Inqilab Logo

ঢাকা সোমবার, ১৮ জানুয়ারি ২০২১, ০৪ মাঘ ১৪২৭, ০৪ জামাদিউস সানী ১৪৪২ হিজরী
শিরোনাম

অধিকার আদায়ে দৃঢ়প্রতিজ্ঞ দুই মুসলিম এমপি

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১২ নভেম্বর, ২০২০, ১২:০১ এএম

মিয়ানমারে নিপীড়িত সংখ্যালঘুদের অধিকারের জন্য লড়াই করার আত্মপ্রত্যয়ের কথা জানিয়েছেন দেশটিতে রোববারের নির্বাচনে বিজয়ী মুসলিম প্রার্থী সিথু মং। অধিকার আদায়ে দৃঢ়প্রতিজ্ঞ বলে মন্তব্য করেন। ৩৩ বছর বয়সী এই যুবক অং সান সু চির ক্ষমতাসীন ন্যাশনাল লিগ ফর ডেমোক্রেসি (এনএলডি) দলের ১,১০০ এর বেশি প্রার্থীর মধ্যে মাত্র দুজন মুসলিম এমপির একজন। মিয়ানমারে জনসংখ্যার চার শতাংশ মুসলিম চ‚ড়ান্ত বৈষম্যের শিকার বলে পুরনো অভিযোগ রয়েছে। ইয়াঙ্গুন শহরের কেন্দ্রীয় এলাকার সংসদীয় আসনের প্রার্থী সিথু ভোটারদের প্রতিক্রিয়া দেখেই বুঝেছিলেন যে তিনি জিততে চলেছেন। তবে, ৮০ শতাংশ ভোট পেয়ে যে তিনি জয়ী হবেন, এতটাও আশা করেননি তিনি। সিথু ছাড়াও এবার এনএলডি দলের মুসলিম প্রার্থী উইন মিয়া মিয়া (৭১) মান্দালয়ে জয় পেয়েছেন। সিথু মংয়ের নির্বাচনী এলাকার ভোটাররা ধর্ম ও জাতিগত দিক থেকে বৈচিত্র্যময়। ৩০ হাজার ভোটারের মধ্যে বৌদ্ধ ও মুসলিম প্রায় সমান সমান। পাশাপাশি ভোটারদের মধ্যে রাখাইন, চীনা ও ভারতীয় বংশোদ্ভ‚ত সংখ্যালঘুরাও আছেন। জয়ের পর তার প্রতিশ্রæতি, ‘আমি সব ধর্মের জনগণের জন্য কাজ করব, বিশেষ করে যারা বৈষম্যের শিকার, নিপীড়িত বা মানবাধিকার থেকে বঞ্চিত।’ সিথু মং কেবল মুসলমানদের প্রতিনিধিত্ব করবেন না। এএফপিকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, ‘আমার এলাকার কোনো মানুষের প্রতি অন্যায় হলে, আমি তাদের রক্ষা করব।’ তবে, রোহিঙ্গা ইস্যু নিয়ে কথা বলতে রাজী হননি তিনি। রোহিঙ্গা বাদে দেশটিতে অন্যান্য জাতিগোষ্ঠীর মুসলিমদের নাগরিকত্ব থাকলেও, তাদেরকেও বৈষম্যের শিকার হতে হয় বলে জানান সিথু মং। এমনকি নিজের জাতীয় পরিচয়পত্র পেতে তাকে কয়েক বছর অপেক্ষা করতে হয়েছিল। ধরনা দিতে হয়েছে বিভিন্ন সরকারি দপ্তরে। সেই তিক্ত অভিজ্ঞতা সম্পর্কে সিথু মং বলেন, ‘যারা এর মধ্যে দিয়ে যাননি, তারা এটা বুঝবে না।’ কট্টরপন্থী বৌদ্ধ জাতীয়তাবাদী চেতনার মধ্যে, ২০১৫ সালের নির্বাচনে তাকে এনএলডির সম্ভাব্য প্রার্থী হিসেবে বিবেচনায় রাখা হয়েছিল। তবে শেষ পর্যন্ত আর তাকে প্রার্থী করা হয়নি। মুসলিম স¤প্রদায়ের কেউই সেই নির্বাচনে প্রার্থী হতে পারেননি। এএফপি,এসএএম।

 



 

Show all comments
  • Sadik Siraji ১২ নভেম্বর, ২০২০, ৬:২৫ এএম says : 0
    ইনশাআল্লাহ সেইদিন বেশি দূরে নয়, আমরা পুরো ভারতীয় উপমহাদেশ শাসন করবো!
    Total Reply(0) Reply
  • মারিয়া ১২ নভেম্বর, ২০২০, ৬:২৭ এএম says : 0
    রোহিঙ্গাদের বিষয়টি তারা কৌশনে এড়িয়ে যাচ্ছেন
    Total Reply(0) Reply
  • জাহিদ ১২ নভেম্বর, ২০২০, ৬:২৭ এএম says : 0
    তাদের প্রথম রোহিঙ্গা ইস্যু নিয়ে কথা বলা উচিত
    Total Reply(0) Reply
  • বুলবুল আহমেদ ১২ নভেম্বর, ২০২০, ৬:২৮ এএম says : 0
    রোহিঙ্গাদের অধিকার আদায়ে তাদেরকেই আন্দোলন করতে হবে
    Total Reply(0) Reply
  • তানিয়া ১২ নভেম্বর, ২০২০, ৬:২৯ এএম says : 0
    শুভ কামনা রইলো তাদের জন্য
    Total Reply(0) Reply
  • জাহিদ খান ১২ নভেম্বর, ২০২০, ৮:২৭ এএম says : 0
    ইনশায়াল্লাহ, রোহিঙ্গারা আবার আরাকান শাসন করবে।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: মিয়ানমার


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ