Inqilab Logo

ঢাকা, সোমবার, ২১ জুন ২০২১, ০৭ আষাঢ় ১৪২৮, ০৯ যিলক্বদ ১৪৪২ হিজরী

মুসলিম উম্মাহ’র নিকট ফ্রান্স সরকার ঘৃণার পাত্র

ফ্রান্সে রাসুল (সা.) ব্যঙ্গচিত্র প্রকাশের প্রতিবাদ অব্যাহত বিভিন্ন ইসলামী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৯ নভেম্বর, ২০২০, ১২:০২ এএম

ফ্রান্সে রাষ্ট্রীয় পৃষ্ঠপোষকতায় মহানবী (সা.) ব্যঙ্গচিত্র কার্টুন প্রকাশের বিরুদ্ধে বিভিন্ন ইসলামী সংগঠনের তীব্র প্রতিবাদ অব্যাহত রয়েছে। গতকাল বিভিন্ন সংগঠনের নেতৃবৃন্দ বলেছেন, মহানবী (সা.) এর অবমাননার ঘটনায় জাতিসংঘ থেকে ফ্রান্সকে বহিষ্কারের কোন বিকল্প নেই। সারা বিশ্ব আজ তাকিয়ে আছে জাতিসংঘের দিকে অথচ তারা ফ্রান্সের বিরুদ্ধে কোনো শাস্তিমূলক ব্যবস্থা না নিয়ে আমাদেরকে হতাশ করেছে। মহানবী (সা.) এর ব্যঙ্গচিত্র কার্টুন প্রকাশ করে ফ্রান্স সরকার মুসলিম উম্মাহ’র নিকট ঘৃণার পাত্রে পরিণত হয়েছে। অবিলম্বে ফ্রান্সের সাথে কূটনৈতিক সর্ম্পক ছিন্ন এবং দেশটির সকল পণ্য বর্জন করতে হবে।

বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্ট: ফ্রান্সে রাষ্ট্রীয় মদদে রাসুল (সা.)-এর শানে অবমাননার প্রতিবাদে বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্টের উদ্যোগে গতকাল বুধবার দুপুর ১২ টায় বাংলাদেশে আবাসিক প্রতিনিধির মাধ্যমে জাতিসংঘের মহাসচিবের বরাবরে স্মারকলিপি প্রদান উপলক্ষে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে গণজমায়েতে নেতৃবৃন্দ বলেন, মহানবী (সা.) এর অবমাননার ঘটনায় জাতিসংঘ থেকে ফ্রান্সকে বহিষ্কারের কোন বিকল্প নেই। ফ্রান্সের বিরুদ্ধে কোনো শাস্তিমূলক ব্যবস্থা না নিয়ে জাতিসংঘ আমাদেরকে হতাশ করেছে। মহানবী (সা.) এর ব্যঙ্গচিত্র কার্টুন প্রকাশ করে ফ্রান্স সরকার মুসলিম উম্মাহ’র নিকট ঘৃণার পাত্রে পরিণত হয়েছে। ফ্রান্সের রাষ্ট্রীয় মদদে রাসুল (সা.)-এর শানে অবমাননা এটা মুসলিম জাতির সাথে প্রহসন ছাড়া আর কিছুই নয়। অবিলম্বে ফ্রান্সের সাথে কূটনৈতিক সর্ম্পক ছিন্ন এবং দেশটির সকল পণ্য বর্জন করতে হবে। গণজমায়েতে সভাপতিত্ব করেন বাংলদেশ ইসলামী ফ্রন্টের মহাসচিব আল্লামা এম এ মতিন।

বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্টের মহাসচিব আল্লামা এম এ মতিন বলেন, ফ্রান্সে মহানবী (সা.) শানে বেয়াদবির কারণে দেশটির স্থায়ী সদস্য পদ বাতিলের দাবিতে আমরা জাতিসংঘের মহাসচিবের কাছে স্মারকলিপি প্রদানের কর্মসূচি হাতে নিয়েছি। সংগঠনের দপ্তর সচিব মুহাম্মদ আবদুল হাকিমের সঞ্চালনায় গণজমায়েতে আরো বক্তব্য রাখেন, বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্টের সিনিয়র সাংগঠনিক সচিব সৈয়দ মুজাফফ্র আহমদ মুৃজাদ্দেদী, যুবসেনার কেন্দ্রীয় সভাপতি যুবনেতা গোলাম মাহমুদ ভূঁইয়া মানিক, আহলে সুন্নাত ওয়াল জামা’আত বাংলাদেশের অর্থ সম্পাদক অ্যাডভোকেট মোখতার আহমদ, বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রসেনার কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক ছাত্রনেতা মুহাম্মদ ইমরান হুসাইন তুষার, ইসলামী ফ্রন্ট ঢাকা মহানগরীর অর্থ সম্পাদক মুহাম্মদ অ্যাডভোকেট হেলাল উদ্দিন, কাজী মুহাম্মদ জসিম উদ্দীন নূরী, মাওলানা শিহাবুদ্দীন নূরী, রেহানে মুস্তফা, যুবসেনার কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক অধ্যক্ষ আবু নাসের মুহাম্মদ মুসা, ছাত্রসেনা ঢাকা মহানগর উত্তরের সভাপতি ছাত্রনেতা হাফেজ মোহাম্মদ ওমর ফারুক, দক্ষিণের সাধারণ সম্পাদক ছাত্রনেতা হাফেজ মোহাম্মদ জাহিদুর রহমান,অ্যাডভোকেট আবুল কালাম আজাদ, মুহাম্মদ মিজানুর রহমান, মাওলানা মোহাম্মদ শাফায়াত উল্লাহ ও আল মিরাজ।

গণজমায়েত শেষে একটি মিছিল নিয়ে জাতিসংঘের কার্যালয়ের দিকে রওনা দিলে কদম ফোয়ারায় পুলিশ আটকে দিলে মহাসচিব আল্লামা এম এ মতিনের নেতৃত্বে একটি প্রতিনিধি দল গাড়ি যোগে রোকেয়া স্মরণী (আগারগাঁও) জাতিসংঘের আবাসিক প্রতিনিধির হাতে দাবি সম্বলিত স্মারকলিপিটি প্রদান করা হয়।
ছাত্র আনজুমানে আল বাইয়্যিনাত : ফ্রান্সে রাষ্ট্রীয় পৃষ্ঠপোষকতায় মহানবী (সা.) এর ব্যঙ্গচিত্র কার্টুন প্রকাশের কারণে মুসলিম উম্মাহকে দেশটির সাথে সকল প্রকার কূটনৈতিক সর্ম্পক ছিন্ন করতে হবে। মহানবী (সা.) কে অবমাননার দরুণ ফ্রান্সের বিরুদ্ধে অর্থনৈতিক অবরোধ আরোপ করতে হবে। ফরাসি প্রেসিডেন্ট ম্যাখোঁর বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক আদালতে মামলা দায়ের করতে হবে। মহানবী (সা.) এর সাথে বেয়াদবির কারণে দেশটির সকল পণ্য বর্জন করতে হবে। ফ্রান্সের সমর্থনকারী ভারতের সকল পণ্যও বর্জন করতে হবে। নবীর দুশমনদের সাথে মুসলমানরা কোনো দিন আপোস করতে পারে না। গতকাল বুধবার জাতীয় প্রেসক্লাবের হল রুমে ফ্রান্সে মহানবী (সা.) এর ব্যঙ্গচিত্র প্রকাশের প্রতিবাদে ছাত্র আনজুমানে আল বাইয়্যিনাত আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে নেতৃবৃন্দ এসব কথা বলেন। সংবাদ সম্মেলনে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, ছাত্র আনজুমানের সভাপতি মুহম্মদ রিয়াদুজ্জামান, সেক্রেটারী মুহম্মদ মাসউদুর রহমান ফাহিম,উপদেষ্ঠা মুহম্মদ মাবরুরুল হক ফুয়াদ, মুহম্মদ সিরাজুদ্দিন আখি,মুহাম্মদ রাহাতুল আলম কাদেরী রাজ, মুহম্মদ রহিত হাসান, মুহম্মদ বদরুল আরেফীন। নেতৃবৃন্দ বলেন, ফরাসি প্রেসিডেন্ট ম্যাখোঁ মহানবীর অবমাননা করে ক্ষমার অযোগ্য অপরাধ করেছেন। তাকে অবিলম্বে প্রকাশ্যে ক্ষমা চাইতে হবে। নেতৃবৃন্দ ওআইসি ও জাতিসংঘকে মহানবী (সা.) এর অবমাননার প্রতিবাদে ফ্রান্সের বিরুদ্ধে কার্যকরী ব্যবস্থা নেয়ার জোর দাবি জানান। নেতৃবৃন্দ বলেন, মহানবীর অবমাননার দরুণ মুসলিম দেশগুলো থেকে ফ্রান্সের দূতাবাস প্রত্যাহার করতে হবে। নবী (সা.) এর অবমাননার একমাত্র মৃত্যুদন্ড আইন প্রণয়ন করতে হবে। ইসলাম বিদ্বেষী বক্তব্যেও কারণে হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান ঐক পরিষদকে নিষিদ্ধ করতে হবে। ৯২% মুসলমানের দেশে যারাই ইসলামের বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালাবে তাদের এদেশে থাকার অধিকার নেই। এদেশে ইসলাম ছিল ইসলাম আছে এবং ইসলাম অনন্তকাল থাকবে ইনশাআল্লাহ। তারা বলেন, মহানবীর শানে কোনো প্রকার বেয়াদবি বরদাশত করা হবে না। নেতৃবৃন্দ ফ্রান্সের বিরুদ্ধে তীব্র নিন্দা প্রস্তাব গ্রহণ এবং দেশটির সকল পণ্য বর্জনের জন্য সরকারকে ঘোষণা দেয়ার দাবি জানান। নেতৃবৃন্দ বলেন, মহানবী (সা.) এর সাথে বেয়াদবির কারণে ফ্রান্স একদিন পৃথিবীর মানচিত্র থেকে হারিয়ে যাবে। ফ্রান্সের কুলাঙ্গার প্রেসিডেন্ট ম্যাখোঁকে মুসলমানরা একদিন উচিৎ শিক্ষা দিবে ইনশাআল্লাহ।



 

Show all comments
  • জসিম ১৯ নভেম্বর, ২০২০, ২:৪৮ এএম says : 0
    ফ্রান্স সরকার নিজেরাই নিজেদের দুর্ভোগ ডেকে আনছে
    Total Reply(0) Reply
  • কামাল রাহী ১৯ নভেম্বর, ২০২০, ৯:৪৬ এএম says : 0
    ম্যাখোকে অবশ্যই ক্ষমা চাইতে হবে।
    Total Reply(0) Reply
  • মোহাম্মদ মোশাররফ ১৯ নভেম্বর, ২০২০, ৯:৪৬ এএম says : 0
    ফ্রান্সের ওপর আল্লাহর গজব আসন্ন।
    Total Reply(0) Reply
  • মেহেদী ১৯ নভেম্বর, ২০২০, ৯:৪৭ এএম says : 0
    ফ্রান্স অবশ্যই আমাদের কাছে ঘৃণার পাত্র।
    Total Reply(0) Reply
  • Muhammad zakir Hossain ১৯ নভেম্বর, ২০২০, ৪:২৩ পিএম says : 0
    ধন্যবাদ ছাত্র আনজুমান আরা বাইয়্যিনাতকে
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ফ্রান্সে মহানবী (সা.)
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ