Inqilab Logo

ঢাকা রোববার, ১৭ জানুয়ারি ২০২১, ০৩ মাঘ ১৪২৭, ০২ জামাদিউস সানী ১৪৪২ হিজরী

সাকিব-রিয়াদে দুর্দান্ত খুলনা

আছেন আশরাফুল, থাকবেন মাশরাফিও!, তামিম বরিশালে, মুশফিক ঢাকায়, মুস্তাফিজ চট্টগ্রামে

স্পোর্টস রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৩ নভেম্বর, ২০২০, ১২:০১ এএম

টি-টোয়েন্টিতে বরাবরই চাহিদার তুঙ্গে থাকেন অলরাউন্ডাররা। সেই তালিকায় সবার উপরেই থাকবে সাকিব আল হাসানের নাম সেটা অনুমিতই ছিল। তাইতো বঙ্গবন্ধু টি-টোয়েন্টি কাপের প্লেয়ার্স ড্রাফটের লটারিতে প্রথম সুযোগেই বিশ্বসেরা এই অলরাউন্ডারকে দলে ভিড়িয়েছে জেমকন খুলনা। গতকাল রাজধানির একটি পাঁচতারকা হোটেলে গতকাল দুপুরে হয়েছে এই ড্রাফট। মাহমুদউল্লাহ রিয়াদও গেছেন এই দলে। তামিম ইকবালকে দলে নিয়েছে ফরচুন বরিশাল। মুশফিকুর রহিম বেক্সিমকো ঢাকায় আর মুস্তাফিজুর রহমান গেছেন গাজী গ্রুপ চট্টগ্রামে।

ড্রাফটের প্রথম রাউন্ডে প্রথম ডাকেই মুস্তাফিজকে দলে নেয় চট্টগ্রাম। রাজশাহী নিজেদের প্রথম সুযোগে দলে ভেড়ায় মোহাম্মদ সাইফুদ্দিনকে। সাকিবের পর দ্বিতীয় ডাকে একই ক্যাটাগরির মাহমুদউল্লাহকে নেয় খুলনা। এছাড়া প্রথম দিকে জাতীয় দলের তারকাদের মধ্যে লিটন দাস, সৌম্য সরকারকে দ্বিতীয় ডাকে নিয়ে নেয় গাজী গ্রুপ চট্টগ্রাম। দল পেয়েছেন মোহাম্মদ আশরাফুলও। তাকে নিয়েছে মিনিস্টার গ্রুপ রাজশাহী।
খরচের দিক থেকেও সবার উপরে খুলনার নাম। ১৬ ক্রিকেটারের জন্য তারা খরচ করেছে ১ কোটি ১৪ লাখ টাকা। আর সবচেয়ে কম খরচে দল বানিয়েছে মিনিস্টার গ্রুপ রাজশাহী। ড্রাফটে সবচেয়ে বেশি পারিশ্রমিক থাকা ‘এ’ ক্যাটাগরির দুই ক্রিকেটার সাকিব ও রিয়াদকে দলে নেয় খুলনা। এই দুজনের জন্যই লেগেছে ৩০ লাখ টাকা। এরপরই আছে গাজী গ্রুপ চট্টগ্রাম ও ফরচুন বরিশাল। দল দুটি দল বানাতে খরচ করছে এক কোটি ১৩ লাখ টাকা করে। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ১০ লাখ টাকা করে পারিশ্রমিক থাকা ‘বি’ ক্যাটাগরির ৬ ক্রিকেটারকে দলে নিয়েছে চট্টগ্রাম। রাজশাহীও এই ক্যাটাগরির পাঁচজনকে নেয় দলে। বেক্সিমকো ঢাকা গড়েছে তারুণ্য নির্ভর দল। তাদের দলে আছেন যুব বিশ্বকাপজয়ী দলের তিন ক্রিকেটার। যারা ‘ডি’ ক্যাটাগরিতে থাকায় পারিশ্রমিক সবচেয়ে কম। দল গড়তে তাই এক কোটি তিন লাখ টাকা খরচ ঢাকার।
পরিসংখ্যানে সবচেয়ে কম বাজেটের দল মিনিস্টার গ্রুপ রাজশাহী। অভিজ্ঞ মোহাম্মদ আশরাফুল, রকিবুল হাসানদের দলে নিয়েছে তারা। এই দুজনেই আছেন ‘ডি’ ক্যাটাগরিতে। রাজশাহীই একমাত্র দল যারা ‘এ’ ক্যাটাগরির কোন খেলোয়াড়কেই দলে ভেড়ায়নি। সবচেয়ে কম এক কোটি দুই লাখ টাকায় দল প্রস্তুত হয়েছে তাদের। সব মিলিয়ে প্রতিটি দল ডেরায় ভেড়াতে পেরেছে ১৬ জন করে খেলোয়াড়। প্লেয়ার্স ড্রাফটে চার ক্যাটাগরির মোট ১৫৭ জন ক্রিকেটারকে রাখা হয়েছিল। এ ক্যাটাগরির জন্য ১৫ লাখ, বি ক্যাটাগরি ১০ লাখ, সি ক্যাটাগরি ৬ লাখ ও ডি ক্যাটাগরির খেলোয়াড়রা পাচ্ছেন ৪ লাখ টাকার পারিশ্রমিক।
চোটের কারণে ড্রাফটে ছিল না মাশরাফি বিন মুর্তজার নাম। তবে ডিসেম্বরের প্রথম সপ্তাহে তাকে পাওয়া যেতে পারে বলে জানিয়েছেন প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন। তখন যে কোনো দল চাইলে তাকে নিতে পারবে। একাধিক দল আগ্রহী হলে তাদের মধ্যে হবে লটারি। ফিটনেস পরীক্ষায় উতরাতে না পারায় ড্রাফটে জায়গা হয়নি নাসির হোসেন, সোহাগ গাজী, ইলিয়াস সানির মতো ঘরোয়া ক্রিকেটের নিয়মিতদের।
টুর্নামেন্ট শুরুর তারিখ এখনও চ‚ড়ান্ত হয়নি। শুরু হতে পারে নভেম্বরের তৃতীয় সপ্তাহে। টুর্নামেন্ট চলাকালীন সময়ে জৈব-সুরক্ষা বলয়ে টিম হোটেলেই থাকবেন সকল ক্রিকেটার। সবক’টি ম্যাচই হবে মিরপুর শের-ই-বাংলা স্টেডিয়ামে।

ড্রাফট শেষে বঙ্গবন্ধু টি-টোয়েন্টি কাপের পাঁচ দল

বেক্সিমকো ঢাকা : মুশফিকুর রহিম, রুবেল হোসেন, তানজিদ হাসান তামিম, নাসুম আহমেদ, নাঈম শেখ, নাঈম হাসান, শাহাদাত হোসেন দিপু, আকবর আলি, ইয়াসির আলি রাব্বি, সাব্বির রহমান, মেহেদী হাসান রানা, মুক্তার আলি, শফিকুল ইসলাম, আবু হায়দার রনি, পিনাক ঘোষ, রবিউল ইসলাম রবি।

জেমকন খুলনা : সাকিব আল হাসান, মাহমুদউল্লাহ, ইমরুল কায়েস, হাসান মাহমুদ, আল-আমিন হোসেন সিনিয়র, এনামুল হক বিজয়, শামীম পাটোয়ারি, আরিফুল হক, শফিউল ইসলাম, শুভাগত হোম চৌধুরী, শহিদুল ইসলাম, রিশাদ হোসেন, জাকির হাসান, নাজমুল ইসলাম অপু, সালমান হোসেন, জহুরুল ইসলাম অমি।

মিনিস্টার গ্রুপ রাজশাহী : মোহাম্মদ সাইফুদ্দিন, শেখ মেহেদী, নাজমুল হোসেন শান্ত, নুরুল হাসান সোহান, ফরহাদ রেজা, মোহাম্মদ আশরাফুল, আরাফাত সানি, ইবাদত হোসেন, ফজলে মাহমুদ রাব্বি, রনি তালুকদার, আনিসুল ইমন, রেজাউর রহমান, জাকের আলি অনিক, রকিবুল হাসান (সিনিয়র), মুকিদুল ইসলাম মুগ্ধ, সানজামুল ইসলাম।

গাজি গ্রুপ চট্টগ্রাম : মুস্তাফিজুর রহমান, লিটন দাস, মোহাম্মদ মিঠুন, সৌম্য সরকার, মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত, শরিফুল ইসলাম, জিয়াউর রহমান, তাইজুল ইসলাম, শামসুর রহমান, নাহিদুল ইসলাম, সৈকত আলি, মুমিনুল হক, রাকিবুল হাসান, সঞ্জিত সাহা, মাহমুদুল হাসান জয়, মেহেদী হাসান (অ-১৯ পেসার)।

ফরচুন বরিশাল : তামিম ইকবাল, আফিফ হোসেন, তাসকিন আহমেদ, ইরফান শুক্কুর, মেহেদী হাসান মিরাজ, আবু জায়েদ চৌধুরী রাহি, তৌহিদ হৃদয়, তানবির ইসলাম, সুমন খান, সাইফ হাসান, আমিনুল ইসলাম বিপ্লব, মাহিদুল ইসলাম অঙ্কন, পারভেজ হোসেন ইমন, কামরুল ইসলাম রাব্বি, আবু সায়েম, সোহরাওয়ার্দি শুভ।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: দুর্দান্ত-খুলনা
আরও পড়ুন