Inqilab Logo

ঢাকা বুধবার, ২০ জানুয়ারি ২০২১, ০৬ মাঘ ১৪২৭, ০৬ জামাদিউস সানী ১৪৪২ হিজরী

ফ্রান্সে নবী (সা,) ব্যঙ্গচিত্র প্রকাশের প্রতিবাদ ম্যাখোঁর বিচার না হওয়া পর্যন্ত মুসলমানরা নিরব থাকবে না

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১২ নভেম্বর, ২০২০, ৮:৪৬ পিএম

ফ্রান্সে মহানবী (সা.) এর ব্যঙ্গচিত্র কার্টুন প্রকাশের প্রতিবাদে আজ বৃহস্পতিবার হাফেজে কুরআনরা রাজপথে নেমে এসেছিল। হুফফাজুল কুরআন ফাউন্ডেশন বাংলাদেশ এর ডাকে হাফেজে কুরআনরা ঢাকাসহ বিভিন্ন জেলায় ফ্রান্সে মহানবী (সা.) অবমাননার প্রতিবাদে স্বতঃস্ফূর্তভাবে বিক্ষোভ মিছিলে অংশ নেয়।
মিছিলে বিক্ষুদ্ধ হাফেজরা ফ্রান্স বিরোধী শ্লোগানে বলেন, ম্যাখোঁর দুই গালে জুতা মারো তালে তালে’ ফ্রান্সের পণ্য বর্জন করো করতে হবে’ নবীর অবমানবা সইবে নারে মুসলমান’। কালেমা খচিত ব্যানার ও ফ্রান্স বিরোধী ফেস্টুন নিয়ে মিছিলে অংশ নেয় বিভিন্ন মাদরাসার হাফেজ ও তৌহিদী জনতা। বিক্ষোভ সমাবেশে নেতৃবৃন্দ বলেন, ফ্রান্সে মহানবী (সা.) ব্যঙ্গচিত্র প্রকাশের ঘটনায়
মুসলিম উম্মাহ চরমভাবে ক্ষুদ্ধ। ফ্রান্সে রাষ্ট্রীয় পৃষ্ঠপোষকতায় নবী (সা.) অবমাননার ঘটনায় দেশটির প্রেসিডেন্ট ম্যাখোঁকে অবশ্যই শাস্তি পেতে হবে। কুলাঙ্গার ম্যাখোঁর বিচার না হওয়া পর্যন্ত মুসলমানরা নিরব থাকবে না। অবিলম্বে জাতীয় সংসদে ফ্রান্সের বিরুদ্ধে নিন্দা প্রস্তাব পাশ করতে হবে।
দেশটির সকল পণ্য বর্জনের ঘোষণা দিতে হবে। ঢাকাস্থ ফরাসি দূতাবাস প্রত্যাহার করতে হবে। নবীর ইজ্জত রক্ষায় হাফেজে কুরআনরা মাঠে নেমেছে। মহানবী (সা.) এর শানে বেয়াদবির দরুণ ফ্রান্স অচিরেই ধ্বংস হয়ে যাবে। ফ্রান্সে মহানবী (সা.) এর ব্যঙ্গচিত্র কার্টুন প্রকাশের প্রতিবাদে আজ বৃহস্পতিবার বাদ আসর বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদের উত্তর গেইটে হুফফাজুল কুরআন ফাউন্ডেশন বাংলাদেশ আয়োজিত বিক্ষোভ সমাবেশে নেতৃবৃন্দ এসব কথা বলেন।
হুফফাজুল কুরআন ফাউন্ডেশনের সভাপতি আন্তর্জাতিক হাফেজ ক্বারী আব্দুল হকের সভাপতিত্বে এতে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, প্রখ্যাত হাফেজ মাওলানা ক্বারী বজলুল হক, সংগঠনের সিনিয়র সহসভাপতি হাফেজ ক্বারী হাবিবুল্লাহ বেলালী, সংগঠনের মহাসচিব হাফেজ নাসির উদ্দিন, হাফেজ মাওলানা নুরুর রশিদ কাসেমী, হাফেজ মাওলানা মুফতি ইমাদুদ্দিন, মাওলানা মুফতি মামুনুর রশিদ, মুফতি ইব্রাহিম আজম,মাওলানা মাহবুবুল হক, মুফতি রুহুল আমিন, হাফেজ আব্দুল গাফফার, হাফেজ মাওলানা আশরাফ তানভীর, মুফতি মিনহাজ উদ্দিন,মাওলানা ইমরান নুরুদ্দিন ও ক্বারী হাফেজ মাওলানা মাঞ্জুর আহমাদ।
সভাপতির বক্তব্যে হাফেজ ক্বারী আব্দুল হক বলেন, লক্ষ লক্ষ হাফেজে কুরআনের বরকতেই দেশ টিকে আছে। ফ্রান্সে নবী (সা.) অবমাননায় মুসলিম উম্মাহ’র হৃদয়ে রক্তক্ষরণ হচ্ছে। তিনি অবিলম্বে জাতীয় সংসদে ফ্রান্সের বিরুদ্ধে নিন্দা প্রস্তাব পাশ করার জোর দাবি জানান। তিনি বলেন, কিয়ামতের আগ পর্যন্ত মহানবী (সা.) এর শানে কোনো বেয়াদবি হলে তার প্রতিবাদ চলবেই। ক্বারী হাবিবুল্লাহ বেলালী বলেন, ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট কুলাঙ্গার ম্যাখোঁর বিচার না হওয়ায় পর্যন্ত তৌহিদী জনতা নিরব থাকবে না। তিনি বলেন, মুসলমানরা নবীর শানে বেয়াদবির প্রতিবাদে জীবন দিতে প্রস্তুত।
হাফেজ নাসির উদ্দিন বলেন, ফ্রান্স সরকার মহানবী (সা.) শানে বেয়াদবির কারণে অচিরেই ফ্রান্স ধ্বংস হয়ে যাবে ইনশাআল্লাহ। মাওলানা নুরুর রশিদ কাসেমী বলেন, মোনাফেকের ঠিকানা জান্নাতে হবে না। কুলাঙ্গার ম্যাখোঁর বিরুদ্ধে অবিলম্বে সংসদে নিন্দা প্রস্তাব উত্থাপন করে নিজেদের অবস্থানা পরিস্কার করুন। মুফতি ইমাদুদ্দিন বলেন, ঈমানের দাবিতে কুরআনের পাখিরা আজ রাজপথে নেমেছে। রাসুল (সা.) কে কেউ গালি দিলে মহান আল্লাহ নিজেই অ্যাকশন নেন। মুহাম্মদ (সা.) আমাদের ঈমান। মহানবী (সা.) কে নিয়ে বেয়াদবি করা হলে মুসলমানরা ঘুমিয়ে থাকবে না। তিনি অবিলম্বে ফ্রান্সের বিরুদ্ধে নিন্দা এবং দেশটির সকল পণ্য বর্জনের দাবি জানান। মুফতি মিনহাজ উদ্দিন বলেন, মুসলমানরা রক্ত দিয়ে হলেও নবীর ইজ্জত রক্ষা করবে। তিনি বলেন, ক্ষমতায় টিকে থাকতে হলে নবী (সা.) এর ইজ্জতের পক্ষে কাজ করতে হবে। প্রয়োজনে জিহাদ করতে হলেও নবী (সা,) এর অবমাননার প্রতিশোধ নেয়া হবে। পরে নগরীতে ফ্রান্স বিরোধী বিক্ষোভ মিছিল বের করা হয়। মিছিলটি পুরানা পল্টন মোড় দৈনিক বাংলার মোড় হয়ে বায়তুল মোকাররমে গিয়ে মোনাজাতের মাধ্যমে শেষ হয়।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ