সদস্যের ট্রাস্টি বোর্ডের প্রধান হিসেবে রয়েছেন বার্লিনের মেয়র মিকায়েল ম্যুলার। তিন ধর্মের প্রতিনিধি ছাড়াও এই বোর্ডে হামবোল্ডট ফোরামের মহাপরিচালক, ইহুদি জাদুঘরের পরিচালক, জার্মান থিয়েটারের পরিচালক, প্রুশিয়ান কালচারাল হেরিটেজ ফাউন্ডেশনের প্রেসিডেন্টও রয়েছেন। সংস্কৃতি ও ধর্মের মেলবন্ধন হিসেবে এই ভবনটি উল্লেখযোগ্য ভূমিকা নিবে বলে মনে করছেন তারা।

যে স্থানটিকে এই ভবন নির্মাণের জন্য বাছাই করা হয়েছে, সেখানে ৭০০ বছর ধরে পেট্রিকির্শে নামের একটি গির্জা ছিল। সেটি ধ্বংস হওয়ার পর জায়গাটি খালিই পড়ে রয়েছে। এবার গির্জার স্থানেই তিন ধর্মের এক উপাসনালয় নির্মাণের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। একটি কেন্দ্রীয় বৈঠকখানার চারপাশ জুড়ে থাকবে মসজিদ, গির্জা ও সিনাগগ। ৪০ মিটার উঁচু এ ভবনটি নির্মাণে ৪৩ দশমিক পাঁচ মিলিয়ন ইউরো বা প্রায় ৪৩২ কোটি টাকা খরচ হবে। সূত্র: ডয়চে ভেলে।



 

Show all comments
  • Mustafizur Rahman Ansari ৫ নভেম্বর, ২০২০, ৯:৩১ পিএম says : 0
    Good Decisions,
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: জার্মানি


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ