Inqilab Logo

ঢাকা শনিবার, ০৫ ডিসেম্বর ২০২০, ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ১৯ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরী

লাখো মানুষের ঢল

আল্লামা সরোয়ার সাঈদীর জানাজা ও দাফন সম্পন্ন

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা ও কসবা (ব্রাহ্মণবাড়িয়া) উপজেলা সংবাদদাতা : | প্রকাশের সময় : ২২ নভেম্বর, ২০২০, ১২:০০ এএম

প্রখ্যাত মুফাসসির, গবেষক, ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবার আড়াইবাড়ী কামিল মাদরাসার প্রিন্সিপাল ও আড়াইবাড়ী দরবার শরিফের পীর আল্লামা গোলাম সারোয়ার সাঈদীর জানাজা ও দাফন সম্পন্ন হয়েছে। জানাজায় অংশ নেন দেশবরেণ্য ওলামা, পীর মাশায়েখ, বিভিন্ন রাজনৈতিক দল ও শ্রেণিপেশার লাখো জনতা।
গতকাল বাদ আসর আড়াইবাড়ী কামিল মাদরাসা মাঠে মরহুমের জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। জানাজা শেষে দরবার শরীফ মসজিদ সংলগ্ন পিতা ও দাদার কবরের পাশে তার লাশ দাফন করা হয়। তার মৃত্যুতে (ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৪) কসবা-আখাউড়ার সংসদ সদস্য আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রী আনিসুল হক গভীর শোক ও সমবেদনা প্রকাশ করেন।
জানা গেছে, দুপুর সাড়ে ১২ টায় মরহুমের লাশ ঢাকা থেকে কসবা আড়াইবাড়ী পৌঁছে। এসময় লাশবাহী গাড়ি মরহুমের প্রিয় ক্যাম্পাস মাদরাসা মাঠে রাখা হয়। প্রিয় আল্লামাকে এক নজর দেখতে ভীর জমায় হাজার হাজার ভক্ত ও মুসল্লীরা। এসময় শোকাহত তাওহীদী জনতার আল্লাহু আকবর ধ্বনি ও কান্নায় এক হৃদয় বিদারক দৃশ্যের অবতারণা হয়। বাদ আসর জানাজা হলেও যোহরের আগে থেকেই কানায় ভরে যায় মাদরাসা ময়দান। মাঠে জায়গা সংকুলান না হওয়ায় মসজিদ, পার্শবতী ফসলের মাঠ, মাদরাসার প্রতিটি কক্ষ, ছাদ ও রাস্তাঘাটসহ আনাচে কানাচের বিভিন্ন জায়গায় দাঁড়িয়ে মানুষ জানাজায় অংশ নেন। জানাজায় ইমামতি করেন মরহুমের বড় ছেলে হাফেজ ছেলে হাফেজ মাওলানা আব্দুস সোবহান।
জানাজাপূর্ব বক্তব্য রাখেন, সোনাকান্দার পীর মাওলানা মাহমুদুল হাসান, নাগাইশের পীর মাওলানা মোস্তাক ফয়েজী, কসবা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এ্যাড. রাশেদুল কাউছার জীবন ও কসবা পৌর মেয়র এমরান উদ্দিন জুয়েলসহ প্রমুখ।
এর আগে উপমহাদেশের প্রখ্যাত আলেম আল্লামা গোলাম সারোয়ার সাঈদী কিছুদিন আগে কোভিড-১৯-এ আক্রান্ত হয়ে ঢাকার এপোলো হাসপাতালে ভর্তি হয়ে লাইফ সাপোর্টে ছিলেন। তিনি গতকাল ভোর ৪টা ১৫ মিনিটে উক্ত হাসপাতালে ইন্তেকাল করেন। (ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন) কর্মজীবনে তিনি ছিলেন উপমহাদের একজন প্রখ্যাত ইসলামিক স্কলার। মাহফিল, সভা, সমাবেশ ও ইউটিউবে তার যুক্তিপূর্ণ জ্ঞানগর্ভ বক্তব্য সমাজের সকলস্তরের মানুষের হৃদয়কে দারুণভাবে আকৃষ্ট করত। তার দাদা মাওলানা আবু সাঈদ আজগর আহমদ ও বাবা গোলাম হক্কানী ছিলেন দেশ বরেণ্য একজন বুজুর্গ। আড়াইবাড়ী দরবার থাকলেও তিনি এবং তার পূর্বসূরীগণ ছিলেন প্রচলিত পীর বা মাজার থেকে সম্পূর্ণ বিপরীত। কুরআনের দাওয়াত মানুষের কাছে পৌঁছানেই ছিলো আড়াইবাড়ী দরবারের মূল কাজ। পিতার কাছেই পড়ালেখার হাতেখড়ি গোলাম সরোয়ার সাঈদীর। পরে তিনি ঢাকা আলিয়া মাদরাসা থেকে সর্বোচ্চ ডিগ্রি অর্জন কওে আড়াইবাড়ী কামিল মাদরাসার প্রিন্সিপাল নিযুক্ত হয়েছিলেন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: দাফন-সম্পন্ন
আরও পড়ুন