Inqilab Logo

বুধবার, ২৭ অক্টোবর ২০২১, ১১ কার্তিক ১৪২৮, ১৯ রবিউল আউয়াল সফর ১৪৪৩ হিজরী

জবি শিক্ষার্থী গ্রেফতার

ধর্ম নিয়ে কটুক্তি

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৩ নভেম্বর, ২০২০, ১২:০২ এএম

ধর্ম নিয়ে কটূক্তির অভিযোগে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সাময়িক বহিষ্কৃত শিক্ষার্থী তিথি সরকারকে গ্রেফতার করেছে সিআইডি। গতকাল রাজধানীর মালিবাগস্থ সিআইডির প্রধান কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন করে এমন তথ্য জানানো হয়েছে। সিআইডির দাবি, তিথি সরকার বিপদ এড়াতে নিজেই আত্মগোপনে গিয়ে অপহরণ নাটক সাজিয়েছিলেন।

সংবাদ সম্মেলনে সিআইডির সাইবার পুলিশ সেন্টারের ডিআইজি জামিল আহমদ জানান, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাণিবিদ্যা বিভাগের তৃতীয় বর্ষের ছাত্রী তিথি সরকার ১৮ দিন ধরে নিখোঁজ থাকার পর গত বুধবার বিকেলে নরসিংদীর মাধবদীর পাঁচদোনা এলাকায় এক আত্মীয়র বাড়ি থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

জানা যায়, দীর্ঘদিন ধরে মহানবী হজরত মুহাম্মদকে (সা.) নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ও বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বিরূপ মন্তব্য করে আসছিলেন তিথি সরকার। পরে ধর্ম অবমাননার অভিযোগ জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল ছাত্রসংগঠন ও সাধারণ শিক্ষার্থীরা তিথি সরকারের বহিষ্কার দাবিতে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ করেন। শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের মুখে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন থেকে তিথি সরকারকে সাময়িক বহিষ্কার করা হয়।

পরবর্তীতে গত ২৫ অক্টোবর নিজের ফেইসবুক অ্যাকাউন্ট হ্যাক করার বিষয়ে অভিযোগ জানাতে পল্লবী থানার উদ্দেশ্যে মিরপুরের বাসা থেকে বের হয়ে আর ফেরেননি এই তরুণী। এ বিষয়ে থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করা হয়।

গতকাল সংবাদ সম্মেলনে ডিআইজি জামিল আহমদ বলেন, গত ২৫ অক্টোবর মিরপুরের পল্লবীর বাসা থেকে বেরিয়ে তিথি প্রেমিক শিপলু মল্লিকের সাথে বাগেরহাটে গিয়ে বিয়ে করেন। এরপর তারা ৯ নভেম্বর ঢাকা ফিরে আসেন। পরে নরসিংদীর ওই বাড়িতে আত্মগোপন করেন তিথি। ৩১ অক্টোবর সিআইডির সাইবার মনিটরিং টিম দেখতে পায়, সিআইডির মালিবাগ কার্যালয়ের চারতলা থেকে ‘তিথি সরকারকে হাত পা-বাঁধা অবস্থায় উদ্ধার করা হয়েছে’ বলে একটি মিথ্যা পোস্ট সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করা হয়। এটি ব্যাপক আলোড়ন সৃষ্টি করে। প্রকৃতপক্ষে সিআইডিতে এরকম কোনো ঘটনা ঘটেনি।

তিনি বলেন, পরবর্তীতে এই ঘটনার তদন্তে নেমে গুজব রটনাকারী নিরঞ্জন বড়াল নামের একজনকে রামপুরার বনশ্রী এলাকা থেকে গ্রেফতার করা হয়। নিরঞ্জনসহ অজ্ঞাত আরও কয়েকজনের বিরুদ্ধে গত ২ নভেম্বর পল্টন থানায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে একটি মামলা করা হয়।

সিআইডি কর্মকর্তা জামিল বলেন, তদন্তে জানা যায়, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাণীবিদ্যা বিভাগের ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষের তিথি সরকার তার ফেইসবুক আইডি ব্যবহার করে বিভিন্ন সময় ধর্মীয় উসকানিমূলক পোস্ট, কমেন্ট ও তথ্য শেয়ার করেন। যার ফলে বিশ্বদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা এর বিরুদ্ধে আন্দোলন ও সমাবেশ করে। ভবিষৎ বিপদ এড়াতে এবং নিজেকে নিরাপদ রাখতে নিজের সংগঠনের (ধর্মীয় একটি সংগঠন) কিছু নেতাকর্মীর পরামর্শে ফেইসবুক আইডি হ্যাকড হয়েছে মর্মে গত ২৩ অক্টোবর পল্লবী থানায় একটি জিডি করেন তিথি।

তিনি আরো বলেন, তিথি সরকার স্বেচ্ছায় আত্মগোপনে থেকে অপহরণের নাটক সাজিয়েছিলেন। তার ধারণা ছিল এভাবে আত্মগোপনে থেকে নিজেকে লুকিয়ে অপহরণের দায়ভার অন্যর ওপর চাপিয়ে ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত সংক্রান্ত ঘটনা থেকে রেহাই পাবেন বা ঘটনা অন্যদিকে ধাবিত হবে।

সিআইডির ওই কর্মকর্তা আরো জানান, তিথিকে গ্রেফতারের আগে তার স্বামী শিপলু মল্লিককে গত বুধবার দুপুর পৌনে ১২ টার দিকে রাজধানীর কাপ্তানবাজার এলাকা থেকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারকৃতদের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহিতা এবং ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত দেয়াসহ অন্যান্য অভিযোগে আরেকটি মামলা করার প্রস্তুতি নেয়া হচ্ছে বলে জানান তিনি।
এক প্রশ্নের জাবাবে জামিল আহমদ বলেন, তিথি সরকারকে এই কর্মকান্ডের তার পরিবার এবং অন্য কেউ সহযোগিতা করেছে কিনা তা তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।

সংবাদ সম্মলনে উপস্থিত ছিলেন- সিআইডির সাইবার পুলিশের অতিরিক্ত ডিআইজি মো. কামরুল আহসান, সাইবার ইন্টিলিজেন্স অ্যান্ড রিস্ক ম্যানেজমেন্ট কর্মকর্তা মুহাম্মদ রেজাউল মাসুদ, সাইবার ইনভেস্টিগেশন অ্যান্ড অপারেশনস কর্মকর্তা এস এম আশরাফুল আলম প্রমুখ।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: গ্রেফতার


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ