Inqilab Logo

ঢাকা সোমবার, ২৫ জানুয়ারি ২০২১, ১১ মাঘ ১৪২৭, ১১ জামাদিউস সানী ১৪৪২ হিজরী

চাটমোহরের রামের বিল মৎস্য প্রকল্পে বাউত উৎসবের নামে মাছ ধরার অভিযোগ

চাটমোহর (পাবনা) উপজেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ৬ নভেম্বর, ২০২০, ২:২৫ পিএম

পাবনার চাটমোহর উপজেলার রামের বিলে ‘বাউত উৎসবের নামে জোরপূর্বক মাছ ধরার অভিযোগ উঠেছে। মাছ ধরার এই উৎসবে অংশ গ্রহণকারীরা কয়েক লাখ টাকার মাছ ধরে নিয়েছে মর্মে অভিযোগ। মঙ্গলবার সকাল থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত কয়েক হাজার মানুষ বিলে নেমে আধাপাকা আমন ধান বিনষ্ট করে মাছ পলো ও জাল দিয়ে মাছ ধরায় মেতে ওঠে। বিলের আশপাশসহ বড়াইগ্রাম, গুরুদাসপুর, ফরিদপুর, আটঘরিয়া ও ভাঙ্গুড়া উপজেলার অন্ততঃ ২০/২৫টি গ্রামের মানুষ এই বাউত উৎসবে অংশ নেন। কেউই খালি হাতে ফিরে যাননি। আগামী শনিবার আবারো বিলে বাউত নামবে বলেও ঘোষনা করা হয়েছে। জানা গেছে,এই বিল পাড়ের ৬টি গ্রামের জমির মালিকসহ বিভিন্ন শ্রেণী পেশার ৪ শতাধিক ব্যক্তি ‘শিসউক’ নামক একটি এনজিও’র মাধ্যমে কমিউনিটি এন্টারপ্রাইজ পদ্ধতিতে প্লাবন ভূমিতে মৎস্য উৎপাদন বৃদ্ধি সম্প্রসারণ প্রকল্প গ্রহণ করেন। এই বিলে কার্প জাতীয় ৫ লাখ পোনা অবমুক্ত করা হয়েছিল। যার আর্থিক মূল্য প্রায় ২৫ লাখ টাকা। এই মাছের বর্তমান বাজার দর কোটি টাকার উপরে। রামের বিল শিসউক মৎস্য কমিইনিটি এন্টার প্রাইজের পরিচালনা কমিটির সদস্য ও বেসরকারি সংস্থা হারডোর নির্বাহী পরিচালক মো.জাহাঙ্গীর আলম জানান, সমবায় ভিত্তিতে জমির মালিক ও বিলপাড়ের লোকজন নিয়ে এই প্রকল্প গ্রহণ করা হয়। এখন মাছ বড় হওয়ার পর তা আহরণ করা হবে। কিন্তু কোন কিছুর তোয়াক্কা না করেই মঙ্গলবার হাজার হাজার মানুষ মাছ ধরার ‘বাউত উৎসবের নামে বিল থেকে প্রচুর মাছ লুট করেছে। শুধু তাই নয়, আধাপাকা আমন ধান নষ্ট করেছে।
কমিউনিটির সভাপতি ও শিসউক-এর নির্বাহী পরিচালক শাকিউল মিল্লাত মোর্শেদ জানিয়েছেন, এলাকার মানুষের সাথে একাধিক সভা করে তাদের সম্মতিতে এই প্রকল্প গ্রহণ করা হয়। কিন্তু আজকের এই ঘটনায় প্রকল্পের সাথে সংশ্লিষ্ট জমির মালিক ও সদস্যদের বড় ধরণের ক্ষতি হলো।

 

 

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: অভিযোগ


আরও
আরও পড়ুন