Inqilab Logo

ঢাকা শনিবার, ১৬ জানুয়ারি ২০২১, ০২ মাঘ ১৪২৭, ০২ জামাদিউল সানী ১৪৪২ হিজরী

কার্যকর হয়েছে শান্তি চুক্তি টহল দেবে রাশিয়ার সেনা

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১১ নভেম্বর, ২০২০, ১২:০১ এএম

মঙ্গলবার থেকেই কার্যকর হয়েছে শান্তি চুক্তিটি। নতুন চুক্তির আওতায় আজারবাইজানের হাতেই থাকবে নাগরনো-কারাবাখ। আর্মেনিয়া আগামী কয়েক সপ্তাহের মধ্যে নিকটবর্তী আরও কিছু এলাকা থেকে সরে যাবে। অনলাইনে এক টেলিভিশন ভাষণে রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভøাদিমির পুতিন বলেছেন রাশিয়ার শান্তিরক্ষীরা ফ্রন্টলাইনে টহল দেবে। দেশটির প্রতিরক্ষামন্ত্রী নিশ্চিত করেছেন যে ১ হাজার ৯৬০ জনকে তারা মোতায়েন করবে। শান্তিরক্ষা প্রক্রিয়ায় তুরস্কও অংশ নেবে বলে জানিয়েছেন আজারবাইজানের প্রেসিডেন্ট ইলহাম আলিয়েভ। আলিয়েভ অনলাইনে ভাষণের সময় ভøাদিমির পুতিনের সাথে ছিলেন। পুতিন বলেছেন, সমঝোতার আওতায় বন্দী বিনিময়ের বিষয়টি অন্তর্ভুক্ত থাকবে এবং একই সাথে সব অর্থনৈতিক ও যোগাযোগ সংযোগে উন্মুক্ত হবে। খবরে বলা হয়, বিতর্কিত নাগরনো-কারাবাখে চলমান সামরিক সংঘাত নিরসনের লক্ষ্যে সোমবার একটি শান্তি চুক্তিতে স্বাক্ষর করেছে আর্মেনিয়া, আজারবাইজান ও রাশিয়া। ম‚লত আজারবাইজান ও আর্মেনিয়ার মধ্যে যুদ্ধ চলছে। মধ্যস্থতাকারী পক্ষ হিসেবে চুক্তিতে সই করেছে রাশিয়া। রুশ শান্তিরক্ষীও মোতায়েন করা হয়েছে সেখানে। আর্মেনিয়ার প্রধানমন্ত্রী নিকোল পাশিনিয়ান চুক্তিটিতে তার ও দেশের মানুষের জন্য কষ্টদায়ক বলে অভিহিত করেছেন। বিতর্কিত নাগরনো-কারাবাখ নিয়ে গত সেপ্টেম্বরের শেষদিকে সাবেক সোভিয়েত ইউনিয়নভ‚ক্ত দেশ দুটির মধ্যে লড়াই শুরু হয়। এর আগে কয়েক দফায় অস্ত্র ও যুদ্ধবিরতি চুক্তি হলেও তা টেকেনি। বিতর্কিত ওই অঞ্চলটিকে আন্তর্জাতিকভাবে আজারবাইজানের বলে স্বীকৃতি দেয়া হলেও সেটির নিয়ন্ত্রণ রয়েছে আর্মেনিয়ার নৃ-গোষ্ঠীর হাতে। সোভিয়েত ইউনিয়ন ভেঙে যাওয়ার দেশ দুটি যখন আলাদা হয় তখন থেকেই এই বিবাদ চলছে। নব্বইয়ের দশকের যুদ্ধের পর ১৯৯৪ সালে এটি আর্মেনিয়ার দখলে চলে যায়। ব্যাপক লড়াই ও যুদ্ধের পর ওই বছর দুই দেশের মধ্যে অস্ত্রবিরতি চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছিল কিন্তু শান্তি চুক্তি হয়নি। নতুন করে সই হওয়া এই শান্তি চুক্তি মঙ্গলবার স্থানীয় সময় ১টা থেকে কার্যকর হবে। নতুন চুক্তি অনুযায়ী চলমান সংঘাতে নাগরনো-কারাবাখের যেসব এলাকা আজারবাইজান দখলে নিয়েছে সেগুলো তাদের দখলেই থাকবে। এ ছাড়া আজারবাইজান সংলগ্ন আরও কিছু এলাকায় আর্মেনিয়ার যেসব সেনা মোতায়েন করা হয়েছে আগামী কয়েক সপ্তাহের মধ্যে তাদেরকে সেখান থেকে সরিয়ে নেয়া হবে। এক টেলিভিশন ভাষণে রুশ প্রেসিডেন্ট ভøাদিমির পুতিন বলেছেন, শান্তি প্রক্রিয়া বজায় রাখতে রাশিয়ার ১ হাজার ৯৬০ শান্তিরক্ষী মোতায়েন করা হবে সেখানে। পুতিনের সঙ্গে যৌথ সংবাদ সম্মেলনে আজারবাইজানের প্রেসিডেন্ট ইলহাম আলিয়েভ জানিয়েছেন, এই শান্তি প্রক্রিয়ায় তুর্কি সেনারাও অংশ নেবে। পুতিন বলেছেন চুক্তি অনুযায়ী, যুদ্ধবন্দী বিনিময় করবে উভয় পক্ষ। এ ছাড়া অবরুদ্ধ থাকা সকল অর্থনৈতিক ও পরিবহন ব্যবস্থা স্বাভাবিক করে দেয়া হবে। আজেরি প্রেসিডেন্ট বলেছেন এই চুক্তির ঐতিহাসিক ম‚ল্য অনেক। নাগরনো-কারাবাখ অঞ্চল নিয়ে আজারবাইজানের সঙ্গে আর্মেনিয়ার গত ছয় সপ্তাহের প্রচÐ যুদ্ধের অবসান হয়েছে। রাশিয়ার মধ্যস্থতায় আর্মেনিয়া এরইমধ্যে একটি চুক্তিতে সই করেছে যাতে ইয়েরেভান অধিকৃত অঞ্চল থেকে সমস্ত সেনা প্রত্যাহার করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে। ইয়েরেভানের এই পদক্ষেপে আর্মেনীয় নাগরিকরা ক্ষুব্ধ হয়েছেন। তারা একে পরাজয় বলে বিবেচনা করছেন। সোমবার শেষ বেলায় আর্মেনিয়ার প্রধানমন্ত্রী নিকোল পাশনিয়ান যুদ্ধ সমাপ্তি ঘোষণা দেয়ার পর বেশ কিছুসংখ্যক বিক্ষুব্ধ লোকজন রাজধানী ইয়েরেভানে বিক্ষোভ করেন, এমনকি তারা বেশ কয়েকটি সরকারি ভবনে ভাংচুর করে। যুদ্ধ অবসানের ঘোষণায় প্রধানমন্ত্রী পাশনিয়ান বলেন, যুদ্ধবিরতির এই চুক্তিকে পরাজয় হিসেবে গণ্য করা ঠিক হবে না। বিবিসি, রয়টার্স।

 

 



 

Show all comments
  • টুটুল ১১ নভেম্বর, ২০২০, ২:২১ এএম says : 0
    খুব ভালো খবর
    Total Reply(0) Reply
  • MD Milon Ahemed ১১ নভেম্বর, ২০২০, ৭:৩২ এএম says : 0
    Alhamdulillah আবারো মুসলমানদের বিজয় হল
    Total Reply(0) Reply
  • Kamal Ahmed ১১ নভেম্বর, ২০২০, ৭:৩২ এএম says : 0
    আলহামদুলিল্লাহ
    Total Reply(0) Reply
  • আমি বিদ্রুহী ১১ নভেম্বর, ২০২০, ৭:৩২ এএম says : 0
    রাশিয়ার সেনার সাথে তুর্কির সেনারাও আছে,,সাংবাদিক হিসাবে পক্ষ না নেয়া ভালো।
    Total Reply(0) Reply
  • Babul Hossain ১১ নভেম্বর, ২০২০, ৭:৩৩ এএম says : 0
    সারা বিশ্ব একদিন ইসলাম রাজত্ব করবে ইনশাআল্লাহ্,,এবং প্রত্তেকটি শ্লোগান হবে "আল্লাহু আকবর বলে"!!!
    Total Reply(0) Reply
  • Md Josim Uddin ১১ নভেম্বর, ২০২০, ৭:৩৪ এএম says : 0
    এই ভাবেই ইসলামের বিজয় ছরিয়ে পরবে সাড়া বিশ্বে। ইনসাআল্লাহ্।
    Total Reply(0) Reply
  • Somon Molla ১১ নভেম্বর, ২০২০, ৭:৩৪ এএম says : 0
    ইসলামের পতাকা উড়বে,,, ফ্রান্সে সেই দিন আর বেশি দূরে নয় ইনশাআল্লাহ
    Total Reply(0) Reply
  • Hasan Najmul ১১ নভেম্বর, ২০২০, ৭:৩৪ এএম says : 0
    নাগার্নু করাভাগ আজারবাইজানের জায়গা কিন্তু দখল করছে আর্মেনিয়া! সেপ্টেম্বরের যুদ্ধের পর এই জায়গাটা কার কাছে যায়?
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: রাশিয়া


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ