Inqilab Logo

ঢাকা বুধবার, ২৭ জানুয়ারি ২০২১, ১৩ মাঘ ১৪২৭, ১৩ জামাদিউস সানী ১৪৪২ হিজরী

দক্ষিণাঞ্চল ফায়ার সার্ভিস গুরুত্বপূর্ণ ভ’মিকা পালন করলেও জনবল সংকট আর অবকাঠামোর নাজুক অবস্থায় সেবা ব্যহত হচ্ছে

ছয় জেলায় ডুবরী মাত্র ৩জন ১৪টি এ্যাম্বেুলেন্সের ৮টি বিকল

বরিশাল ব্যুরো | প্রকাশের সময় : ২৩ নভেম্বর, ২০২০, ৪:২৭ পিএম

দক্ষিণাঞ্চলে সাধারন মানুষ ছাড়াও সরকারী-বেসরকারী প্রতিষ্ঠানের জানমাল রক্ষায় ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স যথেষ্ঠ গুরুত্বপূর্ণ ভ’মিকা পালন করলেও জনবল সংকট সহ নানা সমস্যায় জর্জরিত গুরুত্বপপূর্ণ এ প্রতিষ্ঠানটি। এখনো দক্ষিণাঞ্চলের ৬ জেলার ৪২ উপজেলার ৪ টিতে দমকল বাহিনী পৌছতে পারেনি। আর পুরো বিভাগের ৬টি জেলা ও ৪২টি উপজেলাতে ফায়ার সার্ভিসের ১৬টি এ্যাম্বুলেন্সের ৮টিই সম্পূর্ণ বিকল। পাশাপাশি নদ-নদীবহুল দক্ষিণাঞ্চলে রিভার ফায়ার স্টেশনের সংখ্যা মাত্র দুটি। বরিশাল ও পটুয়াখালী জেলা সদরের এ দুটি রিভার ফায়ার স্টেশনে এখনো ৩০ বছরে পুরোনা অগ্নি নির্বাপন নৌযান চলছে যোড়াতালি দিয়ে। এসব স্টেশনে এখন আর কোন রিভার এ্যাম্বেুলেন্স নেই। দুটি স্টেশনের রিভার এ্যামস্বুলেন্সই বিকল আরো দেড় যুগ আগে থেকে। আর পুরো বিভাগ যুড়ে দমকল বাহিনীর ডুবুরীর সংখ্যা সর্বসাক’ল্যে মাত্র ৩জন। পটুয়াখালী রিভার ফায়ার স্টেশনে কোন ডুবুরী নেই। অথচ প্রতিটি জেলায় ৬জন ডুবুরী সহ একটি পূর্ণাঙ্গ ইউনিট গঠনের সরকারী সিদ্ধান্ত রয়েছে ।
চলতি বছরের জানুয়ারী থেকে অক্টোবর পর্যন্ত দক্ষিণাঞ্চলে প্রায় সোয়া ৪শ অগ্নিকান্ডের ঘটনায় ২৭ কোটি টাকারও বেশী সম্পদ পুড়ে গেলেও দমকল বাহিনীর নিরলশ প্রচেষ্টায় প্রায় শত কোটি টাকার সম্পদ রক্ষা পেয়েছে বলে জানা গেছে। পাশাপাশি অগ্নি নির্বাপন করতে গিয়ে ফায়ার সার্ভিসের ১জন কর্মী নিহত হওয়া ছাড়াও আরো একাধীক আহত হয়েছেন। এছাড়াও গত ১০ মাসে দক্ষিণাঞ্চলে প্রায় আড়াইশর মত সড়ক দূর্ঘটনা পারবর্তিতে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা দ্রুত উদ্ধার অভিযানে অংশ নেয়। এসব দূর্ঘটনায় ৭৮ জন নিহত ও আরো ৪ শতাধীক যাত্রী ও পরিবহন কর্মীসহ সাধারন পথচারী আহত হন। দূর্ঘটনায় হতাহতদের উদ্ধার সহ সড়কÑমহাসড়ক সচল রাখতে দমকল বাহিনী যথেষ্ঠ গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পালন করে আসছে।
তবে এখনো দক্ষিণাঞ্চলে অগ্নিকান্ডের একটি বড় অংশ যুড়েই রয়েছে বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিট। তাই বিশেষজ্ঞগন সরকারীÑবেসরকারী সব প্রতিষ্ঠান ও স্থাপনা সহ আবাসিক ভবনে বিদ্যুৎ লাইন সহ সবধরনের বৈদ্যুতিক সরঞ্জামের বিষয়ে আরো অধিক মনযোগী হবার পরামর্শ দিয়েছেন। জনবল সংকটের মধ্যেও দমকলের কমকর্তাগন বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান পরিদর্শনের মাধ্যমে অগ্নি নির্বাপন ব্যবস্থা সরেজমিনে প্রতক্ষ্য করে প্রয়োজনীয় দিক নির্দেশনা প্রদান করছেন। পাশাপাশি যেকোন দূর্ঘটনা ও দূর্যোগের সময় করণীয় সম্পর্কেও পরামর্শ প্রদান করছে বলে দায়িত্বশীল সূত্রে বলা হয়েছে।
তবে এখনো দক্ষিণাঞ্চলে কয়েকটি নদ-নদীবহুল উপজেলাতে দমকল বাহিনী পৌছতে পরেনি। যদিও ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স সপ্তাহ উপলক্ষে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী দেশের সব উপজেলাতে ফায়ার স্টেশন স্থাপন প্রকল্প খুব শিঘ্রই বাস্তবায়ন হবে বলে জানিয়েছেন। তবে দক্ষিণাঞ্চলে দেশের গুরুত্বপূর্ণ এ প্রতিষ্ঠানের জনবল সংকট সহ অবকাঠামোর দূর্বল অবস্থা সঠিক সেবা প্রদানকে বাধাগ্রস্থ করছে। বর্তমান কাঠামোতে দক্ষিণাঞ্চলের ৩টি প্রথম শ্রেণী ও ৩৫ টি দ্বিতীয় ও তৃতীয় শ্রেণীর ফায়ার স্টেশন ছাড়াও দুটি রিভার ফায়ার স্টেশনগুলোতে মোট মঞ্জুরীকৃত প্রায় ৯৭৫ জনবলের মধ্যে কর্মরত আছেন মাত্র সাড়ে ৭শর মত। বিপুল সংখ্যক জনবল শূণ্য থাকায় অতি স্পর্ষকাতর ও জনগুরুত্বপূর্ণ এ প্রতিষ্ঠানটির সেবা কার্যক্রম যথেষ্ঠ ব্যহত হলেও এব্যাপারে ফায়ার সার্ভিসের বরিশাল বিভাগীয় উর্ধতন কর্মকর্তাগন কোন মন্তব্য করতে রাজী হননি।
অপরদিকে গোটা দক্ষিণাঞ্চল যুড়ে ফায়ার স্টেশন সহ দমকল বাহিনীল সব ধরনের অবকাঠামোরই অত্যন্ত করুন হাল। বেশীরভাগ ফায়ার স্টেশনের নিয়মিত কোন মেরামত ও রক্ষনাবেক্ষন হচ্ছে না। তহবিল সংকটে গনপূর্ত অধিদপ্তর কাজ করতে পারছে না। এমনকি নিজস্ব ব্যবস্থাপনায়ও সামান্য মেরামত ও রক্ষনাবেক্ষনও ব্যাহত হচ্ছে। ফলে দক্ষিণাঞ্চলে বেশীরভাগ ফায়ার স্টেশনের অবকাঠামোর অবস্থা ক্রমশ নাজুক হচ্ছে।
তবে বরিশাল বিভাগ প্রতিষ্ঠার প্রায় ২৭ বছর পরে ফায়ার সার্ভিসের বিভাগীয় উপ-পরিচালকের দপ্তর সহ সরঞ্জাম মেরামত কারখানা ও প্রশিক্ষন কেন্দ্র স্থাপনের লক্ষ্যে ভ’মি অধিগ্রহন করা হয়েছে। এলক্ষে একটি উন্নয়ন প্রকল্প-প্রস্তাবনা, ডিপিপি তৈরী হচ্ছে বলেও জানা গেছে। অপরদিকে ১৯৫০-এর দিকে বরিশাল শহরে দ্বিতীয় শ্রেণীর ফায়ার স্টেশনটি সম্প্রতি প্রথম শ্রেণীতে উন্নীত হওয়ায় ছাড়াও নগরীর কাশীপুরে আরেকটি প্রথম শ্রেণীর ফায়ার স্টেশন নির্মিত হয়েছে। তবে মহানগরীর রূপাতলী এলাকায় অনরূপ আরেকটি স্টেশন নির্মানের লক্ষ্যে ভ’মি অধিগ্রহনের পরেও তা আইনী জটিলতায় তা আটকে আছে দীর্ঘদিন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ