Inqilab Logo

ঢাকা শনিবার, ১৭ এপ্রিল ২০২১, ৪ বৈশাখ ১৪২৮, ০৪ রমজান ১৪৪২ হিজরী
শিরোনাম

নাব্যতা সঙ্কটে আটকে আছে ৩০টি জাহাজ

রাজবাড়ীর নগরবাড়ি-সিরাজগঞ্জের বাঘাবাড়ি নৌরুট

রাজবাড়ী জেলা সংবাদদাতা : | প্রকাশের সময় : ২৩ নভেম্বর, ২০২০, ১২:০০ এএম

তীব্র নাব্যতা সঙ্কটে এক সপ্তাহ যাবৎ অচল রাজবাড়ীর নগরবাড়ি-বাঘাবাড়ি নৌরুট। আর এ কারণে দৌলতদিয়া ৬ নম্বর ফেরিঘাটের কাছে আটকে আছে অন্তত ৩০টি মাল বোঝাই জাহাজ। চালকরা জানান, পদ্মায় নাব্যতা সঙ্কটের কারণে জাহাজ চলাচল মারাত্বকভাবে ব্যাহত হচ্ছে। জাহাজগুলোকে আটকে থাকতে হচ্ছে দিনের পর দিন। জানা গেছে, চট্টগ্রাম বন্দর থেকে সিরাজগঞ্জের বাঘাবাড়িতে পণ্য পরিবহনের সহজ উপায় রাজবাড়ীর নগরবাড়ি বাঘাবাড়ি নৌরুট। প্রতিদিন এই নৌরুট দিয়ে চলাচল করে কয়েক হাজার মালবাহী জাহাজ। কিন্তু গত এক সপ্তাহ যাবৎ পদ্মার পানি কমে যাওয়ায় মোল্লার চর, কাজির হাট, বেতালিয়াসহ বিভিন্ন এলাকায় তৈরি হয়েছে অসংখ্য ডুবোচর। যে কারণে মাঝ পদ্মায় মাঝে মধ্যেই আটকে যাচ্ছে জাহাজ।
গতকাল সকালে সরেজমিনে রাজবাড়ীর দৌলতদিয়া ৬ নম্বর ঘাট থেকে ১ কিলোমিটার দূরে পদ্মা নদীর উত্তর দৌলতদিয়া এলাকায় গিয়ে দেখা যায়, সেখানে আটকে আছে অন্তত ৩০টি বিভিন্ন পণ্য বোঝাই জাহাজ। এসময় তিনটি বড় জাহাজে দেখা যায় শ্রমিকরা ছোট বলগেট জাহাজে মালামাল তুলছে। সার বোঝাই বড় জাহাজ এমভি রামিশার শ্রমিক আনোয়ার খান জানান, কোন উপায় না পেয়ে তারা বড় জাহাজ থেকে নামিয়ে ছোট জাহাজে করে সার, গম, কয়লা, ক্লিংকার, পোল্টি খাদ্যসহ বিভিন্ন পণ্য গন্তব্যে নিচ্ছেন। এতেও পড়তে হচ্ছে নানা বিপাকে, খরচও হচ্ছে দ্বিগুণ।
এমভি হিমু’র চালক (মাস্টার) মো. কামরুজ্জামান জানান, এখানে বেশিরভাগ জাহাজে রয়েছে বিভিন্ন প্রকার সার। যা উত্তরবঙ্গে কৃষিকাজে ব্যবহৃত হয়। নাব্যতা সঙ্কটের কারণে দৌলতদিয়ায় দুই সপ্তাহ আটকে থাকার মানে ওই অঞ্চলে দুই সপ্তাহ পরে সার পৌঁছাবে। এতে পিছিয়ে পড়বে কৃষি কাজ। সেই সাথে উত্তরাঞ্চলের কৃষকদের বেশি দামে ক্রয় করতে হবে সার। তাই দ্রুত সময়ে নদীর ড্রেজিং করে নাব্যতা ফিরিয়ে আনার দাবি করেন তিনি।
বিআইডব্লিউটিএ দৌলতদিয়া কার্যালয়ের সহকারী প্রকৌশলী মো. শহিদুল ইসলাম বলেন, আমরা প্রকৌশল বিভাগ দেখাশোনা করি। নদী ড্রেজিংয়ের ব্যাপারে ওই বিভাগের প্রকৌশলী মো. আক্কাছ মিয়ার সাথে কথা বলতে হবে। আক্কাছ মিয়ার মুঠোফোনে একাধিকবার ফোন দেয়া হলেও তিনি রিসিভ করেননি।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: নাব্যতা-সঙ্কট
আরও পড়ুন