Inqilab Logo

ঢাকা বৃহস্পতিবার, ২১ জানুয়ারি ২০২১, ০৭ মাঘ ১৪২৭, ০৭ জামাদিউস সানী ১৪৪২ হিজরী

আনোয়ারায় মামলা তুলে না নেয়ায় হামলা

আনোয়ারা (চট্টগ্রাম) উপজেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ২৩ নভেম্বর, ২০২০, ১২:০১ এএম

মামলা তুলে নিতে বাদীর বাড়িতে একের পর এক হামলা করছে আসামিরা। গত শনিবার সকাল সাড়ে ৭টায় চট্টগ্রামের আনোয়ারা উপজেলার বৈরাগ ইউনিয়নের পশ্চিম বৈরাগ আবদুল সালামের বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় রক্তাক্ত হন মামলার বাদীসহ নারী-পুরুষ ৮ জন। এর আগে গত শুক্রবার বিকেলে একই এলাকার মোহাম্মদ মফিজ, মোহাম্মদ সোহেল, মোহাম্মদ রাশেদ, আবদুর রহমান, মোহাম্মদ রশিকের নেতৃত্বে বসত বাড়িতে হামলা চালিয়ে মোহাম্মদ নাছিরের পরিবারের লোকজনকে গুরুত আহত করে।
জানা যায়, ২০১৭ সালে মোহাম্মদ নাছিরের স্ত্রী চেমন আরা বেগম বাদী হয়ে সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে মোহাম্মদ হাবিব (৪০)কে আসামি করে একটি মামলা করে।
এই মামলা তুলে নিতে বিভিন্ন কৌশলে বাদীর পরিবারকে হুমকি দিয়ে আসছে আসামিপক্ষের লোকজন। এর পূর্বেও একের পর এক মারধরের ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় গুরুত আহত হয়েছেন একই এলাকার মৃত আবদুল নবীর ছেলে মোহাম্মদ নাছির, মোহাম্মদ জামাল, আমেনা খাতুন, মোহাম্মদ নাছির, মোহাম্মদ নাছিরের ছেলে মোহাম্মদ রায়হান, মোহাম্মদ জামালের স্ত্রী জাহানারা বেগম, মেয়ে শাকি আকতার, নাছিরের মেয়ে নাসমিন আকতার। আহতরা বর্তমানে চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।
আহত মোহাম্মদ নাছির বলেন, মামলা তুলে নিতে আমাকে ও আমার পরিবারকে বিভিন্ন সময়ে প্রাণনাশের হুমকি দিয়ে আসছে তারা। গত ২৯ সেপ্টেম্বর মামলাটি সাক্ষ্য দেয়ার দিন ছিল।
এর জের ধরে গত শুক্রবার আমার ছেলে রায়হার বাড়িতে আসলে মোহাম্মদ মফিজ ধারালো কিরিচ দিয়ে হত্যার উদ্যোশে মাথায় কোপ মারে। এ ঘটনায় আমরা আনোয়ারা থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করলে শনিবার সকাল সাড়ে ৭টায় লোকজন নিয়ে আবারো হামলা চালায় আমাদের উপর।
আনোয়ারা থানার ওসি এস এম দিদারুল ইসলাম সিকদার বলেন, এ ঘটনার খবর পেয়ে দ্রæত ঘটনাস্থলে গিয়ে আহতদের উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়। দুইদিনের ঘটনায় মামলা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। এ ঘটনায় অভিযান চালিয়ে তিনজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে এবং বাকি আসামিদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন