Inqilab Logo

ঢাকা সোমবার, ১৮ জানুয়ারি ২০২১, ০৪ মাঘ ১৪২৭, ০৪ জামাদিউস সানী ১৪৪২ হিজরী
শিরোনাম

বঙ্গোপসাগরে ঘূর্ণিঝড় ‘নিভার’

শফিউল আলম | প্রকাশের সময় : ২৪ নভেম্বর, ২০২০, ২:০১ পিএম

গতিমুখ ভারতের দিকে : আগাম শীতের কাঁপনের পর মেঘ-বৃষ্টির আভাস : ঢাকা-চট্টগ্রামে বায়ুর মানে ফের অবনতি
দক্ষিণ-পশ্চিম বঙ্গোপসাগরে অবস্থানরত নিম্নচাপটি আরও শক্তি সঞ্চয় ও ঘনীভূত হয়ে গতকাল সোমবার রাতে গভীর নিম্নচাপ এবং আজ মঙ্গলবার সকালে ঘূর্ণিঝড়ে রূপ নিয়েছে। এর নামকরণ করা হয়েছে ‘নিভার’। এটি ইরানের দেয়া নাম।
বাংলাদেশের উপকূল থেকে দেড় হাজার কিলোমিটার দূরবর্তী দক্ষিণ-পশ্চিম বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট ঘূর্ণিঝড় নিভারের গতিমুখ দক্ষিণ ভারতের দিকে। শেষ মুহূর্তে গতিপথ পরিবর্তন না করলে নিভার অন্ধ্র ও তামিলনাডু উপকূলে আঘাত করতে পারে। সেসব অঞ্চলে সতর্কতা জারি হয়েছে।
নিভারের অতি দূরবর্তী অবস্থানের কারণে বাংলাদেশের আবহাওয়ায় এর তেমন কোনো প্রভাব এখনও নেই। দেশের সমুদ্র বন্দরসমূহে সতর্ক সঙ্কেতও দেখানো হয়নি।
তবে ঘূর্ণিঝড়টি ভারতের উপকূল অতিক্রমের সময় ও এরপর পশ্চিমবঙ্গসহ বাংলাদেশের অনেক জেলায় বিশেষত উপকূলীয় অঞ্চলে মেঘলা আবহাওয়া এবং বিক্ষিপ্তভাবে হালকা বা গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে। অগ্রহায়ণের এই শীত নামানো বৃষ্টি কেটে গেলে নভেম্বরের শেষে, ডিসেম্বরের গোড়াতে এবার শীত জেঁকে বসতে পারে।
আজও দেশের উত্তরাঞ্চলসহ অধিকাংশ স্থানে কুয়াশার সাথে উত্তুরের হিমেল কনকনে ঠা-া হাওয়ায় আগাম শীতের কাঁপুনি অব্যাহত রয়েছে। সন্ধ্যা থেকে শীতের অনুভূতি বাড়তে পারে আরও। এরমধ্যেই শহর-নগর-গঞ্জে শীতের কাপড় পরা এবং দোকানপাটে বেচাকেনাও শুরু হয়ে গেছে।
গেল রাত ও ভোরে দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল পঞ্চগড় জেলার তেঁতুলিয়ায় ১১.৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস। ঢাকার সর্বনি¤œ পারদ ছিল ১৬.১ ডিগ্রি সে.। দেশের বেশিরভাগ জেলায় রাত ও ভোরের পারদ ১৫ ডিগ্রি বা এরও নিচে নেমে যায়।
২৪ ঘণ্টার আবহাওয়া পূর্বাভাসে জানা গেছে, সারাদেশের আবহাওয়া থাকবে প্রধানত শুষ্ক। বিভিন্ন অঞ্চলে শেষ রাত থেকে ভোর পর্যন্ত হালকা থেকে মাঝারি ধরনের কুয়াশা পড়তে পারে। দেশের দক্ষিণাঞ্চলে রাতের তাপমাত্রা কিছুটা বাড়লেও দেশের অন্যত্র তা অপরিবর্তিত থাকতে পারে। দিনের তাপমাত্রা বাড়তে পারে খানিকটা। পরবর্তী ৭২ ঘণ্টায় আবহাওয়ার উল্লেখযোগ্য পরিবর্তনের সম্ভাবনা কম।
বায়ুদূষণ মাত্রা অত্যধিক
দেশের অনেক জায়গায় তিন দিনের ব্যবধানে আজ আবারও বাতাসে জলীয়বাষ্পের পরিমাণ বেড়ে গেছে। সকালে ঢাকার বাতাসে জলীয়বাষ্পের হার ছিল ৯৭ শতাংশ। যা গতকাল ছিল ৫০ শতাংশ।
জলীয়বাষ্পের আধিক্য ও আংশিক মেঘলা, শুষ্ক আবহাওয়ার মাঝেই ধুলোবালি, ধোঁয়াসহ বিভিন্ন প্রক্রিয়ায় দূষণ যোগ হচ্ছে বেশিহারে। এ অবস্থায় আজ দুপুরবেলা পর্যন্ত ঢাকা মহানগরীর বায়ু মানের সূচক ১৫২ (একিউআই)। যা খুবই অস্বাস্থ্যকর। বিশেষ করে হাঁপানি, শ^াসকষ্ট, সর্দি-কাশি, সাইনাস, গলাব্যাথার রোগীদের কষ্ট-দুর্ভোগ ও আপদ বেড়ে গেছে। ক্ষতিকর মাত্রায় বায়ুদূষণের মধ্যে চলাচলরত মানুষও এসব রোগে আক্রান্ত হতে পারেন। চট্টগ্রামেও দুপুরে বায়ুমান ১২৯ (একিউআই)। যা স্বাস্থ্য হানিকর। করোনা মহামারী সংক্রমণ বৃদ্ধির মাঝেই বায়ুর মানে অবনতি তথা বায়ু দূষণের কারণে বেড়ে গেছে উদ্বেগও। এরআগে গত শুক্রবার ও শনিবার ঘনঘোর মেঘমালার সাথে কুয়াশা ও জলীয়বাষ্পের উপস্থিতি বেড়ে গিয়ে ঢাকায় বায়ুর মানে গুরুতর অবনতি ঘটে।
ঘূর্ণিঝড় নিভার পরিস্থিতি-
আবহাওয়ার সতর্কবার্তায় আবহাওয়াবিদ মো. বজলুর রশিদ জানান, দক্ষিণ-পশ্চিম বঙ্গোপসাগর ও তৎসংলগ্ন এলাকায় অবস্থানরত গভীর নি¤œচাপটি ঘনীভূত হয়ে একই এলাকায় ঘূর্ণিঝড় নিভার-এ পরিণত হয়েছে। এটি আজ সকালে চট্টগ্রাম সমুদ্রবন্দর থেকে ১৬৬৫ কিলোমিটার দক্ষিণপশ্চিমে, কক্সবাজার সমুদ্রবন্দর থেকে ১৬১০ কি.মি. দক্ষিণ-পশ্চিমে, মংলা সমুদ্রবন্দর থেকে ১৫৫৫ কি.মি. দক্ষিণ-পশ্চিমে এবং পায়রা সমুদ্র বন্দর থেকে ১৫৫০ কি.মি. দক্ষিণ-পশ্চিমে অবস্থান করছিল।
নিভার আরও ঘনীভূত হয়ে উত্তর-পশ্চিম দিকে অগ্রসর হতে পারে।
ঘূর্ণিঝড় কেন্দ্রের ৫৪ কিলোমিটারের মধ্যে বাতাসের একটানা সর্বোচ্চ গতিবেগ ঘন্টায় ৬২ কি.মি., যা দমকা অথবা ঝড়োহাওয়ার আকারে ৮৮ কি.মি. পর্যন্ত বৃদ্ধি পাচ্ছে। নি¤œচাপ কেন্দ্রের কাছে সাগর উত্তাল রয়েছে।
চট্টগ্রাম ,কক্সবাজার, মংলা এবং পায়রা সমুদ্র বন্দরকে আবহাওয়া বিভাগের পরবর্তী নির্দেশনার জন্য সাবধানতার সাথে পর্যবেক্ষণ করতে বলা হয়েছে।
উত্তর বঙ্গোপসাগরে অবস্থানরত মাছ ধরার নৌকা ও ট্রলারসমূহকে সাবধানে চলাচল করতে বলা হয়েছে।

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: আবহাওয়া

২২ অক্টোবর, ২০২০
২১ সেপ্টেম্বর, ২০২০
২৮ মার্চ, ২০২০

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ