Inqilab Logo

ঢাকা শনিবার, ২৩ জানুয়ারি ২০২১, ০৯ মাঘ ১৪২৭, ০৯ জামাদিউস সানী ১৪৪২ হিজরী

মায়ের সাথে অভিমান করে নদীতে ঝাঁপ

বরিশাল ব্যুরো : | প্রকাশের সময় : ১৬ নভেম্বর, ২০২০, ১২:০১ এএম

মায়ের সাথে অভিমান করে লঞ্চ থেকে নদীতে ঝাঁপ দিয়েছে ফাল্গুনী আক্তার নামে এক স্কুল শিক্ষিকা। গত শনিবার রাতে বরিশাল থেকে ঢাকাগামী এমভি সুন্দরবন-১০ লঞ্চের যাত্রী ছিলেন ফাল্গুনী। মায়ের সাথে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে রাত ১০টার দিকে সে কির্তনখোলা নদীতে ঝাপ দেয়। লঞ্চটি তখন বরিশালের চরমোনাই এলাকা অতিক্রম করছিল। এর ঘণ্টাখানেক পর স্থানীয় জেলেরা নদীতে ভাসমান অবস্থায় ফাল্গুনীকে উদ্ধার করে। তার বাড়ি ভোলায় লালমোহন উপজেলায়। সেখানকার একটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষিকা ফাল্গুনী।

সুন্দরবন-১০ লঞ্চের সুপারভাইজার মো. হারন-অর রশিদ জানান, বরিশাল নদীবন্দর থেকে রাত ৯টার দিকে লঞ্চটি ঢাকার উদ্দেশে যাত্রা করে। রাত ১০টার দিকে কীর্তনখোলা নদীর চরমোনাই এলাকা অতিক্রমকালে এক বৃদ্ধা নারী জানান তার মেয়ে নদীতে পড়ে গেছে।

সঙ্গে সঙ্গে লঞ্চ থামিয়ে সার্চ লাইট দিয়ে নদীতে সন্ধান চালানোর পাশাপাশি লঞ্চের মাইকে নদী তীরের বাসিন্দা ও নদীতে থাকা জেলেদের বিষয়টি জানানো হয়। দীর্ঘক্ষণ সন্ধান চালানোর পরও কোন সন্ধান না পেয়ে লঞ্চটি আবার ঢাকার উদ্দেশে যাত্রা করে। ঘণ্টাখানেক পর বরিশাল কোতয়ালী থানার এসআই মো. রিয়াজ মুঠোফোনে জানান, ওই নারী যাত্রীকে স্থানীয় জেলেরা জীবিত উদ্ধার করেছেন। তিনি সুস্থ আছেন। খবর পাওয়ার পর লঞ্চে থাকা ওই নারী যাত্রীর মা ও খালাকে বিষয়টি জানানো হয়।

কোতয়ালী থানার এসআই মো. রিয়াজ জানান, রাত ১১টার দিকে কয়েকজন জেলে হাবুডুবু খাওয়া অবস্থায় এক নারীকে উদ্ধার করেন। উদ্ধারের পর ওই নারী যাত্রী কিছুটা সময় অচেতন ছিলেন। জ্ঞান ফিরে এলে তিনি জেলেদের কাছে তার পরিচয় দিয়ে জানান, লঞ্চে ওঠার পর তার মা তাকে বকাঝকা করেন। এ কারণে লঞ্চ থেকে তিনি নদীতে ঝাপ দিয়েছিলেন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: নদীতে-ঝাঁপ
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ