Inqilab Logo

ঢাকা, শুক্রবার, ১৪ মে ২০২১, ৩১ বৈশাখ ১৪২৮, ০১ শাওয়াল ১৪৪২ হিজরী

দক্ষিণাঞ্চল জুড়ে ফের সক্রিয় কিশোর গ্যাং

জনজীবনে শান্তি-শৃংখলা বিঘ্নিত হচ্ছে

বরিশাল ব্যুরো | প্রকাশের সময় : ১৯ নভেম্বর, ২০২০, ৫:২৭ পিএম | আপডেট : ৬:০১ পিএম, ১৯ নভেম্বর, ২০২০

বরিশাল মহানগরী সহ দক্ষিণাঞ্চল যুড়ে ফের বেপরোয়া হয়ে উঠছে কিশোর গ্যাং চক্র। গত বছর বরগুনায় রিফাত শরিফ-এর নৃসংশ হত্যাকান্ডের পরে দেশব্যাপী ব্যাপক আলোচিতÑসমালোচিত কিশোর গ্যাং কিছুটা স্তিমিত হলেও বছর না ঘুরতেই তারা আবার সমূর্তিতে আবিভর্’ত হয়েছে। সম্প্রতি রিফাত হত্যা মামলার রায়ে কয়েক জনের ফাঁসি সহ বিভিন্ন মেয়াদের কারাদন্ডের পরে সাধারন মানুষ আশা করেছিল, এসব গ্যাংদের অনৈতিক কর্মকান্ডে হয়ত কিছুটা ভাটা পড়বে। কিন্তু সমাজের শান্তিপ্রিয় মানুষের সে আশা পুরন হয়নি। বছরখানেক আগে আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর কঠোর মনোভাবে কিশোর গ্যাং নিস্ক্রীয় হলেও পুনরায় এসব গ্যাং সন্ত্রাসী কর্মকান্ডে ফিরে এসেছে। এমনকি করনো সংকট শুরুর প্রথম দিকে এসব গ্যাং অনেকটাই নির্জিব হয়ে পড়লেরও সময়ের ব্যাবধানে পুরনো সংস্কৃতিতে ফিরেছে তারা।
অতি সম্প্রতি একরাতে অভ্যন্তরীণ বিরোধের জের ধরে সরকারি বরিশাল কলেজ ছাত্রদলের আহ্বায়ক রফিকুল ইসলাম টিপুকে কুপিয়ে জখম করেছে কিশোর গ্যাং-এর একটি গ্রুপ। নগরীর প্রতিটি পাড়াÑমহল্লায় এসব গ্যাং অনেকটাই ভীতিকর পরিবেশ তৈরী করে ফেলেছে। এরা পাড়া-মহল্লা সহ নগরবাসির নুন্যতম বিনোদনের পার্ক এবং ওয়াকয়েগুলোর নিয়ন্ত্রওও গ্রহন করেছে। বিভিন্ন এলাকার ভাগ্য নিয়ন্তার ভ’মিকাও তারা। এমনকি করোনা মহামারীও তাদের দমাতে পারছে না। গোটা দক্ষিণাঞ্চলের মধ্যে বরিশাল মহানগরীর অবস্থা সবচেয়ে নাজুক হলেও এনগরীতে কিশোরÑগ্যাং’দের তৎপড়তা ক্রমশ নিয়ন্ত্রনের বাইরে চলে যাচ্ছে বলেও মনে করছেন সচেতন নাগরিক সমাজ। নগরীর স্বাধিনতা পার্ক, মুক্তিযোদ্ধা পার্ক ও নবগ্রাম রোড -চৌমুহনীর লেকের পাড়ে কিশোর গ্যাং-এর অপ তৎপড়তায় সাধারন মানুস অসহায়। এমনকি বঙ্গবন্ধু উদ্যান ও তার ওয়াকওয়েতেও এখন কিশোর গ্যাং-এর অনৈতিক কর্মকান্ড চলছে।
গ্যাং কালচার নিয়ে নতুন করে নগরবাসীর মাঝে ভীতি সৃষ্টি হলেও ‘বরিশাল মহানগরীতে কোন ধরনের গ্যাং কালচার চলতে দেয়া হবে না’ বলে জানিয়েছেন মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার মো. শাহাবুদ্দিন খান। ‘যারাই গ্যাং কালচার করতে আসবে তাদের কঠোরভাবে দমন করা’র হুশিয়ারীও দিয়েছেন তিনি। নগরবাশী পুলিশ কমিশনারের এ বক্তব্যে আস্থা রাখতে রাজী হলেও ভরসার পরিবেশ সৃষ্টিরও দাবী করেছেন।
গত শনিবার রাতে ‘আব্বা গ্রুপ’ নামের কিশোর গ্যাং’র সশস্ত্র হামলার শিকার সরকারি বরিশাল কলেজ ছাত্রদলের আহ্বায়ক রফিকুল ইসলাম টিপুকে মধ্য রাতে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় পাঠানো হয়েছে। সেখানে তার শারীরিক অবস্থা স্থিতিশীল হলেও এলাকার মানুষের মধ্যে আতংক রয়েছে।
বরগুনায় কলেজ ছাত্র রিফাত শরীফের ওপর কিশোর গ্যাংয়ের নারকীয় হামলার ঘটনায় গোটা দেশ কেঁপে ওঠে। ওই ঘটনার পর থেকেই দেশ জুড়ে কিশোর গ্যাং দমনে মাঠে নামে র‌্যাব এবং পুলিশসহ আইনÑশৃঙ্খলা বাহিনী। দেশ জুড়ে ধরপাকড়ের ফলে প্রায় নিস্ক্রিয় হয়ে পড়ে কিশোর গ্যাং। এতে সাধারন মানুষের মাঝে স্বস্তি ফিরলেও সম্প্রতি পরিস্থিতির যথেষ্ঠ অবনতি ঘটেছে।
সংঘবদ্ধ মোটর সাইকেল মহড়া, ছিনতাই, মাদক বহন,ইভটিজিং এবং হামলাসহ বিভিন্ন অপরাধমূলক কর্মকান্ডে জড়িয়ে পরছে তারা। বরিশাল মহানগরীতে বেশীরভাগ কিশোর গ্যাং-এর দলীয় কোন পরিচয় নেই। তারা একেক সময় একেক দলের কথিত নেতা-কর্মী পরিচয় দিয়ে থাকে। স্থানীয় একাধিক সূত্র জানিয়েছে, ‘নগরীতে কিশোর গ্যাং ‘সৌরভ বালা গ্রুপ’র দৌরাত্ম্য দীর্ঘ দিন ধরেই। মাঝে আইনÑশৃঙ্খলা বাহিনীর তৎপড়তায় নীরব থাকলেও বর্তমানে তারা নগরীর সদর রোড, কালীবাড়ি রোড, ফকিরবাড়ি রোড, বগুড়া রোড, বটতলা এবং অক্সফোর্ড মিশন রোডসহ আশপাশের এলাকা দাপিয়ে বেড়াচ্ছে। এ গ্রুপের বিরুদ্ধে ইতিপূূর্বে একাধিক মামলা থাকলেও তাদের কর্মকান্ড থেমে থাকেনি।
নগরীর জেলা স্কুল, ব্রাউন কম্পাউন্ড রোড ও গোড়াচাঁদ দাস রোড এবং বিএম কলেজ এলাকায় রয়েছে পৃথক দুটি কিশোর গ্যাং। যাদের একটি বিএম কলেজের অভ্যন্তরে এবং অন্যটি নগরীর জিলা স্কুল মোড়ে আড্ডা দেয়। সেখানে বসেই মাদক সেবনসহ বিভিন্ন সন্ত্রাসী কর্মকান্ড করে আসছে তারা। এদের বিরুদ্ধ দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহনের দাবী স্থানীয়দের।
পটুয়াখালী, ভোলা, পিরোজপুর, বরগুনা এবং ঝালকাঠী শহর ও উপজেলা সদরগুলোতেও একাধীক কিশোর গ্যাং ক্রমে সংগঠিত হচ্ছে। এদের কর্মকান্ডে সমাজের শান্তিপ্রিয় মানুষের মধ্যে আস্থার সংকট সৃষ্টি হচ্ছে ক্রমশ।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: কিশোর গ্যাং

১৪ জানুয়ারি, ২০২১

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ