Inqilab Logo

ঢাকা সোমবার, ১৮ জানুয়ারি ২০২১, ০৪ মাঘ ১৪২৭, ০৪ জামাদিউস সানী ১৪৪২ হিজরী
শিরোনাম

জো বাইডেনকে ইরানের সঙ্গে সংলাপে বসার আহ্বান মোগেরিনির

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৯ নভেম্বর, ২০২০, ১১:২২ এএম

ইউরোপীয় ইউনিয়ন বা ইইউ’র পররাষ্ট্রনীতি বিষয়ক সাবেক প্রধান কর্মকর্তা ফেডেরিকা মোগেরিনি আমেরিকার নির্বাচিত প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনকে ইরানের সঙ্গে আলোচনায় বসার আহ্বান জানিয়েছেন। তিনি বলেছেন, সব পক্ষ ইরানের পরমাণু সমঝোতার পরিপূর্ণ বাস্তবায়ন না করলে তেহরান নতুন করে সংলাপে বসবে না।

মোগেরিনি গতকাল (বুধবার) আটলান্টিক কাউন্সিল থিংক ট্যাংকের সঙ্গে আলাপ করার সময় এ আহ্বান জানান। তিনি বলেন, হোয়াইট হাউজ থেকে ডোনাল্ড ট্রাম্প বিদায় নেয়ার পরও আমেরিকার পরমাণু সমঝোতায় ফিরে আসা নিয়ে ইরানের উদ্বেগ কাটবে না, কারণ পরবর্তীতে আবার কোনো রিপাবলিকান প্রেসিডেন্ট ক্ষমতায় এসে আমেরিকাকে এই সমঝোতা থেকে বের করে নিতে পারেন।

সেজন্য মার্কিন সরকারের পক্ষ থেকে এ ব্যাপারে এমন কোনো কার্যকর পদক্ষেপ নেয়ার আহ্বান জানান যার ফলে হোয়াইট হাউজের ক্ষমতায় পরিবর্তনের সঙ্গে সঙ্গে পরমাণু সমঝোতা থেকে আমেরিকাকে বের করে নেয়া না যায়।

ইউরোপীয় ইউনিয়নের সাবেক এই কূটনীতিক দাবি করেন, ইরানকে একটি পরমাণু শক্তিধর দেশ হওয়া থেকে বিরত রাখার একমাত্র উপায় হচ্ছে পরমাণু সমঝোতা পুরোপুরি বাস্তবায়ন করা।

২০১৫ সালে সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার শাসনামলে আমেরিকাসহ ছয় জাতিগোষ্ঠী ইরানের সঙ্গে পরমাণু সমঝোতায় স্বাক্ষর করেছিল। আমেরিকা, ব্রিটেন, ফ্রান্স, জার্মানি, চীন ও রাশিয়ার সঙ্গে ইরানের ওই সমঝোতা স্বাক্ষরে মধ্যস্থতার ভূমিকা পালন করেছিলেন ফেডেরিকা মোগেরিনি।

কিন্তু ২০১৮ সালে রিপাবলিকান প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ওই সমঝোতা থেকে আমেরিকাকে বের করে নেন। এবার বারাক ওবামার ভাইস প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন নির্বাচনি প্রতিশ্রুতিতে বলেছিলেন, তিনি কিছু শর্তসাপেক্ষে ইরানের পরমাণু সমঝোতায় ফিরবেন। কিন্তু তেহরান বলছে, আমেরিকাকে নিঃশর্তভাবে এই সমঝোতায় ফিরতে হবে।এরকম একটি পরিস্থিতিতে মোগেরিনি এ বক্তব্য দিলেন।

সূত্র: পার্সটুডে



 

Show all comments
  • Shafiqul Islam ১৯ নভেম্বর, ২০২০, ১১:৫৮ এএম says : 0
    পারমাণবিক অস্ত্র ব্যবহারের ভয়াবহতা পৃথিবীবাসী হিরোশিমা, নাগাসাকিতে দেখেছে। তাই বলবো, প্রথমত বিশ্বের কোন রাষ্ট্রের অস্ত্রভান্ডারেই পারমাণবিক অস্ত্র থাকা কাম্য নয়। তারপরও যদি সার্বভৌমত্ব রক্ষার অজুহাতে পারমাণবিক অস্ত্র তৈরী করতেই হয় তাহলে যেসকল রাষ্ট্রের পারমাণবিক অস্ত্র তৈরীর সামর্থ্য আছে তাদের সকলকেই এই মারণাস্ত্র (পারমাণবিক অস্ত্র) তৈরী করা উচিৎ। গুটিকয়েক রাষ্ট্রের হাতে এই অস্ত্র থাকা সমর্থনযোগ্য নয়।
    Total Reply(0) Reply
  • JALALUDDIN ১৯ নভেম্বর, ২০২০, ১০:০২ পিএম says : 0
    কোন দেশের হাতে পরমাণু মারনাস্ত্র থাকা যাবেনা।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ইরান-যুক্তরাষ্ট্র


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ