Inqilab Logo

ঢাকা শনিবার, ০৫ ডিসেম্বর ২০২০, ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ১৯ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরী

শান্তির বারতা নিয়ে এসএ গেমস শুরু

প্রকাশের সময় : ৬ ফেব্রুয়ারি, ২০১৬, ১২:০০ এএম

জমকালো অনুষ্ঠানের মধ্যদিয়ে পর্দা উঠলো সাউথ এশিয়ান (এসএ) গেমসের ১২তম আসরের। গতকাল গৌহাটির ইন্দিরা গান্ধী অ্যাথলেটিক্স কমপ্লেক্সে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এসএ গেমসের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন। সন্ধ্যা ৬টায় তিনি দক্ষিণ এশিয়ার অলিম্পিক খ্যাত এ আসরের পর্দা উন্মোচন করেন। এসময় উপস্থিত ছিলেন ভারতীয় অলিম্পিক অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি এন রামাচন্দ্র, আসামের মূখ্য মন্ত্রী তরুণ গোগই, মেঘালয়ার মূখ্যমন্ত্রী মুকুল সাংমাসহ দেশটির বিশিষ্ট ক্রীড়া ব্যাক্তিত্বরা। নরেন্দ্র মোদীর উদ্বোধন ঘোষণার পর ভারতের জনপ্রিয় ফুটবলার বাইচুং ভুটিয়া মশাল প্রজ্বলন করেন। গেমসে অংশগ্রহণকারী অ্যাথলেটদের শপথ বাক্য পাঠ করান ভারতের প্রখ্যাত ক্রীড়াবিদ সৌরভ গোসাল। এরপর বেজে উঠে গৌহাটি-শিলং এসএ গেমসের থিম সং ‘এই পৃথিবী এক ক্রীড়াঙ্গন, ক্রীড়া হলো শান্তির প্রাঙ্গণ।’
বিকাল পাঁচটার কিছু আগে ইন্দিরা গান্ধী অ্যাথলেটিক্স কমপ্লেক্সে এসে পৌঁছান প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। এসএ গেমসের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানকে ঘিরে পুরো গৌহাটিতে নেয়া হয় নিñিদ্র নিরাপত্তা ব্যবস্থা। চার স্তরের নিরাপত্তা বেষ্টনি পাড় হয়ে দর্শকসহ মিডিয়া কর্মীদের প্রবশ করতে হয় স্টেডিয়ামে। তবে এই কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থার কারণে কেউ ক্ষোভ প্রকাশ করেননি। কিন্তু স্টেডিয়ামে প্রবেশের পর সাংবাদিকদের হয়রানীর শিকার হতে হয়। বসার জায়গার অভাব, ইন্টারনেট ব্যবস্থা নি¤œমানের হওয়ায় সাংবাদিকদের পেশাগত দায়িত্বপালনে দুর্ভোগ পোহাতে হয়।
বিকাল সাড়ে চারটার মধ্যেই ইন্দরা গান্ধী অ্যাথলেটিক্স কমপ্লেক্সে কানায় কানায় পূর্ণ হয়ে যায়। বিকাল পাঁচটার কিছু আগে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি স্টেডিয়ামে এসে পৌঁছান। আসাম পুলিশের ব্যান্ড ডিসপ্লে শেষে বিকাল পাঁচটায় ভারতীয় জাতীয় সঙ্গীত পরিবেশনের মধ্যদিয়ে শুরু হয় এসএ গেমসের উদ্বোাধনী অনুষ্ঠান। অতিথিরা আসন গ্রহনের পর একে একে মার্চপাস্টে অংশ নেন অংশগ্রহনকারী আট দেশের অ্যথলেট ও কর্মকর্তারা। প্রথমেই মাঠে প্রবেশ করে আফগানিস্তান। এরপরই জাতীয় পতাকা হাতে নিয়ে দলকে নেতৃত্ব দিয়ে বাংলাদেশকে মাঠে নিয়ে আসেন সাঁতারু রুবেল রানা। বাংলাদেশের পর ভুটান, মালদ্বীপ, নেপাল, পাকিস্তান, শ্রীলঙ্কা ও স্বাগতিক ভারত মার্চপাস্টে আসে।
আট দলের পরিচিতি পর্ব শেষে নরেন্দ্র মোদি তার বক্তব্যে বলেন, ‘আপনাদের সবাইকে ভারতের মাটিতে স্বাগতম। ভারত আতিথেয়তায় বিখ্যাত। আশাকরি এবারও সেটার ব্যতয় হবে না।’ তিনি অংশগ্রহনকারী অ্যথলেটদের উদ্দেশ্য করে বলেন, ‘তোমরা সবাই শান্তির জন্য খেলবে। মনকে উজার করে খেলবে। খেলা শান্তির প্রতিক। সীমারেখা বাদ দিলে আমরা সবাই একই দক্ষিণ এশিয়ার। দক্ষিণ এশিয়াই হচ্ছে আমাদের হোম।’ আগামি বছর অনূর্ধ্ব-১৭ বিশ্বকাপ ফুটবল আয়োজন করতে যাচ্ছে ভারত। বিশ্বকাপের গুরুত্বপূর্ণ একটি খেলা গোহাটিতে আয়োজনের প্রতিশ্রæতি দিয়ে মোদি বলেন, গোহাটির যুবকরা তোমরা ফুটবল খেলা দেখা মিস করবে না। ২০১৭ যুব বিশ্বকাপের জনপ্রিয় একটি ম্যাচের ভেন্যু করা হবে এ গোহাটিকে।’ পরিশেষে তিনি এবারের আসরের সাফল্য কামনা করেন। প্রধানমন্ত্রী উদ্বোধন ঘোষণার পর মশাল প্রজ্জ্বলন করেন ভারতের জনপ্রিয় ফুটবলার বাইচুং ভুটিয়া। আর অ্যথলেটদের শপথ বাক্য পাঠ করান সৌরভ গোসাল।
এরপর শুরু হয়ে যায় গেমসের মূল আকর্ষণ মনোরম ডিসপ্লে। ডিসপ্লেতে ভারতের ইতিহাস-ঐতিহ্য, আয়োজক রাজ্য আসাম ও মেঘালয়ের ইতিহাস, কৃষ্টি, সংস্কৃতি তুলে ধরেন শিল্পিরা। তাদের মনোমুগ্ধকর পারফর্ম্যান্সের সঙ্গে লাল-নীল আলোর নাচন অভিভূত করে উপস্থিত সবাইকে। আর উপমহাদেশের প্রয়াত জনপ্রিয় কণ্ঠশিল্পি ভুপেন হাজারিকার ছেলে ময়ুগ হাজারিকার গাওয়া গেমসের থিম সংটি আলাদা একটা আমেজ তৈরি করেছিল দর্শকদের মনে। নানা আয়োজন শেষে রাত সাড়ে ৮টায় শেষ হয় বহুলকাঙ্খিত ১২তম এসএ গেমসের উদ্বোধনী অনুষ্ঠান। আজ শিলংয়ে উদ্বোধন হবে এই গেমসের। এখানে শিলংয়ের মুখ্যমন্ত্রী উদ্বোধন করবেন দক্ষিণ এশিয়ার অলিম্পিক খ্যাত এই আসরের।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: শান্তির বারতা নিয়ে এসএ গেমস শুরু
আরও পড়ুন