Inqilab Logo

ঢাকা বুধবার, ২৭ জানুয়ারি ২০২১, ১৩ মাঘ ১৪২৭, ১৩ জামাদিউস সানী ১৪৪২ হিজরী

হামে মৃত্যুর সংখ্যা বেড়েছে: বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৬ নভেম্বর, ২০২০, ১১:১৫ এএম

করোনাভাইরাসের প্রাদূর্ভাবের মধ্যে বিশ্বজুড়ে বেড়েছে হামে মৃত্যুর হার। এতে বিশ্বে ছড়িয়ে পড়েছে বাড়তি আতঙ্ক। একদিকে করোনার দ্বিতীয় ঢেও অন্যদিকে হাম।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা ডাব্লিউএইচও বলছে, হামের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে অগ্রগতির পরেও গত কয়েক বছর ধরে হামের প্রকোপ আবারও বাড়ছে এবং করোনা মহামারির কারণে পরিস্থিতি আরো কঠিন হয়ে পড়ছে৷

ডাব্লিউএইচও এবং মার্কিন স্বাস্থ্য কর্তৃপক্ষ সিডিসির মতে, গত বছর প্রায় দুই লাখ সাত হাজার পাঁচশ মানুষ মিজলস বা হামে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছে৷ তারা জানিয়েছে, ২০১৬ সালের চেয়ে মৃতের সংখ্যা বেড়েছে শতকরা ৫০ ভাগ, যাদের অনেকের মৃত্যুই প্রতিরোধ করা যেত৷

ডাব্লিউএইচওর তথ্য মতে, ২০১৯ সালে হামে সংক্রমিতের সংখ্যা ছিল প্রায় আট লাখ ৭০ হাজার জন- যা ১৯৯৬ সালের পর সবচেয়ে বেশি৷ কোভিড-১৯ এর কারণে ২৬ দেশের প্রায় সাড়ে নয় কোটি মানুষকে এবছর টিকা দেয়া সম্ভব হবেনা৷

হাম রোগে আফ্রিকার দেশগুলোই বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে৷ বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার বিশেষজ্ঞ নাতাশা ক্রোকক্রফ্ট জানিয়েছেন, অনেক দেশেই শিশুদের প্রয়োজনীয় টিকাগুলো দেওয়া হয়না, ফলে করোনা মহামারির কারণে পরিস্থিতি আরো খারাপ হচ্ছে৷ তবে জাতিসংঘের শিশু তহবিল ইউনিসেফের পরিচালক হেনরিটা ফোর বলেন, ‘‘আমাদের অবশ্যই মনে রাখতে হবে যে একটি মারাত্মক রোগের বিরুদ্ধে লড়ে যাওয়ার কারণে যেন অন্য লড়াই বাধাগ্রস্থ না হয়৷''

শিশুদের রোগ হিসেবে হাম (লাল ব়্যাশ) পরিচিত হলেও এ রোগ বড়দেরও হয়ে থাকে এবং হলে মারাত্মক আকার ধারণ করতে পারে৷ জ্বর, সর্দি, কাশি, গলা ব্যথা, জয়েন্টে ব্যথা এসবই হাম রোগের প্রথম উপসর্গ৷ ২০১৯ সালে হামের প্রকোপ সবচেয়ে বেশি দেখা দেয় আফ্রিকার ডিআর কঙ্গো, জর্জিয়া, কাজাখস্তান, ইউক্রেনসহ নয়টি দেশে৷ ডয়চে ভেলে



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা

১১ সেপ্টেম্বর, ২০২০

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ