Inqilab Logo

ঢাকা শনিবার, ২৩ জানুয়ারি ২০২১, ০৯ মাঘ ১৪২৭, ০৯ জামাদিউস সানী ১৪৪২ হিজরী
শিরোনাম

আইপিএলে ট্রফিহীন ৮ মৌসুম, কোহলির নেতৃত্ব নিয়ে প্রশ্ন

স্পোর্টস ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৮ নভেম্বর, ২০২০, ১২:০০ এএম

আইপিএলে ব্যাটসম্যান বিরাট কোহলির সামর্থ্য ও পারফরম্যান্স যতটা প্রশংসিত, ততটাই প্রশ্নবিদ্ধ অধিনায়ক কোহলির পারফরম্যান্স। বছরের পর বছর রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোরের নেতৃত্বে থেকেও তিনি ট্রফি এনে দিতে পারেননি দলকে। গতপরশু সানরাইজার্স হায়দরাবাদের কাছে এলিমিনেটরে হেরে এবারের আইপিএল থেকে ছিটকে গেছে কোহলির ব্যাঙ্গালোর। বরাবরই আইপিএলের সবচেয়ে ব্যয়বহুল দলগুলির একটি হলেও এখনও চ্যাম্পিয়ন হওয়ার স্বাদ পায়নি দলটি। ব্যতিক্রম হয়নি এবারও। এবার এক পর্যায়ে টেবিলের শীর্ষে থেকে কোয়ালিফায়ার খেলার আশা তৈরি করলেও গুরুত্বপ‚র্ণ সময়ে শেষ পাঁচ ম্যাচ হেরে বিদায় নেয় তারা। এবারের ব্যর্থতার পর সাবেক দুই ভারতীয় ক্রিকেটার গৌতম গম্ভির ও সঞ্জয় মাঞ্জরেকার বলছেন, ব্যাঙ্গালোরের নেতৃত্ব থেকে কোহলিকে সরিয়ে দেওয়া উচিত।
কোহলি নেতৃত্বে আছেন ২০১৩ সাল থেকে। এই ৮ মৌসুমে এবার নিয়ে মাত্র তিন বার প্লে অফে খেলতে পেরেছে তারা, ফাইনালে পা রেখেছে একবার। কোহলি অধিনায়ক হওয়ার আগে পাঁচ মৌসুমে দলটি ফাইনাল খেলেছে দুই বার।
ক্রিকেট ওয়েবসাইট ইসপিএনক্রিকইনফোকে গম্ভির বললেন, এই ব্যর্থতার দায় অবশ্যই নিতে হবে কোহলিকে, ‘আট বছর নেতৃত্ব দিয়েও ট্রফি নেইৃআট বছর অনেক সময়। আমাকে বলুন, অন্য কোনো অধিনায়কৃঅধিনায়কের কথা বাদই দিলাম, অন্য কোনো খেলোয়াড় আট বছর খেলে শিরোপা না জিতলে তাকে কি রাখা হতো? ব্যাপারটা দায়িত্ববোধের। অধিনায়ককে দায়িত্ব নিতেই হবে। এটা স্রেফ এই বছরের ব্যাপার নয়। কোহলির সঙ্গে আমার কোনো সমস্যা নেই। কিন্তু বাস্তবতা হলো, তার এগিয়ে এসে বলা উচিত, “হ্যাঁ, দায় আমারই”। ঠিক মনে নেই ২০১৬ নাকি ২০১৭ মৌসুমে তারা ৪৯ রানেও গুটিয়ে গিয়েছিল। কেবল এক ম্যাচ জিতেছিল ওই মৌসুমে। বিরাট কোহলির বিরুদ্ধে আমার কিছু নেই। কিন্তু কেউ একজনকে তো এগিয়ে আসতে হবে, বলতে হবে হ্যাঁ, আমি দায় নিচ্ছি।’
ভারতের অন্যান্য তারকা ও অন্য দলগুলির উদাহরণ তুলে ধরলেন দুই বার আইপিএলের শিরোপা জয়ী অধিনায়ক গম্ভির, ‘আট বছর অনেক অনেক লম্বা সময়। রবিচন্দ্রন অশ্বিনের দিকে তাকান, দুই বছরের নেতৃত্বে (কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবে) সাফল্য না পাওয়ায় সরিয়ে দেওয়া হয়েছে তাকে। রোহিত শর্মা মুম্বাইকে চারটি ট্রফি এনে দিয়েছে, ধোনি চেন্নাইকে এনে দিয়েছে তিনটি। এজন্যই এত লম্বা সময় নেতৃত্বে আছে। আমি নিশ্চিত, রোহিত যদি সাফল্য না আনতে পারত, তাকে এত লম্বা সময় দায়িত্বে রাখা হতো না। একেক জনের জন্য একেকরকম মানদন্ড থাকা উচিত নয়। এমন নয় যে কোহলি অভিজ্ঞ নয়। সে ভারতের অধিনায়ক অনেক দিন ধরে। যেখানেই খেলে, সে অধিনায়কত্ব করে। কিন্তু তাকে ফল এনে দিতে হবে। সাফল্য পেতে হবে।’
আরেক সাবেক ভারতীয় ব্যাটসম্যান ও ধারাভাষ্যকার মাঞ্জরেকারের মতে, কোহলিকে সরিয়ে দেওয়ার কাজটি করতে হবে ব্যাঙ্গালোরের মালিকপক্ষ বা দায়িত্বপ্রাপ্তদের, ‘দায়িত্বটা অধিনায়কের নিজের নয়, মালিকপক্ষকে এগিয়ে আসতে হবে। কারণ তারাই অধিনায়ক নিয়োগ দেন এবং সিদ্ধান্ত নেন, দলের জন্য কোন ধরনের নেতৃত্ব প্রয়োজন। দৃশ্যপট বদলাতে হলে, ফল বদলাতে হলে অধিনায়ক বদলাতে হবে। আমার এই আশা নেই যে কোহলি নিজে থেকেই বলবে, “আমি পারিনি।” দায়িত্বটি মালিকদের। ব্যাঙ্গালোরের ট্রফি জিততে না পারার পেছনে আমি প্রথমে মালিকপক্ষকেই দায় দেব। প্রত্যাশিত ফল দেওয়ার মতো সঠিক অধিনায়ককে তারা দায়িত্ব দিতে পারেননি এবং পরিকল্পনায় গলদ থেকে গেছে। আশা করি, এবারই চূড়ান্ত উপলব্ধি তাদের হবে...।’
মাঞ্জরেকাররা থামিয়ে গম্ভীর ব্যাখ্যা করেন, কেন জাতীয় দল থেকে ভিন্ন ফ্র্যাঞ্চাইজির অধিনায়কত্ব, ‘জাতীয় দলে সে তো জসপ্রিত বুমরাহকে পাচ্ছে, লোকেশ রাহুলকে পাচ্ছে, সবাইকে পাচ্ছে, মোহাম্মদ শামিকে পাচ্ছে। সাফল্য পাওয়া সহজ হচ্ছে। কাজেই ফ্র্যাঞ্চাইজির অধিনায়কত্ব আলাদা।’



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: আইপিএল

২৫ ডিসেম্বর, ২০২০
২৭ অক্টোবর, ২০২০
৫ অক্টোবর, ২০২০

আরও
আরও পড়ুন